বাকেরগঞ্জে ঘুমন্ত দম্পতিকে কুপিয়ে জখম

প্রকাশিত: ১২:৩৫ অপরাহ্ণ, জুলাই ১২, ২০২০

মহিব্বুল্লাহ মহিব, বরিশাল প্রতিনিধি : বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জে ঘুমন্ত এক দম্পতিকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় গুরুতর আহত মনির হাওলাদার (৪৫) ও তার স্ত্রী কুলসুম বেগম (৪০) কে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা যায়, উপজেলার ৬নং ফরিদপুর ইউনিয়নে মধ্যভাতশালা গ্রামের বাসিন্দা মনির হাওলাদার ও তার স্ত্রী কুলসুম বেগম রাতের খাবার খেয়ে নিজ ঘরে ঘুমিয়ে পড়ে। ৪ জুলাই (শনিবার) রাত ২ টার দিকে মাটির ঘরের কাঠের দরজার খিলি খুলে দুর্বৃত্তরা ঘরে ঢুকে। পরে দুর্বৃত্তরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে ঘুমন্ত ওই দম্পতিকে এলোপাতাড়ি কোপায়। এতে মনির হাওলাদারের হাত পৃথক ও উভয় পায়ের পাতায় একাধিক কোপ দিয়ে মাংস ছেড়া কাটা এবং কুলসুম বেগমের মাথা কোপ লেগে রক্তাক্ত জখম হয়। স্বামী-স্ত্রীর চিৎকারে প্রতিবেশিরা এগিয়ে আসলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়।

আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে বাকেরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

এ বিষয়ে আহত কুলসুম বেগম জানান, গত ২৮ জুন (সোমবার) স্থানীয় নজরুল ইসলাম ও তার স্ত্রী লিপি বেগমকে স্থানীয় সন্ত্রাসী গোলাম সরোয়ার সবুজ ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর লোকজন মারধর করে। এ ঘটনায় ওই সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে বাকেরগঞ্জ থানায় একটি মামলা করা হয় (মামলা নং-২৩)। ওই মামলায় মনির হাওলাদার ৭নং সাক্ষি হওয়ায় সন্ত্রাসী গোলাম সরোয়ার সবুজের নেতৃত্বে বারেক মোল্লা, মানিক মোল্লা, মহিউদ্দিন মোল্লা, সোহেল মোল্লা, রনি মোল্লা, মিরাজ মোল্লা, জাকির ফকির ও সাঈফুল রাঢ়ী গভির রাতে ঘরের ভিতর প্রবেশ করে তাদেরকে কুপিয়ে জখম করে। এ ঘটনায় আহত স্ত্রী কুলসুম বেগম ৯ জনকে আসামী করে বাকেরগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

উল্লেখ্য, সন্ত্রাসী গোলাম সরোয়ার সবুজ ও তার সহযোগী সন্ত্রাসী বাহিনীরা এলাকায় নানা অপরাধজনক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত। তাদের নামে বিভিন্ন থানায় চাঁদাবাজী, হত্যার চেষ্টা, গুম, জমি জবর দখল ও মাদকের একাদিক মামলা রয়েছে। ওই সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম হাটহাজারী থানায় গত ২৪ জুলাই ১৯৯২ তারিখে ধারা: ৩০২ ও ৩০১ দ:বি: দায়ের করা হয় (মামলা নং-০৯)। সন্ত্রাসী গোলাম সরোয়ার সবুজের বিরুদ্ধে কদমতলী থানায় গত ১ ফেব্র: ২০১৬ তারিখে ধারা: ১৯(১) ১খ ১৯৯০ সনের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা রয়েছে (মামলা নং-০৪)। গত ৪ সেপ্টেম্বর ২০১২ তারিখে বাকেরগঞ্জ থানায় ধারা: ৩৪১,৩২৩,৩২৬,৩০৭,৩৮৫,৩৮৭,৩৭৯ দ:বি: মামলা রয়েছে (মামলা নং-০৭) এবং গত ২৮ জুন ২০২০ তারিখে বাকেরগঞ্জ থানায় ধারা: ১৪৩,৩৪১,৩২৩,৩২৪,৩২৬,৩০৭,৩৭৯,৩৫৪,৩০,১১৪ দ:বি: মামলা রয়েছে (মামলা নং-২৩)। এতগুলো মামলার আসামী হয়েও তারা এলাকায় একের পর এক সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে বেড়াচ্ছে।

তাদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের লাগাম না টানা হলে পরবর্তীতে বড় ধরণের দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে। গোলাম সরোয়ার সবুজ ও তার সহযোগী সন্ত্রাসী বাহিনীদের  দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে ভুক্তভোগী পরিবার ও এলাকাবাসী।###

এনএইচ/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন