চাঁদপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে আগাম ঈদুল আজহা পালিত

প্রকাশিত: ২:২৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩১, ২০২০

বাংলাদেশের ধর্মীয় বিশেষজ্ঞদের স্পষ্ট নিষেধ থাকা সত্বেও সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে প্রতিবছরের মতো এবারও বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে আজ শুক্রবার পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হচ্ছে।

এর মধ্যে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জের সাদ্রা দরবার শরিফে আজ সকাল সাড়ে ৯টায় ঈদের নামাজের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এরপর আরও কয়েকটি জামাত সেখানে অনুষ্ঠিত হয়েছে। তেমন লোকজন না থাকলেও বিচ্ছিন্নভাবে তারা ঈদ উদযাপন করেছেন এ বছরও।

জানা যায় – ১৯২৯ সালে প্রথম বাংলাদেশে আগাম ঈদের প্রচলন করেন সাদ্রা দরবার শরিফের তৎকালীন পীর মরহুম ইসহাক চৌধুরী। সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে দীর্ঘ ৯৩ বছর ধরে এসব গ্রামে আগাম ঈদ উদযাপিত হচ্ছে।

  • তবে বিষয়টির সাথে একমত নন দেশের ইসলাম বিশেষজ্ঞরা। কারণ প্রতিটি দেশের ধর্মীয় উৎসব সে দেশের চাঁদ দেখা অনুসারেই হয়ে থাকে বলেই মতামত ইসলামী বিশেষজ্ঞদের।

বিতর্কিত এই দরবার শরীফটির অনুসরণে চাঁদপুরে আরও কয়েকটি গ্রামে ঈদুল আজহা পালিত হচ্ছে। যেসব গ্রামে ঈদ উদযাপিত হচ্ছে সেগুলো হলো, হাজীগঞ্জ উপজেলার সাদ্রা, সমেশপুর, অলিপুর, বেলচো, জাঁকনি, প্রতাপপুর, বলাখাল, মনিহার, গোবিন্দপুর ও দক্ষিণ বলাখাল। ফরিদগঞ্জ উপজেলার লক্ষ্মীপুর, কামতা, সেনাগাঁও, বাসারা উভারামপুর, উটতলী, মুন্সিরহাট, মূলপাড়া, গল্লাক, আইটপাড়া, বদরপুর, ভুলাচোঁ, সোনাচোঁ, পাইকপাড়া, সুরঙ্গচাইল, বালিথুবা, কাইতাড়া, নুরপুর, শাচনমেঘ, শোল্লা, হাঁসা ও চরদুখিয়া, পাঁচআনি কচুয়া উপজেলার উজানি গ্রাম ও মতলব দক্ষিণ উপজেলার দশআনি ও মোহনপুর গ্রাম। একই সঙ্গে শাহরাস্তি উপজেলার বেশ কয়েকটি গ্রামে আজ (শুক্রবার) ঈদুল আজহা উদযাপিত হচ্ছে।

এছাড়া আরও কয়েকটি জেলাতেও ঈদুল আজহা পালনের খবর পাওয়া গেছে। জেলাগুলো হলো –

লালমনিরহাট : শুক্রবার সকালে কালীগঞ্জে ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করেছে কয়েকটি গ্রামের কিছু পরিবার। সকাল ৯টার দিকে উপজেলার মুন্সীপাড়া জামে মসজিদে ঈদুল আজহার জামাত অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলার তুষভাণ্ডার, সুন্দ্রহবী, কাকিনা, চাপারহাট, চন্দ্রপুর, আমিনগঞ্জ ও মুন্সীপাড়া গ্রামের শতাধিক পরিবারের মুসল্লিরা জামাতে অংশ নেন। প্রতিবছর সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে একদিন আগে রোজা ও ঈদ পালন করেন এসব গ্রামের মানুষ।

লক্ষ্মীপুর : আজ শুক্রবার ঈদুল আজহা উদযাপিত হচ্ছে লক্ষ্মীপুরের ১১ গ্রামে। রামগঞ্জ উপজেলার নোয়াগাঁও, জয়পুরা, বিঘা, বারোঘরিয়া, হোটাটিয়া, শরশোই, কাঞ্চনপুর ও রায়পুর উপজেলার কলাকোপা এবং সদর উপজেলার বশিকপুরসহ ১১ গ্রামের বেশ কিছু মুসল্লি শুক্রবার ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করেছেন।

আজ সকাল ৭টায় রামগঞ্জ উপজেলার খানকায়ে মাদানিয়া কাসেমিয়া মাদ্রাসায় ও নোয়াগাঁও বাজারের দক্ষিণ-পূর্ব নোয়াগাঁও ঈদগাহ ময়দানে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

বিতর্কিত সাদ্রা দরবারের মাওলানা ইসহাক অনুসারী হিসেবে এসব এলাকার মানুষ পবিত্র মক্কা ও মদিনার সঙ্গে সংগতি রেখে ঈদসহ সব ধর্মীয় উৎসব পালন করে আসছেন। এসব গ্রামের বাসিন্দারা সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে ঈদ উদযাপন করে আসছেন গত ৩৯ বছর ধরে।

ঝিনাইদহ : সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে হরিণাকুণ্ডু উপজেলার কয়েকটি গ্রামের শতাধিক মানুষ ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করেছেন।

আজ সকালে উপজেলা শহরের চটকাবাড়িয়া-ঈদগাপাড়া জামে মসজিদে এ নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইমামতি করেন মো. রেজাউল ইসলাম।

দীর্ঘদিন ধরে সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে উপজেলার চিথলীপাড়া, ভালকী, বৈঠাপড়া, ফলসিসহ কয়েকটি গ্রামের মানুষ ঈুদল ফিতর ও ঈদুল আজহা উদযাপন করে আসছেন। যদিও বিষয়টি সমর্থন করেন না দেশের বেশির ভাগ আলেম উলামারা।

মন্তব্য করুন