করোনাকালে উবার যোগাযোগে নতুন সেফটি ফিচার

প্রকাশিত: ৬:৫২ অপরাহ্ণ, জুলাই ১২, ২০২০
  • পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে যাত্রী ও চালকদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে নতুন সেফটি ফিচার আনলো উবার

জনজীবন স্বাভাবিক হওয়ার সাথে সাথে লক্ষ লক্ষ মানুষের যাতায়াতের সুবিধা ও সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে উবার আজ বাংলাদেশের যাত্রী ও চালকদের জন্য কোভিড-১৯ সংক্রান্ত বিভিন্ন সেফটি ফিচার ও নীতিমালা প্রণয়ন করেছে।

এই তালিকায় চালক ও যাত্রী উভয়ের জন্য থাকছে একটি পারস্পরিক গো অনলাইন চেকলিস্ট, বাধ্যতামূলক মাস্ক ব্যবহারের নীতি, চালকদের জন্য বাংলাদেশে এই প্রথম যাত্রা শুরুর আগেই মাস্ক পরা হয়েছে কি না তা যাচাইকরণ সেলফি, যাত্রা শেষে ফিডব্যাক দেয়া এবং ট্রিপ বাতিল করার নতুন নীতিমালা। এই সংকটকালীন মুহূর্তে যেন প্রত্যেক উবার ব্যবহারকারী প্রতি ট্রিপে সুরক্ষিত ও নিরাপদ থাকেন তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যেই নতুন এই নীতিমালা গঠন করা হয়েছে।

এ লক্ষ্যে উবার চালকদেরকে বিনামূল্যে ৫০ লক্ষ টাকার মাস্ক ও স্যানিটাইজারের মতো সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করছে।

চালক ও যাত্রীরা উবার অ্যাপে কিছু নতুন সংযোজন দেখতে পাবেন। যেমন:

• গো অনলাইন চেকলিস্ট: যাত্রা শুরু করার আগে একটি নতুন গো অনলাইন চেকলিস্টের মাধ্যমে চালকদের কাছে জানতে চাওয়া হবে যে তারা সুরক্ষা নিশ্চিত করতে যাথাযথ পদক্ষেপ নিয়েছেন কি না এবং মাস্ক পরেছেন কি না। যাত্রীদের জন্যও একই রকম একটি চেকলিস্ট তৈরি করা হয়েছে। প্রতিটি যাত্রা শুরুর আগে তাদের অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে যে তারা মাস্ক ব্যবহার করছেন কি না এবং তারা হাত ধুয়েছেন কিংবা স্যানিটাইজার ব্যবহার করেছেন কি না।

• মাস্ক ভেরিফিকেশন: কোনো ট্রিপ গ্রহণ করার আগে চালকদেরকে মাস্ক পরে একটি সেলফি তুলতে বলা হবে। উবারের নতুন প্রযুক্তি যাচাই করবে চালক মাস্ক পরেছেন কি না।

• সবার জন্য জবাবদিহিতা: কোনো যাত্রী বা চালক মাস্ক পরেছেন কি না বা মুখ ঢেকে রেখেছেন কি না সে সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানাতে নতুন অপশন যুক্ত করা হয়েছে।

• যাত্রা বাতিল করার নীতিমালা হালনাগাদ: চালক বা যাত্রী যে কেউই অনিরাপদ বোধ করলে তাৎক্ষণিক তারা যাত্রা বাতিল করতে পারবেন। মাস্ক না পরা বা মুখ না ঢাকা থাকলেও তারা যাত্রা বাতিল করতে পারবেন।

• সীমিত আসন ব্যবস্থা: উবার ট্রিপে থাকাকালীন চালক ও যাত্রীদের মধ্যে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখতে যাত্রীদের শুধুমাত্র পিছনের সিটে বসার অনুরোধ জানানো যাচ্ছে। এখন থেকে চালক ব্যতীত গাড়িতে শুধুমাত্র দুজন যাত্রী বসতে পারবেন।

• রাইডশেয়ারিং করার সময় স্বাস্থ্যসুরক্ষা বিষয়ক নির্দেশিকা: বৈশ্বিক ও স্থানীয় জনস্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের সাথে মিলে রাইডশেয়ারিং করার সময় মেনে চলা উচিৎ এমন কিছু স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিষয়ক নির্দেশিকা তৈরি করা হয়েছে যা সকল চালক ও যাত্রীদের দেয়া হবে।

এ সম্পর্কে উবারের বাংলাদেশ ও পূর্ব ভারতের প্রধান রাতুল ঘোষ বলেন, “চালক ও যাত্রীদের নতুন অভিজ্ঞতা দেয়ার জন্য আমাদের বিশ্বমানের প্রযুক্তি ও সেফটি প্রোডাক্ট টিম নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। যেহেতু জনজীবন স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে তাই নিজেদের নিরাপদ রাখতে ও পরবর্তী যাত্রাকে সবার জন্য নিরাপদ করতে সকল প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বন করা গুরুত্বপূর্ণ। এই নতুন ফিচার ও নীতিমালাগুলো বিশ্বব্যাপী চালু করা হয়েছে এবং সবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আমরা প্রয়োজন অনুযায়ী এগুলো আরও উন্নত ও সংশোধিত করতে থাকব।”

সম্প্রতি ডিবিএল ফার্মা, যান্ত্রিক, ডেটল (রেকিট বেনকিজার) এবং ফ্রেশ টিস্যুর সাথে অংশীদারিত্ব করে উবার বাংলাদেশে ট্রান্সপোর্ট সেফটি অ্যালায়েন্স (টিএসএ) গঠন করেছে। এই অ্যালায়েন্স গঠনের উদ্দেশ্য ছিল গ্রাহকদের মধ্যে সচেতনতা তৈরি করা এবং নিরাপদ যাত্রা নিশ্চিত করতে চালকদের প্রয়োজনীয় সুরক্ষা সামগ্রী সরবরাহ করে তাদেরকে প্রস্তুত করা। এই উদ্যোগের অংশ হিসেবে উবার ও অন্যান্য সহকারী প্রতিষ্ঠানগুলো চালকদের সুরক্ষা সামগ্রী যেমন- মাস্ক, সাবান, টিস্যু ও স্যানিটাইজার বিতরণ করে।

উবার সম্পর্কিত তথ্য : সচলতার মাধ্যমে নতুন সম্ভাবনা সৃষ্টি করাই উবারের লক্ষ্য। আপনি কীভাবে বাটনের এক চাপে যাতায়াতের জন্য একটি গাড়ি পেতে পারেন? এ সমস্যার সমাধান খুঁজতে আমাদের শুরুটা হয় ২০১০ সালে। ১৫ বিলিয়নেরও বেশি ট্রিপ সম্পন্ন করার পর, এখন আমরা সেসব সার্ভিস তৈরির প্রচেষ্টায় নিয়োজিত যেগুলো একজন ব্যক্তিকে তার লক্ষ্যে পৌঁছাতে সাহায্য করে। শহরের যাতায়াত ব্যবস্থা, খাদ্য এবং জিনিসপত্র আনা-নেওয়ার পদ্ধতি পরিবর্তনের মাধ্যমে উবার সম্ভাবনার এক নতুন দ্বার উন্মোচন করেছে।

আরআর/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন