আল্লাহ আহমদ শফী (রহ.)-এর শূণ্যতা অতি দ্রুত  পূরণ করে দিক : আল্লামা তাকি উসমানী

প্রকাশিত: ২:০১ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০

বাংলাদেশের অবিসংবাদিত মুসলিম নেতা আল্লামা শাহ আহমদ শফী রহিমাহুল্লাহু তায়ালার ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বিশ্ববরেণ্য আলেম পাকিস্তানের আল্লামা তাকি উসমানী বলেছেন –

“আল্লামা শফী রাহিমাহুল্লাহুর ছায়া থেকে বঞ্চিত হওয়া উম্মাহর জন্য অপূরণীয় ক্ষতির বিষয়। আল্লাহ তায়ালা আল্লামা শফীর শুণ্যতা অতি-দ্রুত যেন পুরণ করে দেন এই দোয়া করি।”

বাংলাদেশ থেকে আল্লামা তাকি উসমানীর সাথে বিভিন্ন বিষয়ে নিয়মিত যোগাযোগ রাখা শায়খ জাকারিয়া ইসলামিক রিসার্স সেন্টারের পরিচালক মাওলানা মিজানুর রহমান সাঈদ কর্তৃক দুবাই থেকে প্রেরিত মৃত্যুসংবাদের জবাবে তিনি শোক প্রকাশ করে এসব কথা বলেন।

  • পাবলিক ভয়েসের পাঠকদের জন্য মাওলানা মিজানুর রহমান সাঈদের প্রেরিত মৃত্যুসংবাদটি ও আল্লামা তাকি উসমানী প্রেরিত শোকবার্তাটি হুবহু অনুবাদ করে প্রকাশ করা হলো।

মাওলানা মিজানুর রহমান সাঈদ : হযরত – আমি মিজানুর রহমান সাঈদ বলছি। আমি এখন দুবাইতে অবস্থান করছি। খরব পেয়েছি – আমাদের শায়খ ও মুরুব্বি আল্লামা শাহ্ আহমদ শফী সাহেব ইন্তেকাল করেছেন। শুক্রবার জুমার দিন। সন্ধ্যা ৬ টার দিকে। উনার জন্য আপনার কাছে দোয়ার আবেদন।

আপনি জেনে থাকবেন – দ্বীন ইসলাম ও ওলামায়ে কেরামদের প্রতি আল্লামা শফী সাহেবের অনেক বড় অবদান রয়েছে। আল্লামা শফী রাহিমাহুল্লাহর মাগফিরাতের জন্য এবং উচ্চ মর্যাদার জন্য আপনার কাছে দোয়ার আবেদন রইলো।

আল্লামা তাকি উসমানী : মাওলানা মিজানুর সাহেব – এই দুঃখ ভরাক্রান্ত সংবাদটি তৎক্ষনাতই আমি পেয়েছিলাম। মাওলানা আহমদ শফী রহমাতুল্লাহি আলাইহীর ইন্তেকালের সাথে সাথেই সংবাদটি আমি পেয়েছি।

সংবাদটি শুনে আমি অত্যন্ত শোকাহত হয়েছি। এমন একজন ব্যক্তিত্বের ছায়া থেকে বঞ্চিত হওয়া উম্মাহর জন্য অনেক বড় ক্ষতির বিষয়। (ইন্না লিল্লাহী ওয়া ইন্না ইলাইহী রাজিয়ুন)। আল্লাহ তায়ালা নিজ অনুগ্রহ ও দয়ায় উনার মর্যাদা অনেক বৃদ্ধি করে দিক। এবং উনার মাগফিরাতের ব্যবস্থা করুক। একই সাথে উনার সাথে সম্পর্কিত সকলকেই আল্লাহ তায়ালা ধৈর্য ধারণের তওফিক দান করুক।

  • আমি আমার শোকবার্তা পাঠিয়েছি এবং আশা করি উনার সন্তানদের কাছে সেটি পৌঁছে গিয়েছে। আল্লাহ তায়ালা আল্লামা শফীর শুণ্যতা অতি-দ্রুত যেন পুরণ করে দেন এই দোয়া করি।

প্রসঙ্গত : আধুনিকোত্তর এই বাংলাদেশের সর্বপ্রভাবের আলেম আল্লামা শাহ্ আহমদ শফী গত পরশু শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৬ টা ২০ মিনিটে রাজধানী ঢাকার একটি প্রাইভেট হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন।

তার ইন্তেকালে শোকে মূহ্যমান হয়ে পড়ে মুসলমানরা। বাংলাদেশের গন্ডি পেরিয়ে বহির্বিশ্বের মুসলমানরাও তার জন্য চোখের পানি ঝড়ায়। তার মৃত্যুর জানাযা নামাজ বাংলাদেশে এক অভূতপূর্ব ইতিহাস তৈরি করে।

১৯ সেপ্টেম্বর শনিবার হাটহাজারী মাদরাসা মাঠে দুপুর ২ টায় অনুষ্ঠিত এই জানাযায় স্মরণকালের সর্ববৃহত গণজমায়েতের সৃষ্টি হয়। বাংলাদেশের সকল প্রান্ত থেকে বাধভাঙ্গা জোয়ারের মত মানুষ জমা হতে থাকে চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে। বেলা গড়িয়ে দুপুর হতে হতে লোকে লোকারণ্য হয়ে যায় হাটহাজারী মাদরাসার চতুর্প্বার্শের প্রায় ১৫ কিলোমিটার এলাকা।

স্মরণকালের সর্বৃবৃহত এই জানাযার মাধ্যমে বিদায় দেওয়া হয় বাংলাদেশের ধর্মীয় অঙ্গনের এই মুকুটহীন সম্রাটকে।

মন্তব্য করুন