আল্লামা শফীর অবস্থা সংকাটাপন্ন : এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকা আনা হচ্ছে

প্রকাশিত: ৫:৪৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২০

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির, বাংলাদেশের সর্বজন শ্রদ্ধেয় প্রবীন আলেম আল্লামা শাহ আহমদ শফীর শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন।

আজ শুক্রবার দুপুরে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে এয়ার অ্যাম্বুল্যান্সে করে তাঁকে ঢাকায় নেওয়ার পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা।

বিকেল ৪টায় আল্লামা শফীকে এয়ার অ্যাম্বুল্যান্সে করে ঢাকায় আনা হয়েছে। ঢাকায় আজগর আলী হাসপাতালে তার উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা হবে বলেও জানা গেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে তাঁকে অ্যাম্বুল্যান্সে করে হাটহাজারী মাদরাসা থেকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে হাসপাতালের তৃতীয় তলার ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটের (আইসিইউ) ৮ নম্বর বেডে ভর্তি করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. আফতাবুল ইসলাম জানান, শফি হুজুর হৃদরোগসহ বার্ধক্যজনিত নানা জটিল রোগে ভুগছেন। তাঁর চিকিৎসায় মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে চমেক হাসপাতালের এক চিকিৎসক বলেন, আল্লামা শফীর অবস্থা সংকটাপন্ন। বৃহস্পতিবার হার্টে মারাত্মক সমস্যা দেখা দেয়। একই সঙ্গে ফুসফুসে পানি জমেছে। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য দ্রুত ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

১০৫ বছর বয়সী এ প্রবীণ আলেম ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপসহ বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছেন। ফলে প্রায়ই ওনাকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়। গত কয়েক মাসে শরীরে নানা জটিলতা দেখা দিলে একাধিকবার চট্টগ্রাম ও ঢাকার হাসপাতালে কয়েক দিন চিকিৎসা নিতে হয় বড় হুজুরখ্যাত আল্লামা শফীকে।

এর আগে গত বুধবার থেকে আল্লামা শফী পরিচালিত বাংলাদেশের সর্ববৃহত কওমী মাদরাসা চট্টগ্রামের দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসার ছাত্ররা বিভিন্ন দাবিতে আন্দোলনে নামেন। মাদরাসার অভ্যন্তরে মিছিল, সমাবেশ, জমায়েত, অবস্থান কর্মসূচীর মতো ঘটনা ঘটে।

পাঁচদফা দাবিতে দুইদিনের টানা আন্দোলনে ছাত্রদের দাবি মেনে নিয়ে আন্দোলনের সমাপ্তি টানা হয় আল্লামা শফীকে মাদরাসার মহাপরিচালকের পদ থেকে অপসারণ ও আল্লামা শফী পূত্র মাওলানা আনাস মাদানীকে মাদরাসা থেকে স্থায়ী বহিস্কারের মাধ্যমে।

আন্দোলন চলাকালীন সময়ে আল্লামা শফী মাদরাসায় অবস্থান করছিলেন এবং সেখানে বেশ কিছু বিশৃঙ্খল পরিবেশও সৃষ্টি হয়েছিলো। অভিযোগ রয়েছে – আল্লামা শফীর রুমের সামনে ভাংচুরের মতো ঘটনাও ঘটেছে।

অপরদিকে আল্লামা শফীর সুস্থতা কামনা করে হাটহাজারী মাদরাসার মসজিদে জুমার নামাজের পর দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। জুমার নামাজের বয়ান করেছেন মাদরাসার সিনিয়র মুহাদ্দিস আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী। একই সাথে জানা গেছে – শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক হাটহাজারী মাদরাসা অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধের প্রজ্ঞাপন আমলে নেওয়া হয়নি এবং শনিবার থেকে মাদরাসায় যথারিতি ক্লাশ আরম্ভ হওয়ার কথা রয়েছে।

[সংবাদ পাঠিয়েছেন – হাটহাজারী থেকে তাফহিম হাসান]

মন্তব্য করুন