বাবরি মসজিদের পরিবর্তে অযোধ্যায় মসজিদ নির্মান শুরু ২৬ জানুয়ারী

প্রকাশিত: ১:২৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৮, ২০২১

মুসলমানদের হৃদয়ে কুঠারাঘাত করে ভেঙ্গে ফেলা বাবরি মসজিদের পরিবর্তে অযোধ্যায় পাঁচ একর জমির উপর নির্মিত হতে যাওয়া মসজিদের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করা হবে ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস ২৬ জানুয়ারী তারিখে। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

তবে বাবরি মসজিদ স্থলে নির্মিতব্য বিতর্কিত রামমন্দির নির্মানে হিন্দুয়ানি কালচারে বিশাল ধর্মীয় আচার ও সংস্কৃতি পালন করা হলেও মসজিদ নির্মানে থাকবে না কোনো ইসলামী কালচার অনুষ্ঠান। বরং বৃক্ষরোপন ও পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে এ কার্যক্রম শুরু করা হবে বলে জানা গেছে।

আরও পড়ুন : ইতিহাসের বাঁকে প্রিয় বাবরি মসজিদ : মনে রেখো আমাদের

গতকাল রবিবার (১৭ জানুয়ারী) দীর্ঘ বৈঠকের পর এমনটাই জানিয়েছে ইন্দো-ইসলামিক কালচারাল ফাউন্ডেশন (আইআইসিএফ)। জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে সচেতনতা তৈরি করতেই এমন সিদ্ধান্ত বলে জানানো হয়েছে।

তবে অনেকেই বিষয়টিকে দেখছেন বর্তমান ভারত সরকারের মুসলিম ও ইসলামবিদ্ধেষী মনোভাবের বহিঃপ্রকাশ হিসেবে। যে জন্য মসজিদ নির্মানে যুক্ত থাকা মুসলিম সংগঠনগুলোকে অন্তর্গত চাপে রেখেছে কেন্দ্রীয় সরকার প্রধান, হিন্দুত্ববাদী নেতা নরেন্দ্র মোদি নিয়ন্ত্রিত উগ্রবাদী হিন্দু সংগঠনগুলো।

খবরে বলা হয়েছে – অযোধ্যায় বিতর্কিত রাম মন্দিরের নির্মাণস্থল থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে ধান্নিপুরে মসজিদটি তৈরি হতে চলেছে।

আরও পড়ুন :

আমাদের কোন প্রজন্ম বাবরি মসজিদের ইতিহাস ভুলবে না

গুন্ডামি করে মসজিদটা ভেঙে আদালত বলল ওখানে মন্দির হবে

মসজিদ নির্মাণকার্যের তত্ত্বাবধানে থাকা আইআইসিএফ এ নিয়ে রবিবারই একদফা বৈঠক করে। সেখানেই সর্বসম্মতিতে ২৬ জানুয়ারি মসজিদ নির্মাণের সূচনা করার সিদ্ধান্ত নেন সংগঠনের ৯ ট্রাস্টি। পরে এ নিয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে জানানো হয়, ওই দিন সকাল ৯টায় বৃক্ষরোপণের মাধ্যমে প্রকল্পের সূচনা ঘটবে। আয়কর ছাড়, বিদেশি অনুদান ইত্যাদি নিয়েও আলোচনা হয়েছে সেখানে।

ওই বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ‘এলাকায় সবুজায়ন ঘটানোই আমাদের লক্ষ্য। তার জন্য আমাজন রেইন ফরেস্ট, দাবানলে ভস্ম হয়ে যাওয়া অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন এলাকা এবং বিশ্বের নানা দেশ থেকে চারা এনে লাগানো হবে, যাতে জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়ানো যায়’।

হাসপাতাল, জাদুঘর, গ্রন্থাগার, বাগান, কমিউনিটি কিচেন, ইন্দো-ইসলামিক কালচারাল রিসার্চ সেন্টার এবং প্রকাশনী সংস্থা-সহ মসজিদ চত্বরের একটি নকশায় ইতিমধ্যেই অনুমোদন দিয়েছে অযোধ্যা জেলা প্রশাসন। মাটি পরীক্ষা করে নির্মাণকার্য শুরুর অনুমোদনের জন্য আবেদন জানানো হবে শীঘ্রই।

‘মূল মসজিদটি গোলাকৃতির হবে’ উল্লেখ করে স্থাপত্যবিদ অধ্যাপক এস এম আখতার গণমাধ্যমটিকে বলেছেন, ‘এতে একসঙ্গে দুই হাজার মুসল্লি নামাজ আদায় করতে পারবেন।’

[বাবরি মসজিদের পরিবর্তে নির্মিত হতে যাওয়া মসজিদের পূর্ণাঙ্গ নকশা।]

তিনি আরও বলেছেন, ‘নতুন মসজিদটি বাবরি মসজিদের চেয়ে বড় হলেও তা দেখতে সেই অবকাঠামোর মতো হবে না।’

মসজিদের ৩০০ বেডের হাসপাতালটিতে বিনামূল্যে চিকিত্সা দেওয়া হবে বলেও তিনি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন।

ভারতের ইন্দো-ইসলামিক কালচারাল ফাউন্ডেশনের (আইআইসিএফ) সেক্রেটারি আতহার হুসেইন গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘এছাড়াও এখানে কমিউনিটি কিচেন নির্মাণ করা হবে। সেখানে আশপাশের এলাকার গরিবদের দিনে দুই বেলা ভালোমানের খাবার দেওয়া হবে।’

পুরো মসজিদটি সৌরশক্তিচালিত হবে উল্লেখ করে তিনি আরও জানিয়েছেন, ভেতরের তাপমাত্রা বাড়ানো-কমানোর স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থা থাকবে।

ছয় মাস আগে ভারতের সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড অযোধ্যার পরিকল্পনাধীন মসজিদ নির্মাণ করতে আইআইসিএফ প্রতিষ্ঠা করে।

আইআইসিএফ সেক্রেটারি আরও বলেছেন, ‘২০২১ সালের ২৬ জানুয়ারি ট্রাস্ট সদস্যের সম্মতিতে অযোধ্যা মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হবে। সাত দশক আগে ওই দিনেই আমাদের সংবিধান কার্যকর হয়েছিল। আমাদের সংবিধান বহুত্ববাদের ওপর ভিত্তি করে প্রণীত, যা আমাদের মসজিদ প্রকল্পেরও মূল ভিত্তি।’

প্রসঙ্গত : ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর অযোধ্যার ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদ ভেঙে ফেলার প্রায় ২৭ বছর পরে ওই মামলার রায় ঘোষণা করা হয়।

২০১৯ সালের ৯ নভেম্বর ভারতের সুপ্রিম কোর্ট সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে বাবরি মসজিদ মামলার রায়ে অযোধ্যার বিতর্কিত স্থানে রামমন্দির নির্মাণের আদেশ দেন। একই সঙ্গে অযোধ্যাতেই বিকল্প কোনো স্থানে মুসলমানদের জন্য মসজিদ নির্মাণে ট্রাস্ট গঠনের নির্দেশ দেওয়া হয়।

এরপর গত বছর অগস্টে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানে অযোধ্যায় বাবরি মসজিদের স্থানে হিন্দুয়ানি বিভিন্ন রীতি-রেওয়াজের মাধ্যমে বিতর্কিত রাম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন ভারতের হিন্দুত্ববাদী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এরপর রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ ৫ লক্ষ ১০০ টাকা দেওয়ার পর দেশ জুড়ে মন্দির নির্মাণের জন্য অনুদান সংগ্রহও শুরু হয়েছে। তবে বাবরি মসজিদের পরিবর্তে নির্মিত মসজিদটির ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপনের সময় কোনো ইসলামিক কালচারাল অনুষ্ঠান হচ্ছে না বলে নিশ্চিতভাবে জানা গেছে।

ঘটনাপ্রবাহ : ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদ থেকে বিতর্কিত রামমন্দির

বাবরি মসজিদের স্থানে মন্দির নির্মান মুসলমানদের হৃদয়ে কুঠারাঘাত : ইসলামী আন্দোলন

বাবরি মসজিদের স্থানে মন্দির নির্মানের কঠোর প্রতিবাদ খেলাফত আন্দোলনের

আয়াসোফিয়ার মতো বায়তুল মুকাদ্দাস ও বাবরি মসজিদও পুনরুদ্ধার করা হবে: আল্লামা বাবুনগরী

আয়াসোফিয়ার মত বাবরি মসজিদও তার স্বরূপে ফিরে যাবে : মাসুদ আজহার

বাবরি মসজিদের স্থানে বিতর্কিত রামমন্দির স্থাপন শুরু করার আগে অমিত শাহ’সহ এক ডজন বিজেপি নেতা করোনা আক্রান্ত 

আরএসএস থেকে বিজেপি : হিন্দুত্ববাদের উত্থান ও বাংলাদেশে ইসলাম

ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদ: কিছু প্রসঙ্গ কথা

অযোধ্যায় মসজিদ নির্মাণের ৫টি জায়গা চিহ্নিত

বাবরি মসজিদ ঘটনাপ্রবাহ সম্পর্কে আরও পড়ুন

বাবরি মসজিদ : শাহাদাতের ২৬ বছর

আমরা বাবরি মসজিদ ফেরত চাই: আসাদুদ্দিন ওয়াইসি

বাবরি মসজিদ মামলার রায় : যা বললেন মাহমুদ মাদানী

বাবরী মসজিদ রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন জমিয়তে উলেমায়ে হিন্দের

বাবরি মসজিদ মামলার রায় নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কবিতা

বাবরি মসজিদ মামলার বিচারককে পুরস্কৃত করলো ভারত সরকার

বাবরি মসজিদ মামলার রায়ের বিরুদ্ধে করা সব পিটিশন খারিজ

বাবরি মসজিদ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবেন ভারতের ৪৮ বুদ্ধিজীবী

বাবরি মসজিদের রায় নিয়ে পোস্ট করায় ৩৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

বাবরি মসজিদের স্থানে মন্দির নির্মাণের রায় ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করছি : আল্লামা বাবুনগরী

বাবরি মসজিদ নিয়ে এই রায় মানবে না মুসলিম বিশ্ব: ইশা ছাত্র আন্দোলন

বাংলাদেশে হচ্ছে বাবরী মসজিদ 

বিন্যাস ও সম্পাদনা : হাছিব আর রহমান।

মন্তব্য করুন