ফেসবুকে কয়েক কোটি টাকার প্রতারণা, ১১ নাইজেরীয়ান গ্রেপ্তার

প্রকাশিত: ৭:০৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ২২, ২০২০

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে প্রতারণা ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে এক বাংলাদেশি নারীসহ ১২ জন নাইজেরিয়ান নাগরিককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। সম্প্রতি অভিযোগের প্রেক্ষিতে অনুসন্ধান চালিয়ে রাজধানীর পল্লবী এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

আজ বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রাজধানীর মালিবাগে অবস্থিত সিআইডির সদরদপ্তরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সংস্থাটির ঢাকা মেট্রোর অতিরিক্ত ডিআইজি শেখ মো. রেজাউল হায়দার।

তিনি বলেন, চক্রটি ফেসবুকে মানুষের সঙ্গে বন্ধুত্বের পর দামি উপহার দেওয়ার নাম করে প্রতারণা করে আসছিলো। গত দুই মাসে তারা এভাবে সারাদেশ থেকে ৫-৬ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। সম্প্রতি চক্রটির প্রতারণার শিকার এক ভুক্তভোগীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে অনুসন্ধানে নেমে তাদের গ্রেপ্তার করে সিআইডি।

গ্রেপ্তারকৃত বাংলাদেশি নারীর নাম রাহাত আরা খানম ওরফে ফারজানা মহিউদ্দিন। আর ১১ নাইজেরিয়ানরা হলেন- নন্দিকা ক্লিনেন্ট, মর্দি ন্যামডি, ক্লেটাস আছুনা, ওক উইসডম, ওইউকুলভ টিমটি, ইয়েরেম প্রেসিওস, একিন উইসডোম, ডুবুওকন সোমায়ইনা, চিগোই, ইভুন্ডে গ্যাব্রিল ওবিনা এবং স্যালেস্টাইন প্যাট্রিক। গ্রেপ্তারের সময় তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন মডেলের ১৪টি মোবাইল ফোন, অসংখ্য সিম কার্ড ও ৫টি ল্যাপটপ উদ্ধার করা হয়।

চক্রটির প্রতারণার বিষয়ে অতিরিক্ত ডিআইজি শেখ মো. রেজাউল হায়দার বলেন, চক্রটির সদস্যরা প্রথমে ওই ভুক্তভোগীর সঙ্গে ফেসবুকে যুক্ত হন। তারপর খুব কৌশলে গড়ে তোলেন বন্ধুত্ব। এক পর্যায়ে তারা মেসেঞ্জারে ওই ব্যক্তিকে একটি উপহার পাঠানোর প্রস্তাব দেন। এমনকি মেসেজে উপহার সামগ্রী পাঠানোর এয়ার লাইন বুকিংয়ের ডকুমেন্টও পাঠায় এবং জানায় ওই উপহার বাক্সে কয়েক মিলিয়ন ডলার মূল্যের উপহার সামগ্রী রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, চক্রটি ওই ভুক্তভোগীকে উপহারের বাক্সটি চট্টগ্রাম বিমানবন্দরের কাস্টমস হাইজ থেকে গ্রহণ করতে বলে। এ সময় চক্রের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য রাহাত আরা খামন ওরফে ফারজানা মহিউদ্দিন নিজেকে কাস্টমস কমিশনার পরিচয় দিয়ে ভুক্তভোগীর সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তিনি ওই ব্যক্তিকে উপহার সামগ্রী গ্রহণের জন্য সোয়া ৪ লাখ টাকা শুল্ক পরিশোধ করতে বলেন। পাশাপাশি টাকাটি কয়েকটি ব্যাংক একাউন্ট থেকে পরিশোধ করার জন্য ভুক্তভোগীকে চাপ দেন। এমনকি উপহার সংগ্রহ না করেলে আইন জটিলতারও ভয় দেখান।

সিআইডির এ কর্মকর্তা আরো বলেন, চক্রটির ফাঁদে পড়ে এবং চাপে তাদের দেওয়া ব্যাংক একাউন্টে ৩ লাখ ৭৩ হাজার টাকা জমা দেন ভুক্তভোগী। পরে প্রতারণা বিষয়টি বুঝতে পারলে তিনি পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন। এভাবেই গত ২ মাসে সারাদেশ থেকে ৫-৬ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে প্রতারক চক্রটি।

তিনি আরো বলেন, গ্রেপ্তার নাইজেরিয়ানরা দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশে অবস্থান করছে। তাদের এ দেশে থাকার বৈধ কোনো কাগজপত্রও নেই। তারা এভাবেই ফেসবুকের মাধ্যমে মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছিলো। সিআইডি তাদের বিরুদ্ধে রাজধানীর পল্লবী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।

সকলকে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়ে অতিরিক্ত ডিআইজি বলেন, কোনো বিদেশি নাগরিককে বাড়ি ভাড়া দেওয়ার আগে বাড়ির মালিকরা তাদের পাসপোর্টসহ সকল কাগজপত্র বৈধ কি না- যাচাই করে নিবেন। পাশাপাশি অপরিচিত কারোর সঙ্গে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বন্ধুত্ব করা থেকে বিরত থাকবেন। কেউ বৈধ কাগজপত্র ছাড়া বাড়ি ভাড়া নিলে বা কোনো ব্যক্তির প্রতি সন্দেহ হলে সঙ্গে সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে খবর দিবেন।

এমএম/পাবলিকভয়েস

মন্তব্য করুন