বিনাপরাধে মুসলিম কমেডিয়ানকে জেল দিল ভারত

প্রকাশিত: ৬:৫৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৭, ২০২১

মুম্বাইয়ের ২৮ বছর বয়সী কমেডিয়ান মুনাওয়ার ফারুকিকে ২৭ দিন ধরে ভারতের মধ্য প্রদেশের একটি জেলে আটকে রাখা হয়েছে। তার ‘অপরাধ’ হলো তিনি হিন্দু দেব-দেবী বিরোধী কৌতুক ‘পরিবেশন করতে যাচ্ছিলেন’। মধ্য প্রদেশ এবং এর প্রতিবেশি উত্তর প্রদেশে আইনি জটিলতায় পড়েছেন মুনাওয়ার।

একটিতে তার বিরুদ্ধে হিন্দু দেব-দেবীদের নিয়ে কৌতুক বলার অভিযোগ করা হয়েছে, অন্যটিতে হিন্দু দেব-দেবী এবং ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে অপমান করার অভিযোগ করা হয়েছে। সোমবার মধ্য প্রদেশ হাই কোর্ট মুনাওয়ারের জামিন আবেদন খারিজ করে দিয়েছে। এর আগে একাধিকবার আবেদন করার পর অঞ্চলটির একটি নিম্ন আদালতও তার জামিন আদেন খারিজ করে দেয়। দুটি প্রদেশই শাসন করে ভারতের ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)।

অমিত শাহ এই দলেরই শীর্ষ নেতা। অভিযোগ— হিন্দু দেব-দেবীকে নিয়ে ‘সম্ভাব্য কৌতুক’ মুনাওয়ারকে একটি রিহার্সেল থেকে আটক করা হয়। তার বিরুদ্ধে তখন অভিযোগ করা হয় তিনি তার মূল পরিবেশনায় হিন্দু দেব-দেবীদের বিরুদ্ধে কৌতুক বলতে পারেন। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে হিন্দু রক্ষক সংগঠন নামের একটি সংস্থা।

তাদের দাবি, মুনাওয়ার হিন্দু দেবতাদের অপমান করেছেন। মুনাওয়ারের সাথে নালিন যাদব, প্রখর ভ্যাস, প্রিয়ম ভ্যাস এবং এডউইন অ্যান্থনি নামের আরো কয়েকজনকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। এই ঘটনায় অভিযুক্ত না হওয়ার পরও মুনাওয়ারের বন্ধু সাদাকাত খানকেও গ্রেপ্তার করা হয়। থাকে কমেডি ইভেন্টের সহ-সংগঠনক হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়। একাধিকবার জামিন আবেদন বাতিল হওয়ার পর মুনাওয়ারের আইনজীবী উচ্চ আদালতে যান এবং ১৫ জানুয়ারি শুনানির দিন ধার্য করা হয়। কিন্তু পুলিশ চার্জশিট জমা দিতে না পারায় আদালত স্থগিত করা হয়।

পুলিশ এ বিষয়ে গড়িমসি করছে— অভিযোগ মুনাওয়ারের আইনজীবী আনশুমান শ্রিবাস্তবের। আল জাজিরার সাথে কথা বলার সময় এই অভিযোগ করেন তিনি। মুনাওয়ারকে আটক করে ইন্দোর পুলিশ।

তারা দাবি করেছিলো, কমেডি ইভেন্টে হিন্দু দেব-দেবীর বিষয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করা হয়েছে। ইন্দোরের পুলিশ সুপারিনটেনডেন্ট বিজয় খাত্রি দাবি করেছেন মুনাওয়ার এবং গ্রেপ্তার করা অন্যদের বিরুদ্ধে তাদের কাছে যথেষ্ট প্রমাণ আছে। কিন্তু গত সপ্তাহেই তিনি আর্কেটিল-ফোরটিন নামের একটি সংবাদ সংস্থাকে বলেছেন, মুনাওয়ার কৌতুকটি পরিবেশন করেননি, তবে করতে যাচ্ছিলেন। এ বিষয়ে ইন্দোর পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলো আল জাজিরা। যে অপরাধ মুনাওয়ার করেননি, সে অপরাধের জন্য তাকে গ্রেপ্তারের বিষয়ে তাদের মন্তব্য চাওয়া হয়েছিলো। কিন্তু পুলিশ তাদের প্রশ্নের কোনো উত্তর দেয়নি।

মন্তব্য করুন