স্মার্টফোনেই মিলবে এনআইডি সংক্রান্ত যাবতীয় সেবা

প্রকাশিত: ১০:৫১ অপরাহ্ণ, জুন ১৪, ২০২০

আর নির্বাচন কার্যালয়ে নয়। এখন থেকে ঘরে বসেই জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) সংক্রান্ত সেবা মিলবে স্মার্টফোন বা কম্পিউটারে।

এনআইডি সংক্রান্ত সেবা কার্যক্রমের গতি বাড়ানোর লক্ষ্যে কার্ড ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (সিএমএস) সফটওয়্যারের ওপর তিন সপ্তাহব্যাপী প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শেষে এ তথ্য জানায় নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

জাতীয় পরিচয়পত্রের আবেদনের ক্ষেত্রে ব্যক্তির তথ্য সংযোজন-বিয়োজন, যাচাই-বাছাই, ভোটার হিসেবে নতুন জাতীয় পরিচয় পত্রের আবেদন, সংশোধন, হারিয়ে যাওয়া কার্ড উত্তোলন ও ব্যক্তির ঠিকানা পরিবর্তন যে নতুন সফটওয়ারের মাধ্যমে করা হয়, সেটাই কার্ড ম্যানেজম্যেন্ট সিস্টেম (সিএমএস) সফটওয়্যার।

এনআইডি অনুবিভাগের কমিউনিকেশন শাখার অফিসার ইনচার্জ স্কোয়াড্রন লিডার কাজী আশিকুজ্জামান জানান, আগে জাতীয় পরিচয়পত্রের যেকোনো ধরনের আবেদনের ক্ষেত্রে ব্যক্তিকে নির্বাচন অফিসে আসার বাধ্যবাধকতা ছিল। অনলাইন পদ্ধতি চালু হওয়ার ফলে একজন নাগরিক বাড়িতে বসেই নিজের ব্যবহৃত কম্পিউটার অথবা স্মার্টফোন ব্যবহার করে নতুন ভোটার হওয়া থেকে শুরু করে যেকোনো প্রকার সংশোধনী ও হারানো কার্ডের আবেদন পূর্বক, জাতীয় পরিচয়পত্রের অনুরূপ কপি ডাউনলোড করতে পারবেন। এরফলে করোনার এই দুর্যোগে যেমন সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত হবে, তেমনি জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার করে সরকারি-বেসরকারি নানা সেবা নিতে পারবে একজন নাগরিক। এজন্য (https://services.nidw.gov.bd) লিংকে গিয়ে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে সেবা প্রত্যাশীকে।

গত ২০ মে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদা ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে এই প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের উদ্বোধন ঘোষণা করেন। প্রশিক্ষণটির সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন এনআইডি অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম।

প্রশিক্ষণে ফ্যাসিলিটেটর ছিলেন ৬৯ জন। এতে ১০ জন আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসার, অতিরিক্ত আঞ্চলিক, অতিরিক্ত জেলা, সিনিয়র জেলা নির্বাচন ও জেলা নির্বাচন অফিসার ৯৯ জন, উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিসার ৪৮৮ জন, ডাটা এন্ট্রি অপারেটর ও অফিস সহকারী এক হাজার ৬৯৪ জনসহ মোট দুই হাজার ৩৬০ কর্মকর্তা-কর্মকর্তা অংশ নেন।

ইতোমধ্যে অনলাইনে এনআইডি সংক্রান্ত সেবা চালু হয়েছে। এতে ঘরে বসেই এনআইডি পেয়েছেন ১০ লাখ নাগরিক। প্রশিক্ষণের ফলে এই সেবা আরও ত্বরান্বিত হবে।

ইসির এনআইডি অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাইদুল ইসলাম বলেন, লকডডাউনের সময় অনেক অফিস বন্ধ ছিল। কিন্তু নির্বাচন কমিশনের সেবা বন্ধ ছিল না। আমরা অনলাইনে মানুষকে সেবা দিয়েছি। এনআইডি সেবা মানুষের দৌড়গোড়ায় কেবল নয়, হাতের মুঠোয় পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছি আমরা।

এমএম/পাবলিকভয়েস

মন্তব্য করুন