ইসরায়েলি সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান মাহমুদ মাদানীর

প্রকাশিত: ১:০৮ অপরাহ্ণ, মে ৯, ২০২১

মসজিদুল আকসা প্রাঙ্গণে ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েলি সেনাদের বর্বরোচিত হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ। রমজান মাসে বাইতুল মাকদিসে এবাদতরতদের ওপর চালানো এই হামলাকে জায়োনিস্ট সন্ত্রাসবাদের জঘন্যতম দৃষ্টান্ত বলে আখ্যা দিয়েছেন দলটির সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা মাহমুদ মাদানী।

তিনি জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ওয়ার্ড মুসলিম লীগ এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ইসরায়েলি সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানান।

মাওলানা মাহমুদ মাদানী বলেন, মসজিদুল আকসায় ফিলিস্তিনিদের ওপর যে হামলা চালানো হয়েছে তা মানবতাবিরোধী অপরাধ। এই বর্বরোচিত হামলার ঘটনা পুরো বিশ্বের মুসলমানের হৃদয়কে ক্ষত-বিক্ষত করেছে- যোগ করেন তিনি। তিনি আরও বলেন, এই ঘটনা নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের নীরবতা লজ্জাজনক।

অধিকৃত পূর্ব জেরুসালেম থেকে ফিলিস্তিনিদের বিতাড়িত করে ইসরায়েলিদের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার যে অন্যায় পন্থা অবলম্বন করা হচ্ছে তারও তীব্র নিন্দা জানান জমিয়তের সেক্রেটারি জেনারেল। তিনি বলেন, পূর্ব জেরুসালেম একমাত্র ফিলিস্তিনিদের। এখানে ইসরায়েলের যে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ যুদ্ধাপরাধের শামিল।

এই অঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে ইসরায়েলের এ ধরনের আগ্রাসী পদক্ষেপকে সব থেকে বড় বাধা হিসাবে উল্লেখ করেন তিনি।

এছাড়া মসজিদুল আকসা থেকে ইসরায়েলি সেনাদের হটিয়ে ফিলিস্তিনিদের ইবাদত নির্বিঘ্ন করতে ও পূর্ব জেরুসালেমে ইসরায়েলি আগ্রাসন বন্ধেও দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন জমিয়তে উলামা হিন্দের সেক্রেটারি জেনারেল।

প্রসঙগত, শুক্রবার রমজানের শেষ জুমার দিনে আল-আকসা মসজিদ প্রাঙ্গণে মুসল্লিদের ওপর হামলা চালিয়েছে দখলদার ইসরায়েলি পুলিশ। ওই দিন ২০৫জন ফিলিস্তিনি আহত হন। এরপর দ্বিতীয় দিন শনিবার রাতেও জেরুসালেমে ফিলিস্তিনিদের ওপর হামলা অব্যাহত রেখেছে ইসরায়েলি বাহিনী। এ ঘটনায় কমপক্ষে ৮০ জন ফিলিস্তিনি আহত হয়েছেন বলে রেড ক্রিসেন্ট জানিয়েছে। তাদের মধ্যে ১৪ জনকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

সূত্র: মিল্লাত টাইমস

আইএ/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন