হেফাজতে ইসলামের আমীর নির্ধারণ হবে কাউন্সিলের মাধ্যমে: বাবুনগরী

প্রকাশিত: ৩:০৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২০

ইসমাঈল আযহার
পাবলিক ভয়েস

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীর, দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসার মুহতামিম, বাংলাদেশের সর্বপ্রবীণ ও সর্বজনশ্রদ্ধেয় আলেম আল্লামা শাহ আহমদ শফী রহ.-এর জানাজা আজ শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) যোহরের নামাজের পর (দুপুর ২ টায়)  জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জানাজার নামাজের ইমামতি করেছেন হুজুরের বড় ছেলে মাওলানা মুফতি মো. ইউসুফ।

জানাজা আদায়ের আগে দেশবরেণ্য উলামায়ে কেরাম বক্তব্য দিয়েছেন। আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী তার বক্তেব্যে বলেন, হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীন নির্ধারণ হবে কাউন্সিলের মাধ্যমে এবং হাটহাজারী মাদ্রাসার মুহতামিম নিযুক্ত করা হবে শুরার বৈঠকের মাধ্যমে। এসময় আল্লামা শাহ আহমদ শফী রহ. এর অসমাপ্ত কাজগুলো পরিপূর্ণ করবেন বলেও জানান তিনি।

জানাজার নামাজে উপস্থিত ছিলেন, যাত্রবাড়ী মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা মাহমুদুল হাসান, নানুপুর মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা সালাহউদ্দীন নানুপুরী, আল-হাইআতুল উলয়া বাংলাদেশ এর অধীন বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ এর সহসভাপতি হযরত মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী, হযরত মাওলানা মুফতী মো: ওয়াক্কাস, হযরত মাওলানা মুহাম্মাদ নূরুল ইসলাম, হযরত মাওলানা আব্দুল হামীদ, হযরত মাওলানা সাজিদুর রহমান, হযরত মাওলানা মুফতী ফয়জুল্লাহ, হযরত মাওলানা মুছলিহুদ্দীন রাজু, হযরত মাওলানা মাহমুদুল হাসান, হযরত মাওলানা মুফতী জসীমুদ্দীন, হযরত মাওলানা আনাস মাদানী, হযরত মাওলানা আব্দুর রহমান হাফেজ্জী, হযরত মাওলানা মাহফুজুল হক, হযরত মাওলানা মুফতী নূরুল আমীন, হযরত মাওলানা উবায়দুর রহমান মাহবুব, হযরত মাওলানা মোস্তাক আহমদ, হযরত মাওলানা নূরুল হুদা ফয়েজী, হযরত মাওলানা বাহাউদ্দীন যাকারিয়া।

শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় রাজধানীর আজগর আলী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন আল্লামা শাহ আহমদ শফী। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ১০৫ বছর। অনুসারীদের কাছে তিনি ‘বড় হুজুর’ নামে পরিচিত ছিলেন।

দেশের মাদ্রাসা শিক্ষার ইতিহাসের অন্যতম এক নাম আল্লামা শাহ আহমদ শফী। কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিসের সনদকে এম এ সমমানের মর্যাদা আদায়ে তিনি ছিলেন প্রধান অগ্রপথিক। বিশ্বের আনাচে-কানাচে আল্লামা আহমদ শফীর ছাত্র, শিষ্য, মুরিদ, ভক্ত ও অনুসারী রয়েছে।

আল্লামা শফী পাঁচ সন্তানের জনক। দুই ছেলে তিন মেয়ে। বড় ছেলে মাওলানা ইউসুফ, ছোট ছেলে মাওলানা আনাস মাদানি।

আল্লামা শফী আল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলামে শিক্ষকতার মাধ্যমে কর্মজীবন শুরু করেন। ২০১০ সালে হেফাজতে ইসলাম নামে একটি ধর্মীয় সংগঠন প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৮৬ সালে হাটহাজারী মাদ্রাসার মহাপরিচালক পদে যোগ দেন আহমদ শফী। এরপর থেকে টানা ৩৪ বছর ধরে তিনি ওই পদে ছিলেন।

লেখালেখিতেও রয়েছে তার রয়েছে বিশেষ অবদান। বাংলা ও উর্দু ভাষায় তার রচিত গ্রন্থের সংখ্যা ২৫টি।

তার লেখা বইয়ের মধ্যে রয়েছে; বাংলা ভাষায়- হক ও বাতিলের চিরন্তন দ্বন্দ্ব, ইসলামী অর্থ ব্যবস্থা, ইসলাম ও রাজনীতি, সত্যের দিকে করুন আহ্বান, সুন্নাত ও বিদ-আতের সঠিক পরিচয় এবং উর্দু ভাষায়- ফয়জুল জারি (বুখারির ব্যাখ্যা), আল-বায়ানুল ফাসিল বাইয়ানুল হক ওয়াল বাতিল, ইসলাম ও ছিয়াছাত এবং ইজহারে হাকিকাত।

আই.এ/

মন্তব্য করুন