হেফাজতের ঢাকা মহানগরীর পূর্ণাঙ্গ কমিটি তালিকা

প্রকাশিত: ৫:০৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৩০, ২০২১

কওমি মাদরাসাকেন্দ্রীক ইসলামপন্থিদের সংগঠন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের ঢাকা মহানগরীর পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

ঢাকার বিভিন্ন কওমি মাদরাসার দায়িত্বশীল ও বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ এবং খেলাফত আন্দোলনের বিভিন্ন দায়িত্বশীলদের সমন্বয়ে এ কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আজ ৩০ জানুয়ারী (শনিবার) রাজধানী ঢাকার খিলগাঁওয়ের  মাখজানুল উলূম মাদরাসায় হেফাজতের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মাওলানা নুরুল ইসলাম জিহাদীর উপস্থিতিতে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর শাখার কমিটি ঘোষণা করা হয়।

কমিটি ঘোষণা করেন হেফাজতের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের সাবেক মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক।

২২ সদস্য বিশিষ্ট উপদেষ্টামণ্ডলি ও ১০৮ সদস্যের কার্যকরী সদস্যসহ মোট ১৩০ জনের সমন্বয়ে পূর্নাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এর মধ্যে সভাপতি হিসেবে জমিয়ত নেতা মাওলানা জুনায়েদ আল হাবিব ও সেক্রেটারী হিসেবে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের নাম হাটহাজারী মাদরাসা থেকে আগেই ঘোষণা করা হয়েছিলো। বাকি সদস্যদের নাম আজ ঘোষিত হলো।

আরও পড়ুন :  কাফন পরে রাস্তায় নামার হুঁশিয়ারি হেফাজত নেতা জুনায়েদ আল হাবিবের

কমিটির সদস্যদের মধ্যে বেশিরভাগই ইসলামি রাজনৈতিক দল জমিয়ত, খেলাফত ও মজলিসের সদস্যরা রয়েছেন। তবে কমিটিতে স্থান হয়নি বাংলাদেশের বৃহত ইসলামি রাজনৈতিক দল ‘ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ’ এর কোন সদস্যের।

আরও পড়ুন :

অবিশ্বাস্য এক সিন্ডিকেট চক্রের অদৃশ্য জালে হেফাজতে ইসলাম : হারুন ইজহার

বর্তমান হেফাজতে ‘সিন্ডকেট’ ভাঙ্গার আহবান মুফতী হারুণ ইজহারের

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ, ঢাকা মহানগর কমিটিতে যারা রয়েছেন : 

২২ সদস্যবিশিষ্ট উপদেষ্টামন্ডলী :

  • হযরত মাওলানা আতাউল্লাহ হাফেজ্জি।
  • হযরত মাওলানা আবুল কালাম মোহাম্মদপুর।
  • হযরত মাওলানা আরশাদ রাহমানী।
  • হযরত মাওলানা সফিউল্লাহ পীর জঙ্গী মাজার।
  • হযরত মাওলানা মাহফুজুল হক।
  • জনাব ডঃ আহমদ আবদুল কাদের।
  • হযরত মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী।
  • হযরত মাওলানা মুফতি আব্দুল বারী।
  • হযরত মাওলানা মুফতি আবু সাঈদ ফরিদাবাদ।
  • হযরত মাওলানা মুফতি শফিকুল ইসলাম জামিয়াতু ইব্রাহীম।
  •  হযরত মাওলানা বাহাউদ্দীন জাকারিয়া।
  • হযরত মাওলানা উবায়দুল্লাহ ফারুক।
  • হযরত মাওলানা মকবুল হোসাইন ভাটারা।
  • অধ্যাপক আব্দুল করিম।
  • হযরত মাওলানা আব্দুল কাইয়ুম দারুস সালাম।
  • হযরত মাওলানা আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ হাসান।
  • হযরত মাওলানা এমদাদুল ইসলাম জামালুল কুরআন।
  • হযরত মাওলানা আবুল কালাম মিরপুর।
  • হযরত মাওলানা আব্দুস সালাম বাউনিয়াবাধ।
  • হযরত মাওলানা আব্দুল মাজীদ আতহারী।
  • হযরত মাওলানা মহিউদ্দীন রব্বানী।
  • হযরত মাওলানা সাঈদুর রহমান খেলাফত আন্দোলন।

সভাপতি- মাওলানা জুনায়েদ আল হাবিব

সহ সভাপতি (২২ জন)

  • মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস মানিকনগর।
  •  মাওলানা নাজমুলহাসান জমিয়ত।
  •  মাওলানা শফিক উদ্দিন খেলাফত মজলিস।
  •  মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী জমিয়ত।
  •  মাওলানা খুরশিদ আলম কাসেমী বা খেলাফত মজলিস।
  • মাওলানা ফজলুল করীম কাসেমী জমিয়ত।
  •  মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী খেলাফত মজলিস।
  • মাওলানা কুরবান আলী কাসেমী বা. খেলাফত মজলিস।
  •  মাওলানা হাবিবুল্লাহ মিয়াজী খে.আন্দোলন।
  • মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী খে.আন্দোলন।
  •  মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস আরজাবাদ।
  •  মুফতি এনামুল হক বসুন্ধরা।
  •  মাওলানা গোলাম মহিউদ্দিন ইকরাম জমিয়ত।
  • মাওলানা রশিদ আহমদ মেরাজনগর।
  • মাওলানা জসীমউদ্দীন লালবাগ।
  •  মাওলানা জুবায়ের আহমদ লালবাগ।
  • মাওলানা মুসা বিন ইজহার নেজামে ইসলাম।
  •  মাওলানা ইলিয়াস হামিদী।
  • মাওলানা আব্দুল কাইয়ুম সুবহানী সেগুনবাগিচা।
  •  মাওলানা শিব্বির আহমদ খিলগাঁও।
  • মুফতি মহিউদ্দিন মাসুম ধৌর।

সাধারণ সম্পাদক :  মাওলানা মুহাম্মদ মামুনুল হক

সহ-সাধারণ সম্পাদক (১১ জন)

  •  মুফতি মনির হোসাইন কাসেমী জমিয়ত।
  •  মাওলানা কেফায়াতুল্লাহ আজহারী উত্তরা।
  •  মাওলানা জালাল উদ্দিন আহমদ খেলাফত মজলিস।
  •  মাওলানা লোকমান মাজহারী জমিয়ত।
  •  মুফতি জাবের কাসেমী জমিয়ত।
  • মুফতি সাখাওয়াত হোসাইন রাজি।
  • মাওলানা আজিজুল হক খেলাফত মজলিস।
  •  মাওলানা আব্দুর রহমান খান ফরায়েজী।
  •  মাওলানা ফিরোজ আশরাফী খে.আন্দোলন।
  •  মাওলানা আবু তাহের খান নেজামে ইসলাম।
  •  মাওলানা তোফাজ্জল হোসেন মিয়াজী খেলাফত মজলিস।

সাংগঠনিক সম্পাদক – মাওলানা মুফতি মুহাম্মদ আজহার।

সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক- (৮ জন)

  • মাওলানা মতিউর রহমান গাজীপুরী জমিয়ত।
  •  মাওলানা সুলতান মহিউদ্দিন খে.আন্দোলন।
  •  মাওলানা নূর মোহাম্মদ কাসেমী মাওলানা মুফতি শরিফুল্লাহ যাত্রাবাড়ী।
  •  মাওলানা জুবায়ের মোহাম্মদপুর।
  •  মাওলানা কামাল উদ্দিন সালেহ।
  • মাওলানা আজিজুর রহমান হেলাল বা.খেলাফত মজলিস।
  • সাইফুদ্দিন আহমেদ খন্দকার খেলাফত মজলিস।
  • মুফতি রুহুল আমিন ফরায়েজী।

প্রচার সম্পাদক- মাওলানা আতাউল্লাহ আমিন

সহ প্রচার সম্পাদক- (৭ জন)

  •  মাওলানা জয়নুল আবেদীন জমিয়ত।
  •  মাওলানা ওয়ালী উল্লাহ আরমান জমিয়ত।
  •  মাওলানা এহসানুল হক বা.খেলাফত মজলিস।
  •  মাওলানা জাকির হোসাইন কাসেমী বাউনিয়াবাধ।
  •  মাওলানা আকরাম হোসাইন খে.আন্দোলন।
  •  মাওলানা ফরহাদ আলম নেজামে ইসলাম।
  •  জনাব তাওহীদুল ইসলাম তুহিন খেলাফত মজলিস।

অর্থ সম্পাদক- মাওলানা মুফতি জাকির হোসাইন কাসেমী, জমিয়ত।

সহ অর্থ সম্পাদক – (৫ জন)

  •  মাওলানা মুফতি কামাল উদ্দিন উত্তরা।
  • মাওলানা ইউনুছ আলী খিলগাঁও।
  •  মাওলানা আনোয়ারুল করীম নেজামে ইসলাম।
  •  মাওলানা নাসির উদ্দিন লালবাগ।
  •  মাওলানা উযায়ের আমিন খেলাফত মজলিস।

স্বেচ্ছাসেবা বিষয়ক সম্পাদক- মাওলানা ফয়সাল আহমদ বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস।

স্বেচ্ছাসেবা বিষয়ক সহ সম্পাদক- (১০ জন)

  • হাফেজ নুরুল আমিন।
  • মাওলানা ওয়ালিউল্লাহ ইমাম পরিষদ।
  •  মাওলানা নুরুজ্জামান রাহমানিয়া।
  • মাওলানা সানাউল্লাহ খে.আন্দেলন।
  •  মাওলানা নেয়ামত উল্লাহ আমিন উত্তরা।
  • মাওলানা মাহবুবুল আলম খিলগাঁও।
  •  মাওলানা রাশেদ বিন নূর খিলগাঁও।
  •  মাওলানা ফজলুর রহমান যুব মজলিস।
  •  মাওলানা রিজওয়ান আরজাবাদ।
  • মাওলানা আতিকুর রহমান সিদ্দিকী নেজামে ইসলাম।

সমাজ কল্যাণ সম্পাদক- মাওলানা গাজী ইয়াকুব।

সহ সমাজ কল্যাণ সম্পাদক- (১০ জন)

  • মাওলানা আব্দুল লতিফ ফারুকী, ভাষানটেক।
  •  জনাব রিফাত মালিক, খেলাফত মজলিস।
  •  মাওলানা সাইফুল্লাহ হাবিবী, লালবাগ।
  •  মাওলানা দ্বীনে আলম হারুনী, নেজামে ইসলাম।
  •  মাওলানা মুফতি সাঈদ আহমদ, মিরপুর।
  •  মুফতী আতাউর রহমান খান, জমিয়ত।
  •  মাওলানা ইলিয়াস হাসান কাসেমী, মিরপুর।
  • মাওলানা কামাল আহমদ ফরায়েজী।
  •  মাওলানা সাইফুল ইসলাম সুনামগঞ্জী, খেলাফত আন্দোলন।
  •  মুফতি আবু বকর সিদ্দিক ফরিদী ফরায়েজী।

আইন বিষয়ক সম্পাদক- জনাব এ্যাডভোকেট মিজানুর রহমান। খেলাফত মজলিস

সহ আইন বিষয়ক সম্পাদক- (৭ জন)

  • মাওলানা বশিরুল হাসান খাদিমানী জমিয়ত।
  • মাওলানা আনিসুর রহমান বিমানবন্দর।
  • মাওলানা শরীফ হোসাইন যুব মজলিস।
  • মাওলানা রবিউল ইসলাম ইমাম বাজার।
  •  এ্যাডভোকেট যুবায়ের আহমাদ ফরীদ নেজামে ইসলাম।
  •  এডভোকেট লিটন চৌধুরী খে.আন্দোলন।
  •  মুফতি শামসুল আলম।

দপ্তর সম্পাদক – মাওলানা রবিউল ইসলাম, মিরপুর।

সহ-দপ্তর সম্পাদক- (২ জন)

  • মাওলানা আব্দুল মুমিন খেলাফত মজলিস।
  • মাওলানা এহতেশামুল হক সাকি নেজামে ইসলাম।

তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক- ডক্টর মুস্তাফিজুর রহমান, খেলাফত মজলিস।

তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সহ সম্পাদক- (৪ জন)

  •  মাওলানা জাকির হোসাইন খান, জমিয়ত।
  • অধ্যাপক আব্দুল জলিল, খেলাফত মজলিস।
  • মাওলানা রিজওয়ান জমীরাবাদী, নেজামে ইসলাম।
  •  মাওলানা আশরাফুজ্জামান পাহাড়পুরী, খেলাফত আন্দোলন।

সদস্য – (১৫ জন)

  • মাওলানা হামেদ জহিরী, জমিয়ত।
  •  মাওলানা বশির উল্লাহ মাহমুদ, পল্লবী।
  • মাওলানা মাহমুদুর রহমান, আদাবর।
  • মাওলানা লুৎফুর রহমান, ফার্মগেট।
  • মাওলানা মুফতি কামাল উদ্দিন শিহাব, যাত্রাবাড়ী।
  • মাওলানা ওয়াজেদ আলী, কড়াইল।
  •  মাওলানা হেদায়েতুল ইসলাম।
  • মাওলানা মুজিবুর রহমান, গেন্ডারিয়া।
  • মাওলানা ঈসা কাসেমী, কল্যাণপুর।
  • মাওলানা মুফতি আব্দুস সাত্তার, পল্টন।
  • মাওলানা ইমরান হোসাইন কাসেমী, খেলাফত আন্দোলন।
  • জনাব শাহাবুদ্দিন খন্দকার, খেলাফত মজলিস।
  • মাওলানা সানাউল্লাহ, লালবাগ।
  • মাওলানা এমদাদুল হক সাকি, নেজামে ইসলাম।
  • মাওলানা আনোয়ার হোসাইন রাজী, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস।

প্রসঙ্গত : হেফাজতের প্রতিষ্ঠাতা আমীর দেশ বরেণ্য শীর্ষ আলেম আল্লামা শাহ্ আহমদ শফি রহ. গত বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করার পর হেফাজতের আমিরের পদটি শূণ্য হয়। এরপর গত বছরের ১৫ নভেম্বর হাটহাজারী মাদরাসায় হেফাজতের নতুন কমিটি গঠন করা হয় তখনকার মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে আমীর এবং হেফাজত ঢাকা মহানগরীর সভাপতি আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমীকে মহাসচিব করে।

পরবর্তিতে আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমীর ইন্তেকালের পর মাওলানা নুরুল ইসলাম জিহাদীকে হেফাজতের মহাসচিব নির্ধারণ করা হয়।

এছাড়াও কেন্দ্রীয় পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে দেশের বিভিন্ন পর্যায়ের আলেমদেরকে জায়গা দেয়া হয়। বিশেষ করে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম ও খেলাফত মজলিসের একাধিক নেতাকর্মীরা হেফাজতে ঢালাওভাবে পদ পান যা হেফাজতে নতুন সিন্ডিকেট হয়েছে মর্মে সমালোচনার জন্ম দিয়েছিলো।

আরও পড়ুন :  ৭ বছর পর হঠাত করে হেফাজতের মামলা সক্রিয় করছে সরকার

হেফাজতের সাংগঠনিক ইতিহাস সম্পর্কে অনুসন্ধানে জানা যায় – ২০১০ সালের দিকে ধর্মনিরপেক্ষ শিক্ষানীতির বিরোধিতার মধ্য দিয়ে হেফাজতের আত্মপ্রকাশ হলেও সংগঠনটি দেশজুড়ে আলোচনায় আসে ২০১৩ সালে ১৩ দফা দাবিতে আন্দোলনের মধ্য দিয়ে। বিশ্বজুড়ে আলোচনায় আসে ২০১৩ সালে ৫ মে শাপলা চত্বর অবরোধের মাধ্যমে।

প্রতিষ্ঠা ইতিহাস সম্পর্কে জানা যায় – ২০১০ সালের ১৯ জানুয়ারি গঠিত হয়েছিল চট্টগ্রাম কেন্দ্রীক কওমী মাদরাসাভিত্তিক অরাজনৈতিক ইসলামী সংগঠন হেফাজত ইসলাম বাংলাদেশ। যদিও বা পরে অরাজনৈতিক এ সংগঠনটি রাজনৈতিক ফ্যাক্টরও হয়ে দাঁড়ায়।

হটহাজারীর দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম মাদ্রাসার প্রধান পরিচালক আল্লামা শাহ আহমদ শফিকে আমির ও মাদ্রাসার তৎকালীন সিনিয়র মুহাদ্দিস আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে মহাসচিব করে হেফাজতের ২২৯ সদস্যের মজলিশে শুরা কমিটি গঠন করা হয়েছিল সেই সময়।

তবে একটি সূত্র থেকে জানা যায় – হেফাজতের প্রতিষ্ঠাতা মহাসচিব ছিলেন আল্লামা সুলতান যওক নদভী। কিন্তু পরবর্তিতে তেমন কোনো আলোচনা ছাড়াই আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে মহাসচিব বানানো হয়। দীর্ঘ অনুসন্ধানেও আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে তৎকালিন সময়ে মহাসচিব বানানোর কাগজপত্র পাওয়া যায়নি। তার আগে চট্টগ্রামের প্রবীণ আলেম মাওলানা আ. মালেক হালিমও হেফাজতের মহাসচিব ছিলেন বলে একটি তথ্য পাওয়া যায়। তবে আল্লামা শফী ও আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর নেতৃত্বেই হেফাজত অনন্য উচ্চতায় পৌছায়।

আল্লামা আহমদ শফী রহ. এর জীবদ্দশায় শেষ সময়ে হেফাজতের মধ্যে একটি সিন্ডিকেট ছিলো বলে অভিযোগ করা হয়। সে সিন্ডিকেটের আওতায় হেফাজত পথচ্যুত হয়েছে বলেও অভিযোগ আছে। হাটহাজারী মাদরাসায় একটি আন্দোলনের মধ্য দিয়ে সেই সিন্ডিকেটের পতন হয়েছে বলেও মনে করছেন অনেকে। অপরদিকে সে আন্দোলনে আল্লামা শাহ্ আহমদ শফী রহ. এর দূর্ব্যবহার করা সহ হাটহাজারী মাদরাসায় আল্লামা শফীর রুম ভাংচুর ও বেশ কয়েকজন শিক্ষকের রুম ভাংচুরের অভিযোগ রয়েছে। যা নিয়ে আল্লামা শফী রহ. এর পরিবারের পক্ষ থেকে আদালতে মামলা করার ঘটনাও ঘটেছে।

আল্লামা শফী রহ. এর ইন্তেকালের পর গত ৩ অক্টোবর ঢাকায় হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগরের আয়োজনে বায়তুল মোকাররম উত্তর গেটে বিশাল গণসমাবেশের মাধ্যমে হেফাজতের নতুন জাগরণ হয়েছে বলে মনে করছেন অনেকে। তবে এ সমাবেশেও হেফাজত ঢাকা মহানগরীর সেক্রেটারির উপস্থিত না থাকা নিয়েও তখন কিছুটা আলোচনা সমালোচনা শোনা গেছে বিভিন্ন মহলে।

পরবর্তিতে ১৫ নভেম্বর আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর নেতৃত্বে হেফাজতের কেন্দ্রীয় নতুন কমিটি গঠিত হয়। যেখানে হেফাজতের ঢাকা মহানগর কমিটির সভাপতি সেক্রেটারীও নির্ধারণ করা হয়।

পাবলিক ভয়েস ডেস্ক প্রতিবেদন। সম্পাদনা ও বিন্যাস : হাছিব আর রহমান।

মন্তব্য করুন