চরমোনাইকে অবশ্যই হক মনে করি, রাজনৈতিক বিরোধ সেটা ভিন্ন : জুনায়েদ আল হাবিব

প্রকাশিত: ১:৫৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ৪, ২০২১

বাংলাদেশের পরিচিত তাসাউফপন্থী তরিকা ও প্রভাবশালী ইসলামি রাজনৈতিক দল ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ নিয়ে এক মন্তব্যের সূত্র ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচিত হয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা জুনায়েদ আল হাবিব।

গত দুদিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিষয়টি নিয়ে ইসলামপন্থীদের মধ্যে কথা বলছেন অনেকেই।

ঘটনার বিবরণীতে জানা যায় – গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ঐতিহাসিক চরমোনাই ফাল্গুনের মাহফিলের প্রথম দিন ঢাকা বিমানবন্দরে চরমোনাই মাহফিলে আসার পথে মাওলানা জুনায়েদ আল হাবিবের সাথে দেখা হয় বাংলাদেশের পরিচিত ও তরুণ ইসলামি আলোচক মুফতী রেজাউল করীম আবরারের। সে সময় জুনায়েদ আল হাবিব রাজশাহী যেতে বিমানের জন্য অপেক্ষা করছিলেন।

সে সময় বিমানবন্দরে জুনায়েদ আল হাবিব বিভিন্ন কথাবার্তার মধ্যে মাওলানা রেজাউল করীম আবরারকে উদ্দিশ্য করে বলেন – ‘ওই মাওলানা, কোথায় যাচ্ছেন- যে পথে যাচ্ছেন সে পথ আমাদের না’।

পরবর্তি চরমোনাই মাহফিল শেষ হওয়ার তিন চার দিন পর মাওলানা রেজাউল কারীম আবরার ‘সমালোচনায় ইনসাফ করুন’ শিরোনামে ফেইসবুকে একটি লেখা পোষ্ট করেন৷ সেখানে তিনি কারও নাম না নিয়ে বিমানবন্দরের ঘটনাটি দুঃখ নিয়ে বর্ণনা করেন৷ পরবর্তীতে তিনি কোন কারণে পোস্টটি অনলি-মি করলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের বিমানবন্দরের ছবি ছড়িয়ে পড়ে৷

এরপর শুরু হয় বিতর্ক ও বিষয়টি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে পড়ে এবং দেশের হকপন্থী ওলামায়ে কেরামদের একটি বিশাল জমায়েত চরমোনাই মাহফিল নিয়ে জুনায়েদ আল হাবিবের এমন মন্তব্যকে ঘিরে সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি।

এ বিষয়ে কথা বলতে মাওলানা জুনায়েদ আল হাবিবকে পাবলিক ভয়েসের পক্ষ থেকে ফোনকল করা হলে তিনি পাবলিক ভয়েসকে বলেন – ‘আমি এ বিষয়ে কিছু না বলে যার সাথে আমার কথা হয়েছে অর্থাত মাওলানা রেজাউল আবরারের কিছু বলাটা ভালো হবে। আমি তার সাথে কথা বলে বিষয়টি পরিস্কার করেছি এবং তিনিই এ বিষয়ে বক্তব্য দেবেন, কথা বলবেন’।

পরবর্তিতে মাওলানা রেজাউল করীম আবরার পাবলিক ভয়েসকে বলেন – ‘আমার সাথে মাওলানা জুনায়েদ আল হাবিবের কথা হয়েছে। তিনি আমাকে অনেক স্নেহ করেন এবং এ কথাটি স্নেহের জায়গা থেকে আমাকে বলেছেন। আমাকে ভালোবেসে নিজের অজান্তে কথাটি বলে ফেলেছিলেন হয়ত। তিনি স্পষ্টভাবেই চরমোনাই তরিকাকে হক মনে করেন বলেই জানিয়েছেন। রাজনৈতিক বিরোধ যেটুকু আছে এটা কোনভাবেই বড় কিছু নয় এবং রাজনৈতিক মতপার্থক্যের দিকে তাঁকিয়েই তিনি কথাটি বলেছিলেন।”

তাই সোশ্যাল মিডিয়ায় পুরো বিষয়টি না জেনে ব্যক্তিগত রাগ-ক্ষোভ প্রকাশ করতে আর কাউকে বাড়াবাড়ি কিংবা লেখালেখি না করার অনুরোধ করছি বলেন মাওলানা রেজাউল করীম আবরার।

মন্তব্য করুন