হাবিপ্রবিতে নাসা স্পেস অ্যাপ চ্যালেঞ্জের ক্যাম্পাস এক্টিভেশন প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ১১:০৭ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২১

আব্দুল কাইয়ুম, হাবিপ্রবি সংবাদদাতাঃ

হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ( হাবিপ্রবি) নাসা স্পেস অ্যাপ চ্যালেঞ্জ ক্যাম্পাস এক্টিভেশন প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানটি মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাতটায় অনলাইনে(জুম ক্লাউড মিটিং) শুরু হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নাসা স্পেস অ্যাপ চ্যালেঞ্জ-২০২১ এর উপদেষ্টা মাহাদি-উজ-জামান এবং হাবিপ্রবির কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের শিক্ষক সহযোগী অধ্যাপক আদিবা মেহজাবিন নিতু, সহযোগী অধ্যাপক মোঃফজলে রাব্বি, সহকারী অধ্যাপক মাসুদ ইবনে আফজাল ও প্রভাষক মোঃআবু মারজান।

অনুষ্ঠানটি পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেন হাবিপ্রবির বেসিস স্টুডেন্ট চ্যাপ্টারের আহ্বায়ক ও কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী শাকিল আহমেদ।

উক্ত অনুষ্ঠানে নাসা স্পেস অ্যাপ চ্যালেঞ্জ-২০২১ এর উপদেষ্টা মাহদি-উজ-জামান প্রতিযোগিতার বিষয়, নিয়ম-কানুন এবং কর্মপদ্ধতি আলোচনা করেন পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের প্রশ্নের উত্তর দেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের প্রভাষক মোঃ আবু মারজান শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ” নাসা স্পেস অ্যাপ চ্যালেঞ্জ প্রতিযোগিতা তোমাদের জন্য অনেক বড় সুযোগ। প্রতিযোগিতায় উপস্থিত হয়ে তোমাদের সফলতা অর্জন করবে এই প্রত্যাশা করি এবং কোনো পদ্ধতি বুঝতে সমস্যা হলে তোমরা আমার সাথে যোগাযোগ করো, আমি চেষ্টা করবো বুঝিয়ে দেওয়ার “।

সহযোগী অধ্যাপক আদিবা মেহজাবিন নিতু বলেন,” সকল-নিয়ম কানুন মেনে চ্যালেঞ্জ সাবমিট করার পূর্বে তোমরা স্যারদের পরামর্শ নিতে পারো বা অগ্রজদের পরামর্শ নিতে পারো “।

উক্ত অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অফ সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস)-এর সহকারী ব্যবস্থাপক (কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স) ও নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০২১ এর কমিউনিকেশন লীড জনাব মুন মন্ডল রাজীব বলেন, ” নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জে ঢাকা অঞ্চল থেকে অনেক প্রজেক্ট জমা পড়লেও ঢাকার বাইরে থেকে জমাকৃত প্রজেক্টের সংখ্যা আশানুরূপ হয় না। এই অ্যাক্টিভেশন প্রোগ্রামগুলোতে শিক্ষার্থীদের সক্রিয় অংশগ্রহণের ফলে তাদের অনেক জিজ্ঞাসার সমাধান হয়ে যায়। তিনি হাবিপ্রবি থেকে শিক্ষার্থীদের আগামীকালের মধ্যে প্রজেক্ট সাবমিশনের আহবান জানান।উক্ত ক্যাম্পাস অ্যাক্টিভেশন প্রোগ্রামে কয়েক শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে।

উল্লেখ্য, আগামী ২-৩ অক্টোবর ২০২১ তারিখে বিশ্বব্যাপী এই প্রতিযোগিতা বিশ্বের ২৫১ টি শহরে ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত হবে।

মন্তব্য করুন