আমার মতো ভুল যেন কেউ না করে : সাকিব

প্রকাশিত: ১০:৩২ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৯, ২০২০

বাংলাদেশের ক্রিকেটকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আরও উজ্জ্বল করার চেষ্টা করব। নিজের যতটা সম্ভব সেরা খেলাটা উপহার দিয়ে যাব।’ সাকিব আল হাসান বলেন, ‘আমার মতো ভুল যেন কেউ না করে।’

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল আইসিসির নিষেধাজ্ঞা থেকে এখন মুক্ত বাংলাদেশের বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। চাইলেই ইচ্ছা মতো এখন ঢু মারতে পারবেন মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে। সবুজ গালিচায় আঁচর দিতে পারবেন ব্যাট-বলের নিপুণতায়। আন্তর্জাতিক কী ঘরোয়া, বৃহস্পতিবার থেকে সব টুর্নামেন্ট খেলতে তার কোনো বাধা নেই।

মাঠে ফিরতে দেরি হবে কিছুদিন। সাকিব এখন অবস্থান করছেন স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে সুদূর আমেরিকায়। সেখান থেকে নভেম্বরের শুরুতে ফিরবেন দেশে। আগামী মাসের মাঝামাঝি সময়ে অনুষ্ঠেয় ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট দিয়ে নতুন মিশনে নামতে পারবেন সাকিব।

অবশ্য সাকিবের ক্রিকেটে ফেরার উপলক্ষ রাঙিয়ে রাখতে নিউইয়র্ক সময় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় একটি শুভেচ্ছা বিনিময় সমাবেশ আয়োজন করে ‘শোটাইম মিউজিক।’সেখানেই আলাপচারিতায় সাকিব শুনিয়েছেন তার নিষেধাজ্ঞার দিনগুলির কথা। মাঠে ফেরার পর নিজেকে উজার করে দিতে প্রস্তুত সাকিব। তবে বোধ থেকে আবারও একটি কথা বললেন, আমার মত ভুল যেন কেউ না করে।

ফিক্সিং না করেও শাস্তি পেয়েছেন সাকিব। আর সেটা ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়েও তা আইসিসিকে না জানানোর কারণে। সাকিবের কণ্ঠে তাই আর্তি, ‘আমার মতো ভুল যেন কেউ না করে।’

নিষেধাজ্ঞার সময়গুলো কেমন ছিল? সাকিব বলেন, ‘পরিবারকে সময় দিয়েছি। আপনারা জানেন, প্রথম সন্তানকে সময় দিতে পারিনি। দ্বিতীয় সন্তান সেটা পেয়েছে। বেবি সিটিং করেছি আর অবশ্যই ক্রিকেটকে মিস করেছি।’

ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়েও আকসুকে না জানানোয় গত বছরের ২৯ অক্টোবর সাকিবকে নিষিদ্ধ করে আইসিসি। মূল শাস্তি ছিল দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা, তবে এক বছরের নিষেধাজ্ঞা ছিল স্থগিত।

নিষিদ্ধ হওয়ার পর কয়েক মাস দেশেই ছিলেন সাকিব। এরপর শুরু হয় করোনার আগ্রাসন। সাকিব চলে যান যুক্তরাষ্ট্রে স্ত্রী-সন্তানের কাছে। তার দ্বিতীয় সন্তান পৃথিবীর আলো দেখে গত এপ্রিলে। তাদের সঙ্গে সাড়ে ৫ মাস কাটিয়ে তিনি দেশে ফেরেন গত ২ সেপ্টেম্বর। শুরু হয় মাঠে ফেরার প্রস্তুতি পর্ব। বিকেএসপিতে চলে সাকিবের একাকী অনুশীলন।

এনএইচ/

মন্তব্য করুন