সামিয়া রহমানের পর এবার সাদেকা হালিমের বিরুদ্ধে গবেষণা জালিয়াতির অভিযোগ

প্রকাশিত: ৬:৫১ অপরাহ্ণ, মার্চ ৫, ২০২১

সামিয়া রহমানের পর এবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ও সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক সাদেকা হালিমের বিরুদ্ধে গবেষণা জালিয়াতির অভিযোগ উঠেছে।

জালিয়াতির এ ঘটনা তদন্তের দাবি তুলেছে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।

বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বরাবর লিখিত আবেদন পত্রে এ দাবি জানান কয়েকটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক। অভিযোগের সাথে অধ্যাপক সাদেকা হালিম যে প্রবন্ধে ‘চৌর্যবৃত্তির আশ্রয়’ নিয়েছেন তার কয়েকটি কপিও সংযুক্ত করেন।

এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে আয়োজিত সমাবেশে এ অভিযোগ খতিয়ে দেখার দাবি করেন বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।

শিক্ষকদের অভিযোগপত্রে বলা হয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অধিকর্তা ড. সাদেকা হালিমের প্রকাশিত কিছু প্রবন্ধের প্লেজারিজম ধরা পড়েছে বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে কয়েকদিন ধরে রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে।

সেগুলো বাংলাদেশের শিক্ষায়তনিক পরিসরে দৃষ্টিগোচর হয়েছে, বিভিন্ন পরিসরে সেগুলো সমালোচনা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম নষ্ট হচ্ছে বলে প্রতীয়মান হয়।

এতে দেশের অনেকেই উদ্বিগ্ন বলে আমার মনে হয়েছে। অভিযোগপত্রে এই বিষয়টি সুরাহার জন্যে সুরাহার জন্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।

আরও পড়ুন- নিজেকে বলির পাঁঠা বললেন সামিয়া রহমান

এ বিষয়ে অভিযোগকারী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক মুশতাক আহমেদ বলেন, ‘সাদেকা হালিমের গবেষণা চৌর্যবৃত্তির সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পরে উচ্চশিক্ষা নিয়ে আমাদের মাঝে উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে।

বিষয়টি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সারা দেশের শিক্ষকদের জন্য লজ্জার বিষয়। একজন শিক্ষক হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে এই বিষয়টি জানিয়েছি। তার কাছে দাবি করেছি, বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান বলেন, ‘আমি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি আমি দেখব।’

এছাড়া দুপুরে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের এক সমাবেশ থেকে মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল বলেন, ‘সাদেকা হালিমের বিরুদ্ধে সম্প্রতি বিভিন্ন গণমাধ্যমে গবেষণা জালিয়াতির অভিযোগ উত্থাপিত হওয়ায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ও সম্মান রক্ষার্থে দ্রুত তদন্ত কমিটি গঠন পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানাচ্ছি।’

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন বলেন, ‘বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত অধ্যাপক সাদেকা হালিমের বিরুদ্ধে উত্থাপিত গবেষণা জালিয়াতির অভিযোগ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মর্যাদা, সম্মান ও ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করেছে।

তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন পদে থাকার নৈতিক যোগ্যতা হারিয়েছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মর্যাদা ও ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করেছেন।’

মন্তব্য করুন