কৌশল করে মেয়েকে ধর্ষণ করল মেম্বার গোপাল বিশ্বাস

প্রকাশিত: ২:৩৭ অপরাহ্ণ, মে ৩, ২০২১

বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার চরবানিয়ারী ইউনিয়ন পরিষদের ৯নং ওয়ার্ডে সদস্য ননী গোপাল বিশ্বাসের বিরুদ্ধে এক স্কুল ছাত্রীকে (১৩) ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার (০৩ মে) তাকে মেডিক্যাল পরীক্ষার জন্য বাগেরহাট সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। এর আগে রোববার (২ মে) বেলা ১১ টার এ ঘটনা ঘটে। পরে ওই ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

জানা গেছে, চরবানিয়ারী ইউনিয়ন পরিষদের ৯নং ওয়ার্ডে সদস্য ননী গোপাল প্রথমে ছাত্রীর পরিবারকে করোনার ত্রাণ দেয়ার কথা বলে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রস্তুতির কাজে ব্যস্ত রাখে এবং পরে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে বলে তার পরিবার জানায়।

ভুক্তভোগী ছাত্রীর বাবা বলেন, রোববার (২ মে) বেলা ১১ টার দিকে চরবানিয়ারী ইউনিয়ন পরিষদের ৯নং ওয়ার্ডে সদস্য ননী গোপাল বিশ্বাস আমাদের বাড়িতে আসেন।

এ সময় তিনি করোনার সাহায্য দেয়ার কথা বলে আমার কাছে জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপিসহ অন্যান্য কাগজপত্র ও মোবাইল নাম্বার চান। পরে আমি ব্যবসার কাজে এবং আমার স্ত্রী ওই কাগজের ফটোকপি করতে চিতলমারী সদর বাজারে যাই।

ঘণ্টা খানেক পরে আমার স্ত্রী বাড়ি ফিরে দেখে ঘরের আড়ায় ওড়না দিয়ে আমার মেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালাচ্ছে। এ সময় তাকে জিজ্ঞাসা করলে, সে জানায় আমরা বাড়িতে না থাকার সুযোগে ননী গোপাল বিশ্বাস তাকে ধর্ষণ করেছে।

অভিযুক্ত ইউপি সদস্য ননী গোপাল বিশ্বাসের মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তার কোন বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে চিতলমারী থানার ওসি (তদন্ত) মো. ইকরাম হোসেন জানান, ধর্ষণের আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। ছাত্রীর মা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। ভুক্তভোগীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য আজ বাগেরহাট সিভিল সার্জনের নিকট প্রেরণ করা হয়েছে। আসামি ননী গোপাল বিশ্বাসকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য করুন