ভুতুড়ে বিলে জড়িত ২৯০ জন চিহ্নিত

প্রকাশিত: ১২:৫৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ৬, ২০২০

দেশে নভেল করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে মিটার না দেখেই ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিল করার দায়ে বিদ্যুৎ বিভাগের ২৯০ জন কর্মীকে চিহ্নিত করা হয়েছে। আজ রোববার অনলাইনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব সুলতান আহমেদ।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে মিটার না দেখে ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিল করার অফিযোগ উঠে বিদ্যুৎ বিভাগের বিরুদ্ধে। এর প্রেক্ষিতে একটি টাস্কফোর্স গঠন করে তদন্তে নামে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। প্রাথমিক তদন্তে এ ঘটনার জন্য ২৯০ জন কর্মীকে চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি আরো জানান, গ্রাহকদের ব্যবহারের তুলনায় অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল করার দায়ে ডিপিডিসির একজন নির্বাহী প্রকৌশলীসহ চার জনকে ইতোমধ্যে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ছাড়া চুক্তিভিত্তিক ১৩ জন মিটার রিডার এবং ডাটা এন্ট্রি অপারেটরসহ মোট ১৪ জনকে তাদের কাজ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

বিদ্যুৎ বিল বিতরণ কোম্পানিগুলোর প্রতিবেদন নিয়ে আয়োজিত এ সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো জানান, দেশের এ সংকটময় পরিস্থিতিতে জরিমানা ছাড়া বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের সময় জুলাই পর্যন্ত বাড়ানোর চিন্তা-ভাবনা করছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি বিদ্যুৎ বিলের যে গড়মিল হয়েছে তা শতভাগ সমাধান করা হয়েছে। কোনো গ্রাহকের কাছ থেকেই ব্যবহারের অতিরিক্ত বিল আদায় করা হবে না। এই লক্ষ্যে কাজ করা হচ্ছে।

অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিলের জন্য দুঃখ প্রকাশ করে সুলতান আহমেদ আরো বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে বিদ্যুৎ বিভাগের মিটার রিডাররা গ্রাহকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে মিটার দেখে বিদ্যুতের রিডিং সংগ্রহ করতে পারেনি। তাই এ ধরনের গড়মিলের সৃষ্টি হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, দেশে এখন পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিভাগের ৬০১ জন কর্মী প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন ১২ জন কর্মী।

এমএম/পাবলিকভয়েস

মন্তব্য করুন