সবচেয়ে বেশি নির্যাতিত, লাঞ্চিত ও বঞ্চিত জাতির নাম হল মুসলমান

প্রকাশিত: ৮:৪৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২০

বাংলাদেশ মণিপুরি মুসলিম কওমি মাদ্রাসা ছাত্র সেবা ফাউন্ডেশন আয়োজনে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় আদমপুর ইউনিয়নের কান্দিগাঁও দারুস সালাম ইসলামিয়া মাদারাসায় শনিবার (১৭ অক্টোবর) আল্লামা আহমদ শফী রহ. আল্লামা খলিলুর রহমান রহ. ও মণিপুরী মুসলিম উলামায়ে আকাবীরদের জীবন ও কর্ম শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সভায় বক্তারা বলেন, দুনিয়াতে ২০০ কোটির বেশির মুসলমান রয়েছে, সংখ্যার দিক থেকে কম নাই, সম্পদের দিক থেকে কম নাই, ক্ষমতার দিক কম নাই, তবে সবচেয়ে বেশি নির্যাতিত লাঞ্চিত, বঞ্চিত একটি জাতির নাম হচ্ছে মুসলমান। এর একমাত্র কারণ ঈমান আর আমলের অভাব৷ সেই ও চাহিদা পূরণের জন্য কোরআন ও হাদীসের সঠিক শিক্ষা ও দীক্ষা প্রদান করা হয় এবং মানবতা, সভ্যতা, নৈতিকতা ও আধ্যাত্মিকতার শিক্ষা প্রদান করে নীতিবান দেশপ্রেমিক, আল্লাহওয়ালা আলোকিত মানুষ তৈরি করা হয় সেসব প্রতিষ্ঠানকেই বলা হয় কওমী মাদ্রাসা। কওমী মাদ্রাসা হলো আদর মানুষ গড়ার কারখানা।

বক্তারা আরও বলেন, আল্লামা শাহ আহমদ শফী রহ. তার বর্ণাঢ্য জীবনে উম্মাহ’র বহুমুখী খেদমত আঞ্জাম দিয়েছেন। বিশ্বনবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ইজ্জত রক্ষায় ঐতিহাসিক হেফাজত আন্দোলনে তাঁর বলিষ্ঠ নেতৃত্ব ও ভূমিকা ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লিখা থাকবে। শায়খুল ইসলামের চলে যাওয়ার মধ্য দিয়ে উম্মাহ এক অপূরণীয় ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে। যেখান থেকে উঠে আসতে হলে শায়খুল ইসলামের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে কাজ করা ছাড়া বিকল্প নেই। ইসলামী শিক্ষাঙ্গণে তিনি ছিলেন আলোকবর্তিকা, এবং অকতোভয় আপোষহীন নেতা।

আল্লামা আহমদ শফী, আল্লামা খলিলুর রহমান রহ. ও মণিপুরি মুসলিম উলামায়ে আকাবীরদের এবং দেশ-জাতির কল্যান কামনা করে দোয়া করা হয়।

আলোচনা সভা আরও বক্তব্য রাখেন, মাওঃ নুরুল মুত্তাকিন জুনায়েদ সাহেব দাঃবাঃ, আলহাজ্ব মাওঃ কামরুজ্জান সাহেব, মাওঃ আব্দুল আজিজ সাহেব মাওঃ মুসলিমুর রহমান সাহেব, মাওঃ জহিরুল হক সাহেব, মাওঃ হোসাইন আহমদ খালেদ সাহেব, মাওঃ আতিকুর রহমান আজিজী সাহেব, ডাঃ কায়াম উদ্দিন, জনাব মোঃ ফায়াজ উদ্দিন, জনাব মজর আলী, হাজী মোঃ আব্দুস সামাদ সহ প্রমুখ।

আই.এ/

মন্তব্য করুন