গুন্ডা-মাস্তান থেকে চেয়ারম্যান হয়েছি, যারা মাহিফল করছে তাদের খুন করব

প্রকাশিত: ৩:৪৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২১

ইসমাঈল আযহার: কুমিল্লা জেলার লাকসাম উপজেলায় গোবিন্দপুর ইউনিয়নের নারায়াণপুর গ্রামে একজন বক্তাকে ওয়াজের সময় অপমান ও তার গাড়ি ভাংচুর করেছে  স্থানীয় ইউ/পি চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন শামীম ও তার গুন্ডাবাহিনী। ৭ ফেব্রুয়ারি রাতে এ ঘটনা ঘটেছে।

মাহফিল চলাকালে শমীম মঞ্চে উঠে বক্তা হাসিবুর রহামনকে অপমান করে এবং গালাগাল করে। এ সময়ের একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। এ ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ ও শামীমের বিচার দাবি করছেন অনেকে।

বক্তা হাসিবুর রহমানও তার ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। তিনি লিখেছেন, গতকাল কুমিল্লা জেলার লাকসাম উপজেলায় গোবিন্দপুর ইউনিয়নের নারায়াণপুর গ্রামের মাহফিলে স্থানীয় ইউ/পি চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন শামীম-এর নেতৃত্বে তার গুণ্ডাবাহিনী আমার গাড়ি ভাংচুর করে। মাহফিলে আমার আলোচনা চলাকালীন স্বঘোষিত এই গুণ্ডা চেয়ারম্যান তার স্বসস্ত্র গুন্ডাবাহিনী নিয়ে মাহফিলস্থলে এসে মাহফিলে গণ্ডগোল সৃষ্টি করে। তারপর অকথ্য ভাষায় মাহফিলে আগত শ্রোতাগণকে গালিগালাজ শুরু করে এবং আয়োজকদের হুমকি দিয়ে বলতে থাকে- আমি গুন্ডা-মাস্তান থেকে চেয়ারম্যান হয়েছি।

তিনি বলেন, যারা মাহফিল আয়োজন করেছ আমি তাদেরকে খুন করবো,কারো লাশ খুঁজে পাওয়া যাবে না।তাদের ঘরবাড়ি মরুভূমি বানিয়ে দিবো।মায়ের পেট থেকে বের করে জবাই করবো–এরকম অকথ্য ও অশালীন কথাবার্তা বলতে থাকে। উপস্থিত হাজার হাজার জনতা ক্ষুব্ধ হয়ে গেলে পরিবেশ গোলাটে হওয়ার আশঙ্কায় আমি সাথে সাথে মোনাজাত দিয়ে মাহফিল শেষ করি। অতঃপর আমি স্টেইজ থেকে নেমে নিরাপত্তার স্বার্থে পুলিশে ফোন করে পুলিশ প্রটেকশন চাই। এরই মধ্যে স্বঘোষিত এই গুণ্ডা চেয়ারম্যান তার লালিত পালিত গুণ্ডাদেরকে নিয়ে এলাকায় বিভিন্ন গাড়ি পুড়িয়ে দেয়াসহ মাহফিলে আগত বহু লোককে আক্রমণ করেছে।

তিনি আরও বলেন, পুলিশ আসতে আসতে তারা আমার গাড়িও ভাংচুর করেছে। অবশেষে পুলিশের ভাইয়েরা আমাকে নিরাপত্তা দিয়ে আমার লোকজনসহ আমাকে নিরাপদ স্থানে পৌঁছে দিয়েছেন। এমন জানোয়াররুপী লোকেরা জনপ্রতিনিধি হয় কী করে?এদেরকে কারা লালন-পালন করে?এরা মাফিয়াতন্ত্র ক্বায়েম করে জনগণের সেবক না হয়ে শোষকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে। আমি, আমার ড্রাইভার ও আমার সফরসঙ্গীগণ নিরাপদ এবং ভালো আছি। দেশ-বিদেশের যারা আমাদের খোজ খবর নিয়েছেন তাদের সকলের প্রতি আমি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি এবং সকলের কাছে দোয়া কামনা করছি। আমাকে নিরাপত্তা দেয়ার জন্য পুলিশের ভাইদেরকে আমি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আমি উত্তম সবর অবলম্বন করলাম এবং আল্লাহর কাছে এসব গুন্ডা-মাস্তানদের উত্তম বিচার কামনা করছি, নিশ্চয়ই তিনি উত্তম ফায়সালাকারী।

মন্তব্য করুন