ভারত-বাংলাদেশ যাতায়াতে নতুন শর্ত

প্রকাশিত: ৭:৫৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৪, ২০২০

নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারির কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর ফের চালু হয়েছে ভারত-বাংলাদেশ যাত্রী চলাচল। তবে ভাইরাস পরিস্থিতি বিবেচনায় উভয় দেশের পাসপোর্টধারীদের আসা-যাওয়ার ক্ষেত্রে ভিসা সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় কাগজ-পত্র ছাড়াও মানতে হবে নতুন কয়েকটি শর্ত।

আজ শুক্রবার বিষয়টি নিশ্চিত করে বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহাসিন কবির বলেন, প্রতি বছর বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশি পর্যটন, ব্যবসা ও চিকিৎসা সংক্রান্ত কাজে ভারত গিয়ে থাকেন। আবার ব্যবসা, ভ্রমণ বা আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে দেখা করতে ভারতীয় পাসপোর্টধারীরাও বাংলাদেশ আসেন।

তিনি আরো বলেন, করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে বেশ কয়েকমাস উভয় দেশের মধ্যে যাত্রী চলাচল বন্ধ ছিলো। সম্প্রতি সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে। তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে চলাচল করতে উভয় দেশের যাত্রীদের নতুন কিছু শর্ত মানতে হবে।

শর্তগুলো হলো- বাংলাদেশি পাসপোর্টধারীদের পর্যটন, ব্যবসা বা চিকিৎসাসহ যেকোনো কাজে ভারত যেতে হলে নিজের বৈধ পাসপোর্ট থাকতে হবে। প্রত্যেক যাত্রীর চলতি বছরের ১ জুলাইয়ের পর ইস্যুকৃত ভিসা থাকতে হবে। দেশটিতে ভ্রমণের জন্য ভারতীয় হাইকমিশনের অনুমতিপত্র থাকতে হবে। প্রতিটি যাত্রীর সঙ্গে করোনাভাইরাস পরীক্ষার নেগেটিভ রিপোর্ট থাকতে হবে। তবে সেই রিপোর্ট ভ্রমণের ৭২ ঘণ্টার মধ্যকার হতে হবে। এসব শর্ত পূরণ হলে তবেই যে কোনো বাংলাদেশি ভারত ভ্রমণের ছাড়পত্র পাবেন।

ভারতীয় পাসপোর্টধারীদের বাংলাদেশে প্রবেশের ক্ষেত্রে বৈধ পাসপোর্ট ও বৈধ ভিসা থাকতে হবে। পাশাপাশি দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতি পত্র থাকতে হবে। বাংলাদেশিদের মতো তাদেরও করোনা পরীক্ষার নেগেটিভ রিপোর্ট দেখাতে হবে এবং সেটি ভ্রমণের ৭২ ঘণ্টার মধ্যেই করতে হবে। তাহলেই যে কোনো ভারতীয় পাসপোর্টধারীকে বাংলাদেশে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে।

জানা যায়, করোনাভাইরাসের বিস্তার মোকাবেলায় দুই দেশের সীমান্ত বন্ধ হয়ে গেলে অনেক ভারতীয় পাসপোর্টধারী বাংলাদেশে আটকে পড়েন। এমনকি এসব ভারতীয়র অনেকের ভিসার মেয়াদও শেষ হয়ে গেছে। তাই এখন সীমান্ত খোলায় তারা দেশে ফিরতে পারবেন। তবে ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় তাদেরও নতুন কিছু শর্ত মানতে হবে হবে।

প্রথমত তাদের বৈধ পাসপোর্টের পাশাপাশি জরিমানা ব্যতীত ভিসা নবায়ন করতে হবে। তারপর ভারতীয় হাইকমিশনের অনুমতি পত্র গ্রহণ করতে হবে। এছাড়া নতুন শর্ত অনুযায়ী তাদেরও করোনাভাইরাস পরীক্ষা করে নেগেটিভ রিপোর্ট সঙ্গে রাখতে হবে। অবশ্যই সেই রিপোর্ট ভ্রমণের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে নিতে হবে। তাহলেই তারা নিজ দেশে ফিরে যেতে পারবেন।

এমএম/পাবলিকভয়েস

মন্তব্য করুন