গৃহহীন ব্রিটিশদের সহায়তায় এগিয়ে এল মুসলিমরা

প্রকাশিত: ১০:০৭ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১০, ২০২০

মুসলিমদের দেখে মুখ ফিরিয়ে নেয় সাদা মানুষরা। সমাজের প্রতিটি স্তরে দেখা যায় ইসলামোফোবিয়া। ব্রিটেনের বিভিন্ন স্টেটে আজও মুসলিমরা বিদ্বেষী হামলার শিকার হচ্ছেন। কিন্তু সেই মুসলিমরাই করোনাকালে ব্রিটেনের জন্য যে অবদান রেখেছেন তা কখনোই ভোলার নয়। ভারতীয় গণমাধ্যমের খবর

করোনাযুদ্ধে ফ্রন্টলাইনে থেকে প্রাণ দিয়েছেন তিন মুসলিম চিকিৎসক। এবার উত্তর-পশ্চিম ব্রিটেনের এক মসজিদ গৃহহীনদের দাতব্যে দান করল ২০টি বেড। তবে এমন পরিকল্পনা ছিল না মসজিদ-ই-ঘোসিয়ার।

এপ্রিল মাসের শুরুর দিকে করোনার প্রকোপ বাড়তে থাকলে দেশের সব মসজিদ বন্ধ হয়ে গেলেও এই মসজিদটি আর্তদের সেবায় দরজা খুলে দেয়। উদ্দেশ্য ছিল, লকডাউনের মাঝে করোনা ভাইরাস রোগীদের চিকিৎসার জন্য জায়গা করে দেওয়া। তখনই কেনা হয়েছিল বেডগুলি। কেনা হয়েছিল অনেক জীবনদায়ী চিকিৎসা সরঞ্জামও।

সেই কাজে অর্থ হাতে এগিয়ে এসেছিল ব্রিটেনের মুসলিম কমিউনিটি। কিন্তু করোনার গতি সামাল দিতে ব্রিটিশ সরকারের চেষ্টায় কোনও খামতি ছিল না। স্বভাবতই হাসপাতালের বেড সংখ্যায় ঘাটতি দেখা যায়নি। তাই মসজিদ কমিটির তরফে কেনা সেই বেডগুলিও অব্যবহ*ত থেকে গিয়েছে এতদিন।

মুসলিম কমিউনিটির তরফে অসুস্থদের চিকিৎসার জন্য এই পরিকল্পনা যার মস্তিষ্কপ্রসূত তিনি হলেন ড. মুহাম্মদ জিভা। বোল্টনের মসজিদ-ই-ঘোসিয়ার বাইরে দাঁড়িয়ে বলেন, ‘জাতীয় স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে প্রচুর বেড থাকায় এখন আর এটির প্রয়োজন নেই।

তাই এখন আমরা বেডগুলিকে দান করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’ রচডেল ও বুরি মেডিক্যাল কমিটির সিইও জিভা আরও বলেন, ‘ঘরহীন মানুষদের সাহায্যের জন্য একটি সংগঠন যখন আমার কাছে আসে তখনই ২০টি বেড দান করার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলি।’

আই.এ/

মন্তব্য করুন