৩৫ বছর পর কোম্পানীগঞ্জ আ.লীগ জিম্মি থেকে মুক্ত

প্রকাশিত: ৬:৪১ অপরাহ্ণ, মার্চ ৭, ২০২১

এম.এস আরমান,নোয়াখালী প্রতিনিধি: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙ্গালী জাতির মূলস্তম্ভ। তার ৭ই মার্চের ভাষনে অনুপ্রাণিত হয়ে ১৯৭১সালে লক্ষ লক্ষ জনতা মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিল। স্মৃতি বিজড়িত তাঁর সেই অমর বক্তব্যকে স্মরণ করে কোম্পানীগঞ্জ আওয়ামীলীগ ও তার অঙ্গসংগঠনকে দীর্ঘদিনের জিম্মি হওয়া অপরাজনীতি থেকে মুক্ত হওয়ার ঘোষনায় মুখরিত হয় কোম্পানীগঞ্জ।

রবিবার ( ৭ মার্চ) সকাল ১০ টায় বসুরহাট শহীদ নূরুল হক বীর উত্তম অডিটোরিয়ামে ৭ই মার্চ উপলক্ষে আলোচনা সভা ও বঙ্গবন্ধুর জীবনী প্রদর্শনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও নোয়াখালী জেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান বাদল দির্ঘ ৩৫ বছরের অপরাজনীতি থেকে আজ আমরা মুক্ত ঘোষনা করে বলেন,আবদুল কাদের মির্জার ঘোষনা অনুযায়ী ৪৭ বছর রাজনিতীতে ৪৭ হাজার নেতা কর্মিদের তিনি বিতাড়িত করেছেন।দলের কেন্দ্রীয় কোনো নিয়মের তোয়াক্কা নাকরে উপজেলা কমিটির সাধারন একজন সদস্য হয়ে মনগড়া নেতাদের বহিস্কার ও যুক্ত করে যাচ্ছিলেন দির্ঘদিন।তার একক আধিপত্বের কারনে নেতাদের ছিলোনা কোনো সাধীনতা,ছিলোনা কোনো শৃঙ্খলা, শত শত নেতাদের জিম্মিকরে দলকে ধ্বংষের পথে ছেড়ে দিয়েছিলেন কাদের মির্জা। দলিয় বেনারে যেসমস্ত নেতাকর্মিদের টাকা ও শ্রমের বিনিময়ে তিনি মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন তাদের সাথেও তিনি বেইমানী করেছেন।দল এবং দলিয় হাইকমান্ডের দিকে তাকিয়ে শত শত নেতাকর্মিরা এতদিন চুপ করেছিলো, কিন্তু আজ ধর্যের সিমানা পেরিয়ে প্রাণপ্রিয় নেতা ওবায়দুল কাদেরের নির্দেশে আমরা একত্রিত হয়েছি এবং আমরা ঐক্যবদ্ধ। এসময় আবদুল কাদের মির্জাকে ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে উপজেলা আওয়ামীলীগের বেনারে এসে গঠনতন্ত্র অনুযায় রাজনিতীতে ফিরে আসার আহ্বান জানান জেলা আ.লীগ নেতা মিজানুর রহমান বাদল।

এসময় সাবেক ছাত্রনেতা মাহবুবুর রশিদ মঞ্জু বলেন,যে সমস্ত নেতারা আওয়ামীলীগকে মনেপ্রাণে ভালোবাসেন,বঙ্গবন্ধুকে ভালোবাসেন,প্রধানমন্ত্রীকে ভালোবাসেন,ওবায়দুল কাদেরকে ভালোবাসেন,অপরাজনীতির ছত্রছায়া থেকে আপনারা ফিরে আসুন,এখনো সময় আছে সংশোধনের। আমাদের নেতা ওবায়দুল কাদেরের নির্দেষে এবং কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের তত্বাবধানে আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়েছি,কোনো ব্যক্তি বিশেষের কাছে কোম্পানীগঞ্জ আ.লীগ জিম্মি থাকতে পারেনা,থাকতে দেয়া হবেনা।

আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়ত খান,উপজেলা সাধারণ সম্পাদক নুর নবী চৌধুরী,উপজেলা যুবলীগ সভাপতি আজম পাশা চৌধুরী রুমেল,স্বাধীনতা ব্যাংকার্স পরিষদের সদস্য ফখরুল ইসলাম রাহাত,উপজেলা মহিলা আ.লীগ সভাপতি আরজুমান পারভিন,চরকাঁকড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা ফখরুল ইসলাম সবুজ,চরকাঁকড়া আ.লীগ সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান আরিফ,,উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম শাহিন চৌধুরী, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নিজাম উদ্দিন মুন্না,সাধারণ সম্পাদক শাহ ফারহান লিংকন,ছাত্রনেতা নূরে মাওলা রাজু প্রমূখ।

মন্তব্য করুন