গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে বেলুন বিক্রেতা নিহত, আহত ২ শিশু

প্রকাশিত: ৯:২২ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ৩১, ২০২০

শরীয়তপুরে বেলুন ফুলানো গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে বেলুন বিক্রেতা নিহত ও তার ছেলেসহ ২ শিশু আহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে নিহত সায়েদ বেপারীর খণ্ডবিখণ্ড লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) রাতে শরীয়তপুর সদর উপজেলার ডোমসার ইউনিয়নের ডোমসার জগৎচন্দ্র ইন্সটিটিউশন স্কুল এন্ড কলেজ এর কাছে নদীর পাড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহত শিশু দুটিকে প্রথমে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে একজনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়।

নিহত সায়েদ ব্যাপারী (৩০) উপজেলার চিতলিয়া ইউনিয়নের দড়ি হাওলাদার নয়াকান্দি গ্রামের বাসিন্দা। তিনি দীর্ঘ ১৫ বছর যাবৎ ভ্যানে করে শরীয়তপুরের বিভিন্ন এলাকায় অনুষ্ঠিত মেলা, খেলা ও হাটে গিয়ে খেলনা সামগ্রী ও গ্যাসবেলুন বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করতেন।

শুক্রবার স্থানীয়ভাবে ডোমসার জগৎচন্দ্র ইনস্টিটিউসন স্কুল এন্ড কলেজ অনুষ্ঠিত ফুটবল টুর্নামেন্টের চূড়ান্ত খেলা অনুষ্ঠিত হয়। তিনি খেলার মাঠের পাশে নদীর পাড়ে তার ১১ বছরের ছেলে জাহিদকে সাথে নিয়ে খেলনা ও গ্যাসবেলুন বিক্রির দোকান খুলে বেলুনে গ্যাস ঢোকানোর কাজ শুরু করেন। এ সময় হঠাৎ করেই বিকট শব্দে গ্যাসের সিলিন্ডারটি বিস্ফোরণ হলে সায়েদ বেপারীর শরীর খণ্ডবিখণ্ড হয়ে সিলিন্ডারের বিস্ফোরিত অংশের সাথে উড়ে গিয়ে বিভিন্ন স্থানে পড়ে। তার হাত ও মাথার খুলি দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

এ সময় আগুনে ঝলসে আহত হয় সায়েদ বেপারীর ছেলে জাহিদ ও বেলুন কিনতে আসা সিয়াম মাদবর নামের ৪/৫ বছরের আরেক শিশু। জাহিদ চিতলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র। স্কুল বন্ধ থাকায় বাবার ব্যবসায় সহায়তা করে আসছিল এই শিশুটি।

পালং মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সায়েদ বেপারীর খণ্ডবিখণ্ড লাশ উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে। এদিকে, আহত শিশু সিয়ামের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য রাতেই ঢাকা মেডিকেলে পাঠিয়েছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। আর জাহিদকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

রাতে জাহিদকে দেখতে হাসপাতালে আসেন জেলা প্রশাসক পারভেজ আহমেদ। তিনি সরকারীভাবে লাশ দাফন ও শিশুদের চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহায়তার প্রতিশ্রুতি দেন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে।

ওয়াইপি/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন