জাপানে গত এক দশকে মুসলিমদের সংখ্যা বেড়ে দ্বিগুণ

প্রকাশিত: ৮:৪২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২২, ২০২১

জাপানে ক্রমে বাড়ছে ইসলাম ধর্মাবলম্বীর সংখ্যা। গত এক দশকে দেশটির মুসলিম জনসংখ্যা বেড়েছে দ্বিগুণের চেয়ে বেশি। সাম্প্রতিক সময়ে দেশটিতে মসজিদের সংখ্যাও বেড়ে গেছে কয়েকগুণ। পূর্ব এশীয় দেশগুলোর মধ্যে জাপানে সবচেয়ে দ্রুত গতিতে বিস্তার লাভ করছে ইসলাম।

এক দশক আগে দেশটির মুসলিম জনসংখ্যা ছিল ১ লাখ ১০ হাজার, যা বর্তমানে ২ লাখ ৩০ হাজারে দাঁড়িয়েছে। দ্য ইকোনমিস্টের খবরে বলা হয়েছে, জাপান সরকার দেশটিতে বিদেশি শ্রমিক ও শিক্ষার্থীদের আকৃষ্ট করতে সুযোগ-সুবিধা বাড়িয়েছে। জাপানের বৃহত্তম দ্বীপপুঞ্জের সর্ব দক্ষিণের কিউশুর মেক্কা বেপ্পুর মসজিদে প্রতি জুমাবার কয়েক হাজার মুসলিম নারী-পুরুষের জমায়েত হয়।

জাপানে পড়তে আসা বিদেশি শিক্ষার্থীরা অনেকেই রিতসুমেইকান এশিয়া প্যাসিফিক ইউনিভার্সিটিতে পড়াশোনা করেন। পাশাপাশি তারা শহরের বিভিন্ন হোটেলগুলোতে খণ্ডকালীন কাজ করে থাকেন। কেউ কেউ মাছ ধরার নৌকায় কাজ করেন এবং অন্যরা জাহাজ নির্মাণ শিল্পে কাজ করেন।

জাপানের ওয়াসেদা ইউনিভার্সিটির টানাডা হিরোফুমির এক জরিপ অনুযায়ী, গত এক দশকে ৫০ হাজারেরও বেশি মানুষ অন্য ধর্ম থেকে ইসলামে ধর্মান্তরিত হয়েছেন। জাপানে ১১০টির বেশি মসজিদ রয়েছে। এশিয়া প্যাসিফিক ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ও বিপ্পু মুসলিম সংগঠনের নেতা মোহাম্মদ তাহির আব্বাস মুসলমানদের এ পরিবর্তনে স্বাগত জানিয়েছেন।

তিনি ২০০১ সালে পাকিস্তান থেকে স্নাতকের শিক্ষার্থী হিসেবে দেশটিতে পড়তে আসেন, ওই সময়ে দেশটিতে মাত্র ২৪টি মসজিদ ছিল। সে সময় কিউশুতে কোনো মসজিদ ছিল না বলেও তিনি জানান। ধারণা করা হয়, অষ্টম শতকে চীনা মুসলিমদের সংস্পর্শে জাপানিরা সর্বপ্রথম ইসলামে দীক্ষিত হন।

মেইজি শাসনামলে (১৮৬৮-১৮৯০) জাপানিরা অটোম্যান সাম্রাজ্যের সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক স্থাপন করেন। এরপর থেকে মুসলিমরা জাপানে যাতায়াত করেন এবং জাপানিরা ইসলামের সান্নিধ্যে আসতে শুরু করেন। ১৯৩৮ সালে অটোম্যান স্থাপত্যরীতিতে নির্মিত ‘টোকিও জামি’ জাপানের অন্যতম প্রাচীন মসজিদ।

মন্তব্য করুন