উগান্ডার থেকেও পেছনে বাংলাদেশ; ফেসবুক প্রতিক্রিয়া

প্রকাশিত: ৩:৪৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ৭, ২০২১

ইসমাঈল আযহার
পাবলিক ভয়েস

ইন্টারনেট গতি মাপার আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান ওকলার এক প্রতিবেদন বলছে, মোবাইল ইন্টারনেট গতিতে বিশ্বের ১৪০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১৩৬ নম্বরে। তবে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট গতিতে বাংলাদেশ ১৭৫টি দেশের মধ্যে ৯৬ নম্বরে অবস্থান করছে।

একটি দেশে মোবাইল ও ফিক্সড ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের গতি কেমন, সেটি নির্ধারণে ‘স্পিডটেস্ট গ্লোবাল ইনডেক্স’ নামের একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে ওকলা।

তাদের সর্বশেষ জানুয়ারি মাসের প্রতিবেদনে মোবাইল ইন্টারনেটের গতি সম্পর্কে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের গড় ডাউনলোড গতি ১০ দশমিক ৫৭ এমবিপিএস এবং আপলোডের গতি ৭ দশমিক ১৯ এমবিপিএস।

প্রতিবেশী দেশের মধ্যে মোবাইল ইন্টারনেট গতিতে বাংলাদেশের পেছনে আছে শুধু আফগানিস্তান ১৪০ নম্বরে। আফ্রিকার দেশ উগান্ডা, সোমালিয়া, সুদান, জাম্বিয়া, ইথিওপিয়ার মতো দেশও মোবাইল ইন্টারনেট গতিতে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে।

প্রতিবেদনে বাংলাদেশের ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট গতি সম্পর্কে বলা হয়েছে, ডাউনলোড গতি ৩৩ দশমিক ৫৪ এমবিপিএস এবং আপলোডের গতি ৩৩ দশমিক ৯৬ এমবিপিএস। ব্রডব্যান্ডের গতিতে প্রতিবেশী দেশের মধ্যে শ্রীলঙ্কা, নেপাল, মালদ্বীপ, ভুটান, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের চেয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ভালো।

ফেসবুকে ইমরান হোসাইন নামের একজন লিখেছেন, বাংলাদেশের মতো এত জঘন্য আর নিম্ন মানের ইন্টারনেট পৃথিবীর আর কোনও দেশে নেই। যে দেশে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে খোলা মাঠে বা গাছে চড়তে হয়। মানুষ যে কবে ঘরে খাটে শুয়ে শুয়ে মনের আনন্দে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারবে সেটা হয়তো বাংলাদেশের মানুষের জন্য এখন স্বপ্ন।

মোস্তাফিজুর রহমান নামের একজন লিখেছেন, এতো ক্যানভাস করি, এতো শ্রীপুরের বড়ি বেঁচি তারপরেও সব ফাঁশ হয়ে যায়। যাকগে, আমাদের উন্নয়নের গলাবাজির কাছে এই দু’একটা খবর এ আর কি! তাছাড়া এই দেশের মানুষ শক্তের ভক্ত নরমের যম। আমাদের ক্ষমতা আছে, আমাদের মিডিয়া আছে, আমাদের গলাবাজি-চাপাবাজিকেই মানুষ বিশ্বাস করে। সুতরাং নো টেনশন।

ইসরাত ইশা নামের একজন লিখেছেন,উন্নয়নের অগ্রযাত্রা সহ্য করতে না পেরে দেশের একদল বিদ্বেষী মহল সরকারের বিরুদ্ধ্বে অপ্রপচারে লিপ্ত। তাই তাদের চোখে দেশের 4.5 G স্পীড চোখে পড়ে না।

মন্তব্য করুন