সুলতানি আমলের মসজিদ ভেঙে পার্ক নির্মাণ, যা বলল কমিটি

প্রকাশিত: ৫:০৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২১

নারায়ণগঞ্জের শহরের মন্ডলপাড়া এলাকায় মডেল মসজিদ নির্মাণের নামে ওয়াকফ সম্পত্তির অধীনস্থ পাঁচ শতাধিক বছরের প্রাচীন মসজিদের জায়গা দখল করে পার্ক ও বহুতল বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভির বিরুদ্ধে।

শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে নগরীর চাষাড়ায় রাইফেল ক্লাব মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করে এ অভিযোগ তোলেন মন্ডলপাড়া জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটি।

সুলতানি আমলের ওই প্রাচীন মসজিদ এবং ওয়াকফ সম্পত্তি রক্ষার জন্য সরকারের উচ্চ পর্যায়ের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মন্ডলপাড়া জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কমিটির সভাপতি আব্দুর রহমান, মসজিদের জমি সংক্রান্ত মামলার আইনজীবী মহসিন মিয়া, মোতোয়াল্লি সাফায়েত উদ্দিন আহমেদ ও সহকারী মোতোয়াল্লি বরকত উল্লাহ খন্দকারসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

সংবাদ সম্মেলনে কমিটির সাধারণ সম্পাদক জানান, মন্ডলপাড়া এলাকায় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ থেকে ক্রয়কৃত মীর শরিয়ত উল্লাহ ওয়াকফ সম্পত্তির ৮৩ শতাংশ জায়গা রয়েছে।

যার মধ্যে প্রাচীন বাংলার ইলিয়াছ শাহী রাজবংশের শেষ সুলতান জালালুদ্দীন ফতেহ শাহের আমলে ১৪৮২ সালে নির্মিত ৫৩৯ বছরের প্রাচীন কারুকাজ সম্বলিত একটি স্থাপত্য শৈলীর নিদর্শনের মসজিদ রয়েছে।

পরবর্তীতে ঐতিহাসিক মসজিদটিকে স্মৃতি হিসেবে রেখে নতুন করে মসজিদ নির্মাণ ও সম্প্রসারণ করা হয়। যার সমস্ত ব্যয়ভার বহন করেছে মীর শরীয়ত উল্লাহ এস্টেটের পক্ষ থেকে।

তিনি আরও বলেন, দীর্ঘ সময় পর রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ এই সম্পত্তি তাদের বলে দাবি করলে নিম্ন আদালত এবং উচ্চ আদালত থেকে দু’দফায় ওয়াকফ সম্পত্তির পক্ষেই রায় আসে।

পরে মসজিদ কমিটি সিদ্ধান্ত নেয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সারাদেশে ৫৬০টি মডেল মসজিদ নির্মাণের যে প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ চলছে, এই মসজিদটি সেই আওতায় নিয়ে জেলার মডেল মসজিদ হিসেবে যেন রূপান্তর করা হয়।

সেই লক্ষ্যে মসজিদ কমিটির পক্ষ থেকে ইসলামি ফাউন্ডেশনের সাথে আলাপ আলোচনা সাপেক্ষে একটি চুক্তিও হয়েছে। তবে সম্প্রতি সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডাক্তার সেলিনা হায়াৎ আইভি এই ওয়াকফ সম্পত্তির প্রায় অর্ধেক জায়গা দখলের পাঁয়তারা করছেন।

মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ অভিযোগ করেন, জেলা মডেল মসজিদের টেন্ডার হওয়ার পরই মেয়র আইভি অযাচিতভাবে গত ১২ জানুয়ারি মন্ডলপাড়া জামে মসজিদের ৪০ শতাংশ জায়গা দখল করে মডেল মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনসহ সেখানে নিজের নাম সম্বলিত একটি নামফলক স্থাপন করেছেন।

সম্পূর্ণ বেআইনি ও অন্যায়ভাবে ওয়াকফ সম্পত্তি জবর দখল করে সেখানে পার্কের নামে বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ করে ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসার ঘটাতে চাইছেন।

এর প্রেক্ষিতে মসজিদ কমিটির পক্ষ থেকে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি নারায়ণগঞ্জের চতুর্থ সহকারী জজ আদালতে একটি মামলা দায়ের করলে আদালত বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে সেখানে স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন।

তারপরেও আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ রাতের অন্ধকারে মসজিদের ১২টি রুম ভেঙ্গে ফেলেছে। একইসঙ্গে সেখানে পার্কের লেক নির্মাণের কাজও চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

‘মেয়রের এই অন্যায় ও বেআইনি কার্যক্রম বন্ধের ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনসহ সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সহযোগিতা কামনা করছে মসজিদ কমিটি। পাশাপাশি প্রাচীন ঐতিহাসিক মসজিদটি প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের মাধ্যমে সংরক্ষণের দাবিও জানান মসজিদ কমিটির সদস্যরা।

মন্তব্য করুন