পুলিশের বাধায় নোয়াখালীতে ইশা ছাত্র আন্দোলনের বিক্ষোভ পন্ড

প্রকাশিত: ৪:৩৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৫, ২০২০

এম.এস আরমান, নোয়াখালী প্রতিনিধি: নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের প্রতিবাদে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের বিক্ষোভ মিছিল পুলিশের বাধায় পন্ড হয়েছে।

সোমবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে বসুরহাট বাজারের রেজেস্ট্রি মসজিদ প্রাঙ্গন থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে জিরোপয়েন্ট, রুপালি চত্বর ও বসুরহাট কেন্দ্রীয় মসজিদ মোড় হয়ে ইসলামী ব্যাংকের সামনে পৌঁছলে পুলিশ মিছিল করতে বাধা দেয়।

এসময় ইশা ছাত্রের জেলা প্রচার সম্পাদক আরিফুল ইসলাম, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা সভাপতি হাফেজ ওলি উল্যাহ সহ ৪ জনকে কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করে। পরে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

এবিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমান বলেন, আমরা ধর্ষণ কারীর পক্ষে নই, বিক্ষোভ মিছিল করবে ভালো কথা কিন্তু প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া এতো বড় কর্মসূচি পালন করা তাদের উচিৎ হয়নি। সে কারণে মিছিল বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছি।

প্রসঙ্গত, সোমবার রাত ১টার দিকে নির্যাতিতা গৃহবধূ বাদী হয়ে নয়জনের নাম উল্লেখ করে মামলা হয়েছে থানায়। ওই মামলার প্রধান আসামিসহ দুইজনকে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব; নোয়াখালীর পুলিশ আরও দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে বলে জেলার পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বেগমগঞ্জের একলাশপুর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডে এক নারী দাম্পত্য কলহের জেরে কয়েক মাস বাবার বাড়িতে অবস্থান করছিলেন।

এই সুযোগে স্থানীয় যুবক আব্দুর রহিমসহ কয়েকজন তাকে নানাভাবে উত্ত্যক্ত করে এবং অশালীন প্রস্তাব দেয়। এতে রাজি না হওয়ায় গত ২ সেপ্টেম্বর রাতে তারা ঘরে প্রবেশ করেওই নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন চালায় পাষণ্ডরা।

গেলো রোববার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে দেখা যায়, বসত ঘরে ঢুকে ওই নারীকে ৩-৪ জন যুবক বিবস্ত্র করে মারধর করছে। একজন ওই নারীর মুখে পা দিয়ে চেপে ধরে। বারবার আকুতি করার পরও নির্যাতন করা বন্ধ করেনি কেউ।

নির্যাতিতার বাবা সাংবাদিকদের বলেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িতরা প্রভাবশালী হওয়ায় ভয়ে তাদের বিরুদ্ধে মুখ খোলার সাহস করেননি তারা। তিনি এর সুষ্ঠু বিচার চান।

আই.এ/

মন্তব্য করুন