মাদ্রাসার কবরস্থানে শায়িত হবেন আল্লামা শাহ আহমদ শফী

প্রকাশিত: ১০:৫৪ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২০

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীর, দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসার মুহতামিম, বাংলাদেশের সর্বপ্রবীণ ও সর্বজনশ্রদ্ধেয় আলেম আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে মাদ্রাসার কবরস্থানে দাফন করা হবে। হুজুরের কবর খোঁড়ার কাজ চলছে।

আজ শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বাদ যোহর (দুপুর ২ টায়) দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে। জানাজার নামাজ পড়াবেন আল্লামা শফীর বড় ছেলে মুফতী মো. ইউসুফ। হাটহাজারী থেকে পাবলিক ভয়েসের বিশেষ সংবাদদাতা এখবর জানিয়েছে।

তিনি শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৬ টার সময় ঢাকা আজগর আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন।

হেফাজত আমির আল্লামা আহমদ শফীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শুক্রবার আলাদা আলাদা বার্তায় গভীর শোক জানিয়েছেন। এ ছাড়াও শোক প্রকাশ করেছেন দেশের শীর্ষস্থানীয় আলেমরা ও বিভিন্ন সংগঠনের অনেক নেতারা।

গত বৃহস্পতিবার তিনি সেচ্ছায় পদত্যাগের পরে হাটহাজারী মাদ্রাসার পরিচালনা পর্ষদ (মজলিসে শুরা কমিটি) তাকে মহাপরিচালক পদ থেকে অব্যাহতি দিয়ে মাদ্রাসার উপদেষ্টা (সদরে মুহতামিম) হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন।

ওই দিনই ছাত্র বিক্ষোভের মুখে অবরুদ্ধ অবস্থায় অসুস্থ হয়ে পড়েন আল্লামা শাহ আহমদ শফী। মাদ্রাসার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেয়ার পর বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে চট্টগ্রাম হাসপাতালে নেয়া হয়।

শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের আইসিইউতে থাকা আল্লামা শফীকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে শুক্রবার সন্ধ্যার আগে ঢাকায় এনে আজগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানেই তিনি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

প্রায় শতবর্ষী আল্লামা আহমদ শফী দীর্ঘদিন যাবৎ তিনি বার্ধক্যজনিত দুর্বলতার পাশাপাশি ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন।

ইসমাঈল আযহার/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন