কুরবানীতে সারাদেশে কয়েক হাজার পরিবারকে ইকরামুল উম্মাহর গোশত বিতরণ

ইকরামুল উম্মাহর জনসেবা

প্রকাশিত: ১০:১২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২, ২০২০

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষ্যে সামাজিক সেবায় ব্যাপক ভূমিকা রাখা সরকারী রেজিস্ট্রেশন অন্তর্ভূক্ত  (এস-৪৫৬৮) সামাজিক সংগঠন ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন সারাদেশব্যাপী গরিব অসহায়দের মাঝে কুরবানীর গোশত বিতরণ করেছে। দেশের প্রায় ৫০-এর অধিক জেলায় ফাউন্ডেশনের জেলা কমিটির সহায়তা ও কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশনায় অসহায় ও গরীবদের মাঝে গোশত বিতরণ কার্যক্রম চালানো হয়েছে।

সরকারী অনুমোদন পেলো ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন : গঠিত হলো নতুন কমিটি

ইকরামুল মুসলিমীনের নাম পরিবর্তন, এখন থেকে ‘ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন’

দেশের বিভিন্ন স্থানে থাকা ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির দায়িত্বশীলদের ব্যবস্থাপনায় ও ফাউন্ডেশনের আর্থিক সহায়তায় বিভিন্ন পশু কুরবানী করে এই গোশত বিতরণ কর্মসূচি পালন করা হয়। এছাড়াও জেলা কমিটিগুলো থেকেও আর্থিক সহায়তা করে কুরবানী করে বিতরণ করা হয়েছে। রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন স্পটে এবং বন্যাদূর্গত সাতক্ষিরা অঞ্চল, দেশের উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকা ও ভোলার চরফ্যাসনসহ দেশের বিভিন্ন এলাকাতে ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে গোশত বিতরণ করা হয়েছে।

ঢাকায় ইকরামুল উম্মাহর গোশত বিতরণ :

পবিত্র ঈদুল আজহার দ্বিতীয় দিনে ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে মহাসচিব মাওলানা মুহিববুল্লাহর তত্ত্বাবধানে রাজধানী ঢাকার মিরপুর ও আদাবর থানার আওতাভুক্ত না বলতে পারা গরীব ও অসহায় প্রায় ১০০ পরিবারের মাঝে কোরবানি উপলক্ষে গোশত বিতরণ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। এছাড়াও ঢাকার বিভিন্ন স্থানে গরু জবেহ করে কুরবানীর গোশত বিতরণ করা হয়েছে। মিরপুর, মুগদা অঞ্চলেও কুরবানীর গোশত বিতরণ করা হয়েছে।

ঢাকার আদাবর থানার আওতাভুক্ত না বলতে পারা গরীব ও অসহায় পরিবারের মাঝে কোরবানি উপলক্ষে গোসত বিতরণ কর্মসূচি পালনে নেতৃত্ব দেন ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন এর ভাইস চেয়ারম্যান জনাব শামসুদ্দোহা তালুকদার। এবং মুগদা এলাকায় ইকরামের পক্ষ থেকে কুরবানী গোশত বিতরণের দায়িত্ব পালন করেন ফাউন্ডেশনের জয়েন্ট সেক্রেটারি ইমতিয়াজ উদ্দিন সাব্বির।

[ঢাকার বিভিন্ন স্পটে ইকরামুল উম্মাহর পক্ষ থেকে কুরবানীকৃত গরুর গোশত বিতরণ]

এ বিষয়ে ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশনের মহাসচিব মাওলানা মুহিব্বুল্লাহ বলেন – আমরা না বলতে পারা পরিবারকে গোশত তাদের বাসায় পৌঁছে দিয়ে এসেছি, তাদের ইজ্জত ও সম্মান অটুট রাখার স্বার্থে বেশিরভাগ ছবি ক্যামেরায় বন্দী করিনি। সবাই অবগত আছেন, যারা জীবনেও কোরবানি দেওয়া বন্দ করেনি সে সকল মানুষও এ বছর অনেকেই করোনা দুর্যোগের কারণে কোরবানি দিতে পারেনি, তাদেরকে গোশত দান করতে গিয়ে আমরা অনেক বেদনাবিদূর পরিবেশও দেখেছি।

কুয়াকাটায় ইকরামুল উম্মাহর গোশত বিতরণ কার্যক্রম :

ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন-এর চেয়ারম্যান মুফতী হাবিবুর রহমান মিছবাহর নিজ এলাকা পটুয়াখালী জেলার কুয়াকাটায় ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে কয়েকশ পরিবারের মাঝে কুরবানীর গোশত বিতরণ করা হয়েছে।

মুফতী হাবিবুর রহমান মিছবাহর তত্বাবধানে ও ফাউন্ডেশনের আর্থিক সহায়তায় কুয়াকাটার বিভিন্ন স্পটে অসহায় ও দরিদ্রদের মাঝে কুরবানী ও কুরবানীর পরবর্তি দিন গরুর গোশত বিতরণ করা হয়েছে। এর আগেও কুয়াকাটায় করোনা বিপর্যয়ের সময়ে একাধিকবার ইকরামুল উম্মাহর পক্ষ থেকে সহায়তা কার্যক্রম চালানো হয়েছে।

[কুয়াকাটায় ইকরামুল উম্মাহর পক্ষ থেকে কুরবানী হওয়া গরু]

এ বিষয়ে ফাউন্ডেশন-এর চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান মিছবাহ বলেন – করোনাকালীন এ সময়ে এ বছরের কুরবানী অনেকের জন্যই এক ধরনের দুশ্চিন্তা ও সামাজিক দায়বদ্ধতার শৃঙ্খল হিসেবে এসেছে। তাই অনেক মধ্যবিত্তরাই এবার কুরবানী করতে পারেনি। ফলে অসহায়, দরিদ্ররাও ঠিকমতো কুরবানীর গোশত পায়নি। আমি আমার সাধ্যমতো নিজ এলাকায় ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশনের ব্যানারে মানুষকে সহায়তা করার চেষ্টা করেছি। কয়েকশ পরিবারের মাঝে প্রায় দুই আড়াই কেজি করে গোশত বিতরণ করেছি। সামনে ইকরামুল মুসলিমীনের পক্ষ থেকে এই জনসেবামূলক কাজ চলমান থাকবে।

সাতক্ষিরায় ইকরামের পক্ষ থেকে গরুর গোশত বিতরণ :

সাতক্ষিরায় ঘুর্ণিঝড় আম্পান ও বণ্যাদূর্গত অসহায় মানুষদের মাঝেও ইকরামুল উম্মাহর পক্ষ থেকে গরু কুরবানী করে গোশত বিতরণ করা হয়েছে। এ বছর কুরবানীর সময়ে সবচেয়ে খারাপ অবস্থা হয়েছে সাতক্ষিরায় ঘুর্ণিঝড়ে বিধ্বস্ত ও উত্তরাঞ্চলের বণ্যাদুর্গত এলাকার মানুষজনের। ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন সাতক্ষিরায় ব্যাপক জনসেবামূলক কাজের ধারাবাহিকতায় কুরবানীর সময়েও গোশত বিতরণের কাজ করেছেন।

[সাতক্ষিরায় ইকরামুল উম্মাহর পক্ষ থেকে কুরবানী হওয়া গরুর গোশত বিতরণ]

সাতক্ষিরায় গোশত বিতরণ এবং গরু কুরবানীর সার্বিক বিষয়গুলো তত্বাবধান করেছেন ইকরামুল উম্মাহর ‘ইনফরমেশন এন্ড কমিনিকেশন সেক্রেটারি’ এহসান সিরাজ

তিনি বলেন – সাতক্ষীরার প্রতাপনগর সহ ঘূর্ণিঝড় দুর্গত এলাকাগুলোতে ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন-এর পক্ষ থেকে অসহায় গরীবদের মাঝে কোরবানির গোশত বিতরণ করা হয়েছে। কয়েকশো পরিবারের মাঝে সময় গোশত বিতরণ কার্যক্রম চালানো হয়। ভবিষ্যতেও সাতক্ষীরার এই ঘূর্ণিঝড় প্রবণ এলাকাগুলোতে ইকরামুল উম্মাহর কাজ চলমান থাকবে।

চরফ্যাসনে ইকরামুল উম্মাহর পক্ষ থেকে গোশত বিতরণ :

ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ভোলার চরফ্যাসন উপজেলায় প্রায় ৩০ টি পরিবারকে কুরবানীর গোশত বিতরণ করা হয়েছে। ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হাছিব আর রহমানের তত্বাবধানে ফাউন্ডেশনের আর্থিক সহায়তায় এই সহায়তা কার্যক্রম চালানো হয়।

[চরফ্যাসনে ইকরামুল উম্মাহর পক্ষ থেকে বিতরণ হওয়া গরুর গোশত]

এ বিষয়ে বিস্তারিত বিবরণে জানা যায় – ইকরামুল উম্মাহর পক্ষ থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানের মতো ভোলার চরফ্যাসন উপজেলায়ও পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে গরিব অসহায়দের বিতরণের জন্য একটি গরুর একাংশে কুরবানীর নাম দেওয়া হয় এবং সে অংশের পুরোটাই গরীবদের মাঝে মিলিয়ে দেওয়া হয়। ফাউন্ডেশনের সাথে নিবিড় যোগাযোগ রক্ষা করে কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হাছিব আর রহমান নিজে উপস্থিত থেকে এবং কিছু ক্ষেত্রে অসহায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে গোশতের প্যাকেট পৌঁছে দেন।

কুরবানীর দিন গোশত পেয়ে গরিব অসহায়দের অনেকেই ইকরামুল উম্মাহর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এবং যাদের সহায়তার মাধ্যমে এই গোশত বিতরণের কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে তাদেরকে দোয়া করেন।

কুড়িগ্রাম, রংপুরে গোশত বিতরণ :

বন্যাদুর্গত উত্তরাঞ্চলের কুড়িগ্রাম ও রংপুরসহ বিভিন্ন এলাকাতেও ইকরামুল উম্মাহর কেন্দ্রীয় কমিটির সরাসরি তত্বাবধানে একাধিক জায়গায় কুরবানীর গোশত বিতরণ করা হয়েছে। গরীব অসহায়দের মাঝে কুড়িগ্রাম ও রংপুরের একরামুল জেলা কমিটির ব্যবস্থাপনা ও তত্ত্বাবধানে, কেন্দ্রীয় কমিটির সহায়তা ও নির্দেশনায় কুরবানীর গোশত বিতরণ করা হয়েছে বলে জানা যায়। এছাড়াও উত্তরাঞ্চলে ইকরামুল উম্মাহ ধারাবাহিকভাবে জনসেবামূলক কাজ করে যাচ্ছে।

হবিগঞ্জে ইকরামুল উম্মাহর পক্ষ থেকে গোশত বিতরণ :

গতকাল (১ আগস্ট) পবিত্র ঈদুল আযহার দিনে হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল উপজেলায় ‘ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন’ হবিগঞ্জ জেলা শাখা কর্তৃক নিম্ন আয়ের মানুষদের মাঝে গোশত বিতরণ করা হয়।

সংগঠনের জেলা প্রতিনিধি নাছির উদ্দীন জানান, ঈদানন্দ সবার সাথে ভাগাভাগি করে উপভোগ করতে কেন্দ্রীয় সভাপতি মুফতি হাবিবুর রহমান মিছবাহ দেশের প্রায় ৫০টি জেলায় নিঃস্ব-অসহায়-গরীব পরিবারের মাঝে গোশত বিতরণের কর্মসূচী গ্রহণ করেন। যেন অসহায় ব্যক্তিরাও ঈদানন্দ উপভোগ করতে পারেন। এরই ধারাবাহিকতায় সংগঠনের পক্ষ থেকে জেলার বাহুবল উপজেলার অলুয়া, নোয়াগাঁও সহ বিভিন্ন গ্রামের নিম্ন আয়ের প্রায় ৫০টি পরিবারের মাঝে গোশত বিতরণ করা হয়।

ত্রিশাল উপজেলা

ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন মোমেনশাহী ত্রিশাল উপজেলার পক্ষ থেকে অসহায় বলতে না পারা পরিবারকে ঈদু্ল আজহার আগেরদিন ঈদ সামগ্রী দেওয়া হয় এবং কুরবানীর দিন কোরবানির গোশত বিতরণ করা হয়।

[ত্রিশালে ইকরামের পক্ষ থেকে বিতরণ হওয়া গরুর গোশত]

এছাড়াও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ফাউন্ডেশনের সাধ্যমত গরীব অসহায়দের মাঝে ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন এর পক্ষ থেকে কোরবানির গোশত বিতরণ করা হয়েছে। যার মাধ্যমে হাসি ফুটেছে প্রায় পাঁচ সহস্রাধিক পরিবারের মধ্যে। ভিন্ন জায়গায় বলতে বলতে না পারা অসহায় গরীবদের মাঝে নিজেরা গিয়ে গিয়েও গোশত বিতরণ করেছেন তারা।

প্রসঙ্গত : ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন ওলামায়ে কেরামদের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক অনুমোদিত একটি সামাজিক সেবামূলক সংগঠন। করোনাকালীন সময় থেকেই সারাদেশে ব্যাপক ভাবে কাজ করে যাচ্ছে ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন। করোনায় মৃতদের জানাজা ও দাফনসহ করোনাদুর্গত বিভিন্ন এলাকায় ত্রাণ বিতরণ করা এবং মানুষের পাশে দাঁড়ানোর মাধ্যমে ব্যাপক পরিচিতি পেয়েছে ফাউন্ডেশনটি।

করোনা রোগীকে মধু ও জমজমের পানি দিচ্ছে ইকরামুল মুসলিমীন

মুক্তিযোদ্ধা বীর প্রতিকের জানাযা-দাফন ইকরামুল মুসলিমীনের

পানিতে ভাসছে বন্যার্ত পরিবার: পাশে আছে ইকরামুল মুসলিমীন

করোনায় লেঃ কর্ণেলের স্ত্রীর মৃত্যু : দাফনে ইকরামুল মুসলিমীন ফাউন্ডেশন

করোনা আক্রান্ত সেনা সার্জেন্টের দাফন-জানাযা ইকরামুল মুসলিমীনের

৪৪দিন হিমাগারে ছেলের লাশ : নেয়নি বাবা, দাফনে ইকরামুল মুসলিমীন

পানিবন্দী খৃস্টানদের পাশে দাঁড়িয়ে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন ইকরামুল মুসলিমীনের

আরো ৬ লাশ দাফন করলো ইকরামুল মুসলিমীন ফাউন্ডেশন

আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ইকরামুল মুসলিমীনের ত্রাণ বিতরণ

এবার হিজড়া ও বেদে সম্প্রদায়ের পাশে ইকরামুল মুসলিমীন ফাউন্ডেশন

ইকরামুল উম্মাহ ফাউন্ডেশনের ধারাবাহিক কার্যক্রম সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

এইচআরআর/পাবলিক ভয়েস/

মন্তব্য করুন