বিশ্বের প্রথম সোনার হোটেলের উদ্বোধন, জেনে নিন থাকার খরচ

প্রকাশিত: ৮:০০ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ৬, ২০২০

বিশ্বের প্রথম সোনায় মোড়ানো পুরো পাঁচ তারকা হোটেলের উদ্বেোধন হলো ভিয়েতনামে। হোটেলটির নাম ডলচে হ্যানয় গোল্ডেন লেক। ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে তৈরি হয়েছে বিশ্বের সর্বপ্রথম সোনার প্লেটে নির্মিত এই হোটেলটি।

২৫ তলা বিশিষ্ট এই হোটেলটির নাম গোল্ড প্লেটেড হোটেল ‘ডলস হানোই গোল্ডেন লেক’। সিক্স স্টার এই হোটেলটির নির্মাণ শুরু হয় ২০০৯ সালে। এটি তৈরিতে খরচ হয়েছে ২০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

এএফপি জানায়, ২০০৯ সাল থেকে এ হোটেলের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। গত শনিবার এটি ব্যবসায়ের জন্য চালু করা হয়েছে।

[বিশ্বের প্রথম সোনায় মোড়ানো হোটেল]

শুধু বাইরে নয়, হোটেলের দরজা, জানলা-সহ বাথরুমের টয়লেট সিট থেকে শুরু করে লবি, ইনফিনিটি পুল , রুম এমনকী বাথরুমের শাওয়ারের মাথাটিও সোনায় মোড়া। সব ক্ষেত্রেই ব্যবহার করা হয়েছে ২২ ক্যারেটের সোনা।

হোটেলের ইন্টেরিয়র এবং এক্সটেরিয়র দুই ক্ষেত্রেই ব্যবহৃত হয়েছে ২৪ ক্যারেটের সোনা। পুরো হোটেল সোনার পাতে নির্মিত হলেও টয়লেট সিট থেকে শুরু করে লবি, ইনফিনিটি পুল, রুম এমনকি বাথরুমের শাওয়ারের মাথাটিও সোনা দিয়েই তৈরি করা হয়েছে।

[হোটেলের রুম এমনকী বাথরুমের শাওয়ারের মাথাটিও সোনায় মোড়া]

হোটেলে কোনো গেস্ট কফি খেতে চাইলে, তাকে সোনার কাপেই কফি পরিবেশন করা হবে। ডলচে হ্যানয় গোল্ডেন লেক হ্যানয়ের অন্যতম ট্যুরিস্ট আকর্ষণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। গত কয়েক বছর ধরেই পর্যটকরা হোটেলের সামনে ভিড় জমাচ্ছেন। হ্যানয়ের গিয়াং ভো লেকের এক্কেবারে ধারেই তৈরি হয়েছে এ হোটেল। ভিয়েতনামের প্রসিদ্ধ হোয়া বিন গ্রুপই তৈরি করেছে এটি।

হোটেলটির ম্যানেজমেন্টের দায়িত্ব সামলাচ্ছে আমেরিকান সংস্থা উইনধাম হোটেল গ্রুপ। এর ভেতরে এবং বাইরে পাঁচ হাজার বর্গমিটারের সিরামিক টাইলস বসানো রয়েছে। এই ধরনের টাইলস নির্মিত হয় সম্পূর্ণ সোনা দিয়েই। এই হোটেলে রয়েছে মোট ২৫টি তলা। আর ইমিউনিটি পুলটি রয়েছে একেবারে রুফটপে।

সোনার হোটেল হলে কি হবে, রাত কাটানোর খরচ কিন্তু খুব বেশি না। এই হোটেলে রুম ভাড়া শুরু হচ্ছে ২৫০ মার্কিন ডলার থেকে যা বাংলাদেশী মূদ্রায় প্রায় ২১ হাজার টাকা।

আবার এই হোটেলে অ্যাপার্টমেন্টও ভাড়া করার সুযোগ রয়েছে। তবে সেই অ্যাপার্টমেন্ট ভাড়া করার খরচ অনেক বেশি। সেক্ষেত্রে খরচ হবে ৬৫০০ মার্কিন ডলার যা বাংলাদেশী টাকায় ৫,৪৬,০০০ টাকা প্রায়।

হোটেলের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হোয়া বিন গ্রুপের চেয়ারম্যান এনগ্যুয়েন হু ডুয়োং বলছেন, আমাদের গ্রুপেরই একটি ফ্যাক্টরি রয়েছে যেখানে আমরা খুব সস্তায় নানা ধরনের সোনার জিনিসপত্র বানাই। সেই দিক থেকে দেখতে গেলে সোনায় মোড়া এ হোটেলে থাকার খরচ কম। তবে করোনার কারণে তাদের ব্যবসা যে রীতিমতো ধাক্কা খেয়েছে, সে কথাটাও স্বীকার করে নিয়েছে হোটেল কর্তৃপক্ষ। যদিও এ সংকটজনক পরিস্থিতি একবার চলে গেলে আবার যে তারা ঘুরে দাঁড়াবেন, সে বিষয়ে যথেষ্ট আশাবাদী ডলচে হ্যানয় গোল্ডেন লেক কর্তৃপক্ষ। তবে হোটেলের কিছু কাজ এখনো বাকি রয়েছে, যা শেষ হতে আরো কিছু দিন লাগবে।

#আরআর/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন