৪ দিনে রোগীর মৃত্যু, হাসপাতালের বিল ২ লাখ ৩১ হাজার!

প্রকাশিত: ১১:৫৩ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২২, ২০২০

করোনাকালে হাসপাতালগুলোর অনিয়ম আর যথেচ্ছাচার এক এক করে বেরিয়ে আসছে। চিকিৎসার নামে মানুষকে জিম্মি করে মোটা অংকের অর্থ আত্মসাতের ঘটনা এবার ঘটেছে রাজধানীর ধানমন্ডিতে অবস্থিত পপুলার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। ১৬ জুলাই রোগী ভর্তি করানোর পর ২১ জুলাই সকালেই মৃত্যুর খবর জানানো হয়, সঙ্গে ধরিয়ে দেওয়া হয় ২ লাখ ৩১ হাজার টাকার বিল। হাসপাতাল থেকে বলা হয়, সব টাকা পরিশোধ না করলে মৃতদেহ দেওয়া হবে না।

ভুক্তভোগী ঢাকার কামরাঙ্গীর চরের ওই বাসিন্দা জানান, ৫০ বছর বয়সী চাচার শরীরে বিশেষ কোনো জটিলতা ছিল না। তিনি অ্যাজমার রোগী। শ্বাসকষ্টের সমস্যা হওয়ার কারণে তাকে পপুলার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বিশেষ কোনো অপারেশনও হয়নি, তারপরও ৪ দিনের এমন বিল দেখে থানায় যোগাযোগ করে মৃতের ভাতিজা। ধানমন্ডি থানা থেকে পুলিশ আসার পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সেই বিল নামিয়ে এনেছে ৭০ হাজারে!

ওই ভুক্তভোগী আরো বলেন, পরীক্ষার পর দেখা গেছে আমার চাচার করোনা হয়নি। তারপরও তারা ইসিজি, এক্সরেসহ নানা পরীক্ষা করানো হয়। কর্তৃপক্ষ থেকে বলা হয়েছে, করোনা রোগীর সঙ্গে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে, তাই অনেক পরীক্ষা লেগেছে। একজন নন-কোভিড রোগীকে কেন কোভিড রোগীর সঙ্গে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে, তা বোধগম্য নয়।

ধানমন্ডি থানার এসআই শিহাব উদ্দিন বলেন, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ যে বিল ধরেছে সেটা শুধু অতিরিক্ত নয়, রীতিমতো ভুতুড়ে। তার প্রমাণ, আমরা যাওযার পর বিল কমিয়ে ফেলা হয়েছে ১ লাখ ৬১ হাজার টাকা। এটা কীভাবে সম্ভব? আর মাত্র ৪ দিনেই বা কীভাবে এত টাকা বিল হয়? এসব প্রশ্নের জবাব দিতে পারেনি হাসপাতালের দায়িত্বশীলরা।

এমএম/পাবলিকভয়েস

মন্তব্য করুন