রসুল স. নিয়ে ফ্রান্সের ধৃষ্টতার প্রতিবাদে ২৯ অক্টোবর বিক্ষোভ মিছিল

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ কর্তৃক আহুত

প্রকাশিত: ৫:২১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৪, ২০২০

ফ্রান্সের বিতর্কিত ও উগ্র পত্রিকা শার্লি হেবদোতে প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ মোস্তফা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের নামে ব্যঙ্গ-বিদ্রুপাত্মক কার্টুন প্রকাশের নামে ধৃষ্টতার প্রতিবাদে ঢাকায় আগামী ২৯ অক্টোবর বিক্ষোভ মিছিলের ডাক দিয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ।

একই সাথে ফ্রান্সে রাসূল সা. এর ব্যঙ্গ কার্টুন প্রকাশের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, ফ্রান্সে রাসূল সা. এর অবমাননার প্রতিবাদে সরকারকে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিবাদ জানাতে হবে।

আজ শনিবার সকাল ১০টা থেকে পুরানা পল্টনস্থ দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মজলিসে আমেলার সভার বরাতে সংগঠনের প্রচার সম্পাদক আহমদ আবদুল কাইয়ুম এসব কথা জানান।

আমেলার সভায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন উর্ধ্বগতিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন উর্ধ্বগতির কারণে জনজীবন চরম দুর্বিষহ হয়ে উঠছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম যেভাবে পাগলা ঘোড়ার মতো লাগামহীনভাবে ছুটে চলছে, তা সরকার নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। সিন্ডিকেট ভেঙ্গে দিয়ে বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে না পারায় জনগণ কষ্টে দিনাতিপাত করছে।

সভায় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম শায়খে চরমোনাই ও মাওলানা আব্দুল হক আজাদ, মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য আল্লামা নূরুল হুদা ফয়েজী ও আলহাজ্ব খন্দকার গোলাম মাওলা, অধ্যাপক আশরাফ আলী আকন, অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান ও মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, মাওলানা আব্দুল কাদের ও আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম, প্রকৌশলী আশরাফুল আলম, কেএম আতিকুর রহমান, মাওলানা আহমাদ আবদুল কাইয়ূুম, মাওলানা দেলাওয়ার হোসেন সাকী, মাওলানা লোকমান হোসেন জাফরী, আলহাজ্ব হারুন অর রশিদ, আলহাজ্ব মনির হোসেন, মুফতী নূরুল করীম, মাওলানা মুহাম্মদ নেছার উদ্দিন, এড. লুৎফর রহমান, এড. শওকত আলী হাওলাদার, মুফতী হেমায়েতুল্লাহ, শায়খুল হাদীস মাওলানা মকবুল হোসাইন, আলহাজ্ব আব্দুর রহমান, মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ, ইঞ্জিনিয়ার শরীফুল ইসলাম, জিএম রুহুল আমিন, বরকত উল্লাহ লতিফ, মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম সৈয়দ বেলায়েত হোসেন, মাওলানা কেফায়েতুল্লহ কাশফী, এড. একেএম এরফান খান, মাওলানা খলিলুর রহমান প্রমুখ।

পীল সাহেব বলেন, ধর্ষণের মৃত্যুদন্ড আইন পাসের পর সারাদেশে সীমাহীনভাবে ধর্ষণ বেড়ে চলছে। আইনের কোন প্রতিফলন না থাকায় ধর্ষণ নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে। তিনি বলেন, আইন করার চেয়ে প্রয়োগ করা জরুরী। আইনের প্রয়োগ না থাকায় ধর্ষণ বন্ধ করা যাচ্ছে না। তিনি যেনা-ব্যভিচার, নারী ধর্ষণ, নির্যাতন বন্ধে শরীয়াহ আইনে বিচার করার আহবান জানান। এবং ধর্ষণের উৎসগুলো বন্ধ করার দাবি জানান।

মন্তব্য করুন