টিকটকে অশ্লীলতা ছড়ানোর দায়ে মিশরে ছয় নারীর কারাদন্ড

প্রকাশিত: ৫:২৪ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩০, ২০২০

ভিডিও কনটেন্ট প্রকাশের বিতর্কিত অ্যাপ টিকটকে অশ্লীল, পারিবারিক মূল্যবোধ লঙ্ঘন, মানবপাচার উৎসাহ দেওয়া কিছু বিতর্কিত ভিডিও কনটেন্ট শেয়ার করার দায়ে মিশরে ছয় নারীকে কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে।

মিশরের রাজধানী কায়রোর আদালতে ছয় নারীর মধ্যে দুজনের দু বছরের কারাদণ্ড ও ১৬ হাজার ইউরো জরিমানা, তিন জনের শুধু দু বছরের কারাদণ্ড এবং আরেকজনের তিন বছরের কারাদণ্ড ও জরিমানা হয়েছে৷

রায়ে ওই ছয় নারীর বিরুদ্ধে ‘অশোভনভাবে নাচা’, ‘মিশরের পারিবারিক মূল্যবোধ ও নীতি লঙ্ঘন করা’, লাম্পট্য এবং মানবপাচার উৎসাহিত করার অভিযোগের উল্লেখ করা হয়৷

তবে এক বিবৃতিতে ছয় নারীর মধ্যে শুধু দু’ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে৷ তারা হলেন হানিন হোসাম এবং মাওয়াদা এলাদহাম৷ দু’জনই ছাত্রী৷ হানিনের বয়স ২০ এবং মাওয়াদার বয়স ২২ বছর৷

অভিযুক্তদের আইনজীবীরা জানান, রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার সুযোগ রয়েছে৷ তাদের দাবি, অভিযুক্ত তরুণীরা টিকটকে জনপ্রিয় হওয়ার চেষ্টা করেছেন, সচেতনভাবে আইন লঙ্ঘনের উদ্দেশ্য তাদের ছিল না৷

এর আগে গত ২১ জুলাই অশ্লীল ও ‘অনৈতিক কন্টেন্ট’ ছড়ানোতে উৎসাহ দেওয়ায় দায়ে শেষবারের মতো ভিডিও-অ্যাপ ‘টিকটক’কে সতর্ক করেছে পাকিস্তান৷ একই অভিযোগে আরেকটি অ্যাপকে ব্লক করা হয়েছে সেখানে৷

পাকিস্তানের টেলিকমিউনিকেশন অথরিটি পিটিএ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে যে, ‘অনৈতিক’ কন্টেন্ট প্রচারের কারণে তারা টিকটককে সতর্ক করছে৷ পাশাপাশি, আরেকটি অ্যাপ ‘বিগো লাইভ’কে ব্লক করবার কথাও জানায় তারা৷

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘‘অশ্লীল ও অনৈতিক কন্টেন্টের প্রচার থামাতে অবিলম্বে জোরদার পদক্ষেপ নিতে হবে টিকটককে৷ এটাই টিকটকের উদ্দেশ্যে পিটিএ’র চূড়ান্ত সতর্কবার্তা৷ একই কারণে বিগো অ্যাপ ব্লক করছি আমরা৷’’

চীনা সংস্থা ‘বাইটডান্স’-এর বিশ্বখ্যাত ভিডিওঅ্যাপ ‘টিকটক’ অ্যাপ ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তা ও অন্যান্য বিষয়ের একাধিক সমস্যার কারণে এর আগে অস্ট্রেলিয়া, ভারত ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কর্তৃপক্ষ থেকেও উঠে এসেছে ‘টিকটক’-বিরোধী পদক্ষেপ৷ এমনকি চীনের সাথে সম্পর্ক খারাপের সূত্র ধরে টিকটক ব্যান করা হয়েছে ভারতেও। সূত্র : ডয়চে ভেলে।

মন্তব্য করুন