হেফাজতকে নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়ে বিএনপির ওপর নির্যাতন বাড়াচ্ছে সরকার

প্রকাশিত: ৮:০৬ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৫, ২০২১

সরকার হেফাজত ইসলামকে নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়ে বিএনপির ওপর নির্যাতন বাড়াচ্ছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সরকারের লক্ষ্য হচ্ছে একটা কর্তৃত্ববাদী এক দলীয় সরকারকে পুরোপুরিভাবে প্রতিষ্ঠা করা।

সেই লক্ষ্যে তারা শুধু বিএনপি নয়, শুধু বাম জোট নয় বা অন্যান্য দল নয় বা ইসলামী দলগুলো নয় বা হেফাজত নয়। সবার ওপরে নিপীড়ন-নির্যাতন চালাচ্ছে, যাতে করে কোনো বিরোধী কন্ঠ উচ্চারিত না হয়, ভিন্ন মত না আসে –এটাই হচ্ছে তাদের প্রধান লক্ষ্য।

বৃহস্পতিবার দুপুরে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

২৬ মার্চ স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তীর দিন থেকে বিভিন্ন ঘটনার প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার যারা জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয়, তারা রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করছে, বিশেষ করে পুলিশ বাহিনীকে ব্যবহার ঢাকা, চট্টগ্রাম, ব্রাক্ষণবাড়িয়াসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় অসংখ্য মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাদের নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার করতে শুরু করেছে।

তিনি বলেন. এখন পর্যন্ত আমরা যে হিসাব পেয়েছি, তাতে বিএনপির ১৮১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে, পাবনায় একজন গ্রেফতার হওয়ার পরে তার মৃত্যৃ হয়েছে।

ছাত্রদলের ৮১ জন, যুব দলের ৩০ জন, স্বেচ্ছাসেবক দলের গ্রেফতার হয়েছেন ১১ জন। আগে গ্রেফতার হওয়া ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি রফিকুল আলম মজনু গতকাল জামিনে মুক্ত হলেও জেলগেট থেকে গ্রেফতার করে আবার পুলিশ নতুন করে মামলা দিয়েছে।

দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুণ রায় চৌধুরীকেও একইভাবে নতুন করে আরেকটি মামলায় জড়িত করে চারদিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

ফখরুল বলেন, এই যে অবস্থাটা তৈরি হয়েছে এটাকে হালকা করে দেখার অবকাশ নেই।

আমরা যেটা দেখছি, আওয়ামী লীগ বরাবরই যেটা করে এসেছে তা হচ্ছে, যেহেতু জনগণ তাদের কাছে নেই, গণভিত্তি নেই এবং এভাবে অত্যাচার-নির্যাতন-গ্রেপ্তার-হত্যার মধ্য দিয়েই তাকে ক্ষমতায় টিকে থাকতে হবে।  সেই কারণে এই পবিত্র রমজান মাসেও তারা এই ধরনের হীন কার্যক্রমের সঙ্গে লিপ্ত হয়েছে।

মন্তব্য করুন