বেলজিয়ামে কোরআন অবমাননা; ৫ ডেনিশ নাগরিক বহিষ্কার

প্রকাশিত: ৩:৪৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৩, ২০২০

পবিত্র কোরআন শরিফ পোড়ানোর পরিকল্পনা করায় ডেনমার্কের পাঁচ নাগরিককে বহিষ্কার করেছে বেলজিয়াম। দেশটির রাজনৈতিক আশ্রয় বিষয়ক মন্ত্রী স্যামি মাহদি ড্যানিশদের এ কাণ্ডকে জননিরাপত্তার জন্য মারাত্মক হুমকি বলে অভিহিত করেছেন। খবর বিবিসির।

বেলজিয়ামের রাজনৈতিক আশ্রয় বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ফেসবুক পেজ সূত্রে জানা গেছে, বহিষ্কার হওয়া পাঁচ ড্যানিশ নাগরিক উগ্র-ডানপন্থী রাজনীতিবিদ রাসমুস পালুদানের অনুসারী।

পালদুন নিজেই প্যারিসে জনসম্মুখে কোরআন পোড়ানোর ঘোষণা দেওয়ায় গত বুধবার ফ্রান্স থেকে বহিষ্কৃত হয়েছেন। এছাড়া, চলতি বছরের শুরুর দিকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইসলামবিরোধী পোস্ট দেওয়ায় ডেনমার্কে একমাসের জেল হয়েছিল তার।

সম্প্রতি বেলজিয়াম পুলিশ খবর পায়, সন্দেহভাজন পাঁচজন ব্রাসেলসের মলেনবিক-সেইন্ট-জ্যঁ জেলায় কোরআন শরিফ পোড়ানোর পরিকল্পনা করছেন। ওই এলাকায় বিপুল সংখ্যক মরোক্কান মুসলিম বসবাস করেন।

সূত্রের বরাতে বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, অভিযুক্ত পাঁচ ড্যানিশ নাগরিককে জিজ্ঞাসাবাদ করে বেলজিয়ান পুলিশ এবং পরে মামলাটি সরকারি কৌঁসুলীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়।

বেলজিয়ামের মন্ত্রী স্যামি মাহদি নিজেও একটি ইরাকি শরণার্থী পরিবারের সন্তান। তিনি অভিযুক্ত ড্যানিশদের গ্রেপ্তার এবং বহিষ্কারকে স্বাগত জানিয়েছেন।

মাহদি বলেন, তাদের দ্রুততম সময়ের মধ্যে দেশ ছাড়তে বলা হয়েছিল, যা তারা করেছেন। তাদের রাজনৈতিক আশ্রয় বাতিল করা হয়েছে, কারণ এসব ব্যক্তি বেলজিয়ামের জননিরাপত্তার জন্য মারাত্মক হুমকি তৈরি করেছিলেন।

গত ৩০ অক্টোবর ডেনমার্কের উগ্র-ডানপন্থী দল স্ট্রাম কুর্স (হার্ড লাইন) পার্টির প্রধান রাসমুস পালুদান ফেসবুকের এক পোস্টে জানান, তিনি কোপেনহেগেনের ফরাসি কনস্যুলেটকে বলেছেন, ১১ নভেম্বর প্যারিসের আর্ক দে ট্রায়োম্ফে কোরআন শরিফ পোড়াবেন।

বেলজিয়ান মন্ত্রী স্যামি মাহদি বলেন, আমাদের সমাজ এমনিতেই অনেক বেশি মেরুকরণের শিকার। আমাদের এমন লোকের প্রয়োজন নেই যে ঘৃণা ছড়াতে এসেছে।

গত আগস্টে সুইডেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় মালমো শহরে মুসলিমদের জন্য মহাপবিত্র কোরআন শরিফ পুড়িয়ে দেয় পালুদানের সমর্থকরা। এর প্রতিবাদে সেখানে ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হয় এবং পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

আই.এ/

মন্তব্য করুন