প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর নিয়ে ছিনিমিনি খেলায় কঠোর হুঁশিয়ারি

প্রকাশিত: ৭:২৪ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২১

এম.এস আরমান,নোয়াখালী প্রতিনিধি: মুজিববর্ষ উপলক্ষে গৃহহীন তালিকাভূক্ত ৯ লাখ পরিবারের মধ্যে ৬৯ হাজার ৯০৪ জনকে দেয়া প্রধানমন্ত্রীর উপহার ইতিমধ্যে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। ঘর নির্মানের পরপরই ভেঙ্গে পড়ার তথ্যটি সত্য হলেও এর জন্য প্রধানমন্ত্রী দায়ী নয় বলে দাবী করেন আবদুল কাদের মির্জা।

মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারি) মঙ্গলবার কোম্পানীগঞ্জের সিরাজপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের আয়োজনে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মেয়র আবদুল কাদের মির্জা এসব কথা বলেন।

এসময় প্রধানমন্ত্রীর দেয়া অসহায়দের জন্য উপহার নিয়ে ছিনিমিনি খেলায় কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, সব জায়গায় ভাগ নেয়া ঠিক নয়, গরিবের হক নিয়ে ফাইজলামী করিয়েন্না, কবরে গেলে কঠিন জবাব দিতে হবে। নির্মানের ১২ দিনের মাথায় ঘর ভেঙ্গে পড়া নিয়ে খোঁজ-খবর না রাখায় জনপ্রতিনিধি ও সাংবাদিকদেরও দোষারোপ করেন কাদের মির্জা।

আগামী ইউনিয়ন নির্বাচনে সিরাজপুর ইউনিয়নে দলিয় প্রার্থী হিসেবে শেষ বারের মত নূর নবী চৌধুরীর নাম ঘোষনা করে মেয়র বলেন, নূর নবী চৌধুরী যদি অতিতে কোনো ভূল করে থাকে আমি তার হয়ে আপনাদের কাছে ক্ষমা প্রার্থী। নূর নবী চৌধুরীর জন্য আপনারা দোয়া করবেন এবং যোগ্য মনেহলে ভোট দিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করবেন। আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সকল দলের প্রার্থীদের স্বতঃস্ফুর্ত অংশগ্রহনেই অনুষ্ঠিত হবে।

বিএনপি-জামাত ও ইসলামী আন্দোলনের নেতাকর্মীদদের উদ্দেশ্যে কাদের মির্জা বলেন, আপনারা মন খুলে উৎসব মূখর পরিবেশে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করুন। আপনাদেরকে যদি কেউ বাধাদেয় আমাকে জানাবেন আমি কঠিন ব্যবস্থা নিবো। কোনো প্রকার বাধা ছাড়া নির্বাচনে অংশ গ্রহনের চ্যালেঞ্জ করেন কাদের মির্জা।

ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও মেম্বার পদপ্রার্থীদেরকে মেয়র কাদের মির্জা বলেন, আমি স্পষ্ট ভাষায় বলছি, বসুরহাট পৌরসভার নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ হয়েছে। কোম্পানীগঞ্জে সকল ইউনিয়নে অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে। কোন কেন্দ্রে অনিয়ম হলে তাৎক্ষণিক কেন্দ্র বন্ধ করে দেওয়া হবে, প্রয়োজনে ১০ বার নির্বাচন হবে। কোন অনিয়ম বরদাস্ত করা হবেনা। সকল দলের অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হবে ইউনিয়ন নির্বাচন।

এসময় তিনি কোম্পানীগঞ্জের উন্নয়নের কথা বলতে গিয়ে বলেন, এমন কোন স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসা নাই যেখানে ওবায়দুল কাদেরের উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। প্রত্যেকটা স্কুল-কলেজের নতুন ভবন নির্মাণ করা হয়েছে, মুছাপুর ক্লোজার নির্মাণ করা হয়েছে, দক্ষিণের নদী ভাঙ্গনের জন্য প্রায় ৪৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে এবং ভাঙ্গন রোধ করার জন্য গুচ্ছগ্রাম হয়ে একটি ক্রসড্যাম নির্মানের জন্য মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের প্রতি জনগণের পক্ষ থেকে আবেদন জানান কাদের মির্জা।

মদ,জুয়া,ইয়াবা সহ সকল নেশা গ্রস্তদের বিরুদ্ধে কাদের মির্জা বলেন,আমি যখন অসুস্থ্য হয়ে আমেরিকায় গিয়েছি চিকিৎসার জন্য,তখন আমি ভেবেছি আমি হয়ত আর বাঁচবোনা,কিন্তু আপনাদের দোয়ায় সুস্থ্যহয়ে আমি ফিরে এসে প্রতিজ্ঞা করেছি আমার এলাকায় কাউকে অপরাধের সাথে জড়িত হতে দিবোনা এবং সাহস করে সত্য কথা বলবো।তাই সকল মাদকাসক্তদের সাবধান করে বলছি নেশা ছেড়ে দিয়ে ভালো হয়ে যান, নাহয় আওয়ামীলীগ করলেও আমি ছাড় দিবোনা।

মন্তব্য করুন