ভারতের সাথে গোলামির চুক্তি বাতিল করতে হবে : অধ্যক্ষ ইউনুস

প্রকাশিত: ৬:৩১ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৪, ২০২০

দেশের সার্বভৌমত্ব বিরোধী ভারতীয় আধিপত্যবাদ প্রতিষ্ঠায় দেশবিরোধী চট্টগ্রাম ও মংলা বন্দর ট্রান্সশিপমেন্ট চুক্তি বাতিল করতে হবে। যে ভারত বন্ধু রাষ্ট্র পরিচয় দিয়ে বাংলাদেশের সীমান্তে পাখির মত মানুষ হত্যা করে তাদেরকে এমন অনৈতিক সুবিধা দেয়া সরকারের নতজানু পররাষ্ট্র নীতির বহিপ্রকাশ।

আজ শুক্রবার (২৪ জুলাই) আইএবি মিলনায়তনে ইসলামী যুব আন্দোলন ঢাকা মহানগর দক্ষিণের উদ্যোগে আয়োজিত ইসলামী যুব আন্দোলনের ৪র্থ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সভায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুস আহমদ এ মন্তব্য করেন।

তিনি আরো বলেন, আমরা অত্যান্ত পরিতাপের সাথে লক্ষ করেছি- ২০১০ সালে ভারতের ট্রান্সশিপমেন্ট ফি ছিল যথাক্রমে সড়ক ও রেলপথে প্রতি কন্টেইনার ১০ হাজার টাকা, সড়কপথে কাভার্ড ভ্যান (প্রতি টন) ১ হাজার টাকা, জাহাজ যোগে বা রেলপথে (প্রতি টন) ১ হাজার টাকা এবং বিমা কাভারেজ বাধ্যতামূলক কিন্তু বর্তমানে তা কমিয়ে যথাক্রমে সড়ক ও রেলপথে প্রতি কন্টেইনার মাত্র ৫০০ টাকা, সড়কপথে কাভার্ড ভ্যান (প্রতি টন) মাত্র ২০ টাকা, জাহাজ যোগে বা রেলপথে (প্রতি টন) মাত্র ২০ টাকা এবং বিমা নিষ্প্রয়োজন করা হয়েছে। এটা কোন নীতিকে সামনে রেখে করা হয়েছে তা আমাদের বোধগম্য নয়।

নগর সভাপতি মুফতী মানসুর আহমদ সাকীর সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি শফিকুল ইসলামের সঞ্চালনায় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ইসলামী যুব আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি কে এম আতিকুর রহমান। তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী থেকে নতুন চেতনা নিয়ে এদেশে ইসলামী হুকুমত প্রতিষ্ঠা এবং দেশের স্বাধীনতা -সার্বভৌমত্ব রক্ষার আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়তে হবে। তিনি সংগঠনকে বেগবান করার লক্ষ্যে দাওয়াতের উপর গুরুত্বারোপ করেন।

সভায় আরও বক্তব্য রাখেন যুবনেতা মাহবুবুল আলম, জানে আলম সোহেল, আল আমীন সোহাগ, এইচ এম আবু বকর সিদ্দীক, মাওলানা নাজিম উদ্দীন, তানজিল হাসান, তসলিম উদ্দিন রুবেল, মুফতী শওকত উসমান, গোলামুর রহমান আজম, ক্বারী নাসির উদ্দিন, আল আমীন মজুমদার, মুফতী শরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

মন্তব্য করুন