উইঘুর মুসলিম নারীদের সঙ্গে অমানবিক আচরণের অভিযোগ ডিলিট করল টুইটার

প্রকাশিত: ৪:১৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২১

চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে উইঘুর মুসলিম সম্প্রদায়ের নারীদের সঙ্গে অমানবিক আচরণের অভিযোগ এনে চীনা দূতাবাসের দেওয়া একটি পোস্ট ডিলিট করেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার।

‘উইঘুর নারীদের সন্তান জন্মদানের মেশিন হিসেবে ব্যবহার করা যাবে না।’ সম্প্রতি এমন কথা বলেছে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত চীনা দূতাবাস। এ ধরনের মন্তব্যকে অমানবিক আচরণ অভিহিত করে শনিবার (৯ জানুয়ারি) চীনা দূতাবাসের টুইট ব্লক করে টুইটার কর্তৃপক্ষ। খবর বিবিসি নিউজের।

মাধ্যমটির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, পর্যালোচনার পর দেখা গেছে চীনা কর্তৃপক্ষ ধর্ম-বর্ণ বা বর্ণের ভিত্তিতে এ ধরনের অমানবিক নিষেধাজ্ঞার ব্যবস্থা নিয়েছে যা আমাদের নীতিমালার বরখেলাপ।

অবশ্য পরে টুইটে দেওয়া বিবৃতি মুছে ফেলে চীনা দূতাবাস। ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, চরমপন্থা নির্মূলের অংশ হিসাবে উইঘুর নারীদের লিঙ্গ সাম্যতা বজায় রাখতে ও তাদের প্রজনন স্বাস্থ্য উন্নতির জন্যে ঘন ঘন সন্তান জন্ম দেওয়া বন্ধ করতে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। যা তাদের আরও আত্মবিশ্বাসী করে তুলবে।

আই.এ/

মন্তব্য করুন