করোনামুক্তির জন্য শুক্রবার সারাদেশে দোয়ার আহবান চরমোনাই পীরের

প্রকাশিত: ৯:০৭ অপরাহ্ণ, জুন ২৫, ২০২০

ইউসুফ পিয়াস : সারা বিশ্বকে বিপর্যস্ত করে দেয়া করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তির জন্য সারাদেশের খতিবদের প্রতি আগামীকাল শুক্রবার জুমার পরে বিশেষ দোয়া করার আহবান জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম। (পীর সাহেব চরমোনাই)

আজ বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) সন্ধ্যায় বরিশালের চরমোনাই মাদরাসা থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিশেষ এক লাইভে এসে তিনি এ আহবান জানান।

তিনি বলেন, দেশে বর্তমান করোনা পরিস্থিতি আল্লাহর পক্ষ থেকে একটা পরীক্ষা তাই এই করোনাভাইরাস ‍থেকে মুক্তির জন্য আল্লাহর সাহায্য ছাড়া কোন বিকল্প নেই। সবাইকে তাওবা ইস্তেগফার করে আল্লাহর পথে ফিরে আশার আহবান জানান তিনি।

ফেসবুক লাইভে বক্তব্য রাখছেন মুফতী সৈয়দ রেজাউল করীম। ছবি : সংগ্রহীত।

সরকরের ব্যর্থতার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতি অন্যদেশের তুলনায় বাংলাদেশের সরকার একটা ব্যর্থ সরকারের পরিচয় দিয়েছে। করোনা নিয়ন্ত্রনের যার ব্যর্থতার প্রকাশ জণগনের সামনে উন্মচিত হয়েছে। তিনি বাংলাদেশ সরকারকে জনগনকে করোনাভাইরাস থেকে বাঁচাতে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়ার আহবান জানান। এবং পাশাপাশি দুর্নীতিবাজ জনপ্রতিনিধির আইনের আওতায় এনে সর্বোচ্ছ শাস্তি দেওয়ার অনুরোধ জানান।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ জানিয়ে চরমোনাই পীর বলেন, করোনা পরিস্থিতে অসহায় মানুষদের প্রতি আপনাদের যে ভালোবাসা প্রকাশ পেয়েছে এবং আপনাদের আর্থিক সহযোগিতা, কৃষকের দান কেটে সহযোগিতা এবং করোনায় মৃত ব্যক্তিদের লাশ দাফন করে সারাদেশে যে উজ্জল দৃশ্টান্ত স্থাপন করেছেন তা এদেশের জনগন কেয়ামত পর্যন্ত আপনাদের ভালোবাসবে।

পাশাপাশি দেশের জনগনের দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি বলেন আপনারাও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সাথে একসাথ হয়ে দেশ ও জাতির খেদমতে নিজেকে নিয়োজিত করুন।

  • অপরদিকে মিডিয়ায় পাঠানো এক বিবৃতিতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী সৈয়দ রেজাউল করীম বলেছেন – করোনা পরিস্থিতিতে দেশের লাখ লাখ শ্রমিক বেতন না পেয়ে, চাকুরি হারিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। হাজার হাজার শ্রমিক করোনা পরিস্থিরি মধ্যেও বেতন ভাতার জন্য রাজপথে বিক্ষোভ করছে।

শ্রমিকদের অধিকার নিয়ে মালিকপক্ষ অমানবিক ও প্রতারণাপূর্ণ আচরণ করছে। এমন পরিস্থিতিতে শ্রমিকদের অধিকার আদায়ে সরকারের কার্যকর উদ্যোগ দেখা যায় না বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে পোশাক কারখানার শ্রমিকদের তিন মাসের বেতনের জন্য পাঁচ হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা দেয়া হলেও মালিকপক্ষ শ্রমিকদেরকে বঞ্চিত রেখে নিজেরাই এর সুফল ভোগ করছে। নানা অজুহাত হাজির করে গণহারে ছাঁটাই করেছে এবং অনেক শ্রমিক গত দুই-তিন মাস যাবত বেতন পাচ্ছে না। কারখানা চালু বা বেতন পাওয়ার আশায় এসব শ্রমিক কয়েক মাস ধরে ধার-দেনা ও খেয়ে-না খেয়ে বহু কষ্টে দিন কাটাচ্ছে। তিনি বলেন, শ্রমজীবী মানুষের সাথে মালিকদের প্রতারণা কোনভাবেই মেনে নেয়ার মত নয়।

ইসলামী আন্দোলনের আমীর বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে যেখানে কর্মহীনদের জন্য কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করার কথা সেখানে কর্মজীবীদের তথা গার্মেন্টর্স শ্রমিকদের ছাটাই করে দুর্ভোগ সৃষ্টি করছে। যা কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না। পীর সাহেব চরমোনাই শ্রমিক জনতার পক্ষে অবস্থান নিয়ে তাদের বেতন-ভাতা আদায়ে কার্যকরী উদ্যোগ নিতে হবে এবং শ্রমিক ছাটাই বন্ধ করতে হবে।

#আরআর/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন