শায়খে যাত্রাবাড়ীর প্রতি সম্মান; দরসে বসলেন খলিফারা

প্রকাশিত: ৪:৫৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৫, ২০২১

রিদওয়ান হাসান :  গতকাল রোববার (২৪ জানুয়ারী) বর্তমান বিশ্বের ইসলাহে উম্মতের অন্যতম রাহবার মুহিউস সুন্নাহ আল্লামা মাহমূদুল হাসানের খুলাফাদের জমায়েত মজলিস ছিল জামিয়া ইসলামিয়া দারুল উলূম মাদানিয়া যাত্রাবাড়ি মাদরাসায়।

আগামী ১৩ ফেব্রুয়ারি মজলিসে দাওয়াতুল হক বাংলাদেশ-এর ২৬তম মারকাযি ইজতেমাকে সফলভাবে আঞ্জাম দেবার উদ্দেশ্যে জমায়েত হয়েছিলেন তারা।

সে সময় জমায়েত শেষে মুহিউস সুন্নাহ আল্লামা মাহমূদুল হাসান স্বাভাবিক নিয়মে মাদরাসার দরসে বুখারিতে গেলে আগত মেহমান খলিফারাও দরসে বুখারিতে যোগ দেন।

তখন মাদরাসার দরসে বুখারি এক অনন্য আলেম তারকাদের মজমায় পরিণত হয়।

শায়েখে যাত্রাবাড়ি দীর্ঘসময় ধরে হাদিসের আলোকে তাসাউফ ও তাযকিয়ার ওপর গুরুত্বপূর্ণ বয়ান করেন এবং হাদিসের সবক প্রদান করেন।

এরপর সবক শেষে আল্লামা কাশ্মীরির সনদে ইউসুফ বিন্নুরী পরে শায়েখে যাত্রাবাড়ির সনদে সকল খুলাফাকে হাদিসের ইজাযত প্রদান করেন।

বৈঠক সম্পর্কে জানা যায় – সকাল ৯ টায় কালামে পাকের তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। এ সময় দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে প্রায় দুইশত প্রথিতযশা ওলামায়ে কেরাম উপস্থিত থাকেন এই জমায়েতে।

তাদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছেন বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ-এর মহাসচিব মাওলানা মাহফূজুল হক, শায়েখে যাত্রাবাড়ির অন্যতম খলিফা উবায়দুর রহমান খান নদভি, মাওলানা আনওয়ারুল হক, হুফফাজুল কোরআনের সভাপতি হাফেজ আব্দুল হক, মাওলানা নুরুল ইসলাম, মুফতি আহমাদ আলী, মাওলানা নেয়ামাতুল্লাহ আল-ফরিদী, মাওলানা আহমাদ ঈসা, মাওলানা মুনাওয়ার হুসাইন, মুফতি গোলামুর রহমান, মুফতি নুরুল আমীন, মাওলানা কাজী ফজলুল করীম রাজু, মাওলানা শওকত হোসেন সরকার, মাওলানা সাদেক আহমদ সিদ্দিকী, আওয়ার ইসলামের সম্পাদক মাওলানা হুমায়ুন আইয়ুব প্রমুখ।

হাদিসের দরসে মুহিউস সুন্নাহ আল্লামা মাহমূদুল হাসান বলেন, নবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সোহবতের মাধ্যমে ইসলাহ করেছেন। আমি যদিও এ কাজের অযোগ্য, তবুও আমি সাহাবায়ে কেরামের পরিবেশে আপনাদেরকে সরাসরি হাদিসের দরসে বসিয়ে দিয়েছি। এই হাদিসের দরসের ওসিলায় আল্লাহ আমাকেও ইসলাহ করেন, আপনাদেরও ইসলাহ করেন।

তিনি আরো বলেন, মানবজীবনে সোহবতের গুরুত্ব অত্যাধিক। সোহবত ছাড়া কোনো আল্লাহওয়ালা বুজুর্গ হওয়া সম্ভব নয়। সাহাবায়ে কেরামের কোনো উপাধী বা লকব ছিল না, তাদের পরিচয় তারা শুধু সাহাবী, নবীর সোহবতপ্রাপ্ত। আজ আপনাদেরকে হাদিসের দরসে কালা হাদ্দাসানার সনদে নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম পর্যন্ত জুড়ে দিলাম। এই ওসিলায় আল্লাহ যেন আমাদের সকলকে ইসলাহ করে দেন।

এদিকে মুহিউস সুন্নাহ শায়েখে যাত্রাবাড়ির খলিফাগণ যারপরনাই খুশি। তারা একই সাথে যুগের শ্রেষ্ঠ তাসাউফের সনদ মুজাদ্দিদে মিল্লাত আশরাফ আলী থানভী রহ. এর সনদে যুক্ত। অপর দিকে হাদিসের সনদেও তারা আল্লামা কাশ্মীরী সনদে যুক্ত হতে পেরে নিজেদেরকে ধন্য মনে করছেন।

বাদ জোহর মুহিউস সুন্নাহ আল্লামা মাহমূদুল হাসানের দিকনির্দেশনামূলক বয়ান ও আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে এই জমায়েত মজলিস শেষ হয়।

মন্তব্য করুন