নোয়াখালী এলাকাকে নারীর জন্য অনিরাপদ ঘোষণার আহবান

প্রকাশিত: ৩:০৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৯, ২০২১
বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ।

নোয়াখালীকে নারীর জন্য ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা হিসেবে চিহ্নিত করার আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ।

গতকাল এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই আহ্বান জানায় তারা।

সেই সঙ্গে নোয়াখালীতে একাধিকবার গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন এবং সেই ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় মহিলা পরিষদ গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘আমরা লক্ষ্য করছি যে সুবর্ণচর, বেগমগঞ্জ, হাতিয়াসহ নোয়াখালীর বিভিন্ন এলাকায় একই কায়দায় একের পর এক নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে। এসব ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ঘটনাও ঘটছে অব্যাহতভাবে, যা আমদের বিস্মিত ও উদ্বিগ্ন করে তুলছে।

এমন পরিস্থিতিতে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসনসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের জবাবদিহির আওতায় আনা প্রয়োজন। এ ছাড়া ওই জেলাকে নারীর জন্য ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা হিসেবে চিহ্নিত করে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘জানা যায় যে, ১ জানুয়ারি ২০২১ তারিখ নোয়াখালীর হাতিয়ার চরচানন্দি ইউনিয়নের আদর্শ গ্রামে স্বামীর অনুপস্থিতিতে ঘরে ঢুকে স্থানীয় বখাটে জিয়া ওরফে জিহাদ, ফারুখ, এনায়েত, ভুট্টো মাঝি ও ফারুক গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে সন্তানদের সামনেই তাকে বিবস্ত্র করে টেনে-হিঁছড়ে ঘরের একটি কক্ষে দরজা বন্ধ করে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করে মুঠোফোনে নারীর বিবস্ত্র ভিডিও ধারণ করে এবং গৃহবধূর ঘরের আসবাবপত্র ভাঙচুর করে। পরে বখাটেরা মোবাইলে ধারণ করা ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। গত ৪ জানুয়ারি ২০২১ তারিখ ভিকটিম হাতিয়া থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ তার মামলা গ্রহণ করেনি তিনি বাধ্য হয়ে গত ৫ জানুয়ারি ২০২১ তারিখ জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করেন।’

এতে বলা হয়, ‘আমরা লক্ষ্য করছি যে, সুবর্ণচর, বেগমগঞ্জ, হাতিয়াসহ নোয়াখালীর বিভিন্ন এলাকায় একের পর এক এ্কই কায়দায় নারীর উপর বর্বর নির্যাতন, ধর্ষণসহ সামজিক যোগযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার ঘটনা অব্যাহতভাবে ঘটে যাচ্ছে যা আমদেরকে বিষ্মিত ও উদ্বিগ্ন করে তুলছে। এই পরিস্থিতিতে সংশ্লিষ্ট জেলার প্রশাসনসহ নিবার্চিত জনপ্রতিনিধিদের জবাব দিহিতার আওতায় আনা প্রয়োজন। উক্ত জেলাকে নারীর জন্য ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা হিসেবে চিহ্নিত করে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন।’

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে সন্তানদের সামনে বিবস্ত্র করে বর্বর নির্যাতনের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করাসহ শাস্তির লক্ষ্যে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন এবং ঘটনার শিকার গৃহবধূ ও তার পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের দাবি জানিয়েছে বিবৃতিতে।

বিবৃতিতে নারীর প্রতি এ ধরনের যৌন সহিংসতা ও বর্বর নির্যাতনের ঘটনা পুনরাবৃত্তি রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়সহ প্রশাসনের নিকট জোর দাবি জানানো হয়। এছাড়া এই অবস্থা থেকে উত্তরনের লক্ষ্যে উদ্বেগজনকভাবে বেড়ে যাওয়াযৌন সহিংসতা ও ধর্ষণের বিরুদ্ধে শূন্য সহিষ্ণুতার নীতি গ্রহন সাপেক্ষে দ্রুত বিচার নিশ্চিতকরনে আশু কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহনের দাবি এবং সারাদেশে সংঘটিত নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনার বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানায় সংগঠনটি।

মন্তব্য করুন