৩০০ টাকায়ও ব্রয়লার মুরগি পাওয়া যাবে না

প্রকাশিত: ১২:০৪ অপরাহ্ণ, মে ২৩, ২০২০

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বিশাল অর্থনৈতিক ক্ষতিতে পড়েছে দেশের পোল্ট্রি শিল্প। ব্যবসায় লস হওয়ার শঙ্কায় নতুন করে কেউ আর খামারে ব্রয়লার মুরগি তুলছেন না। যেগুলো আছে সেগুলো লস রেখেই বিক্রি করে দিচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। এভাবে চললে আর কিছুদিন বাদে বাজারে আর কোনো ব্রয়লার মুরগি পাওয়া যাবে না।

গত ২২ এপ্রিল দেশের বিভিন্ন ফার্মে প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি ৪০-৪৫ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। সেই মুরগির দাম এক মাসের ব্যবধানে আজ ২২ মে ১৯০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। বেশিরভাগ খামারেই এখন আর মুরগি নেই। ফলে আর কিছুদিন বাদে হয়তো ৩০০ টাকা কেজিতেও মুরগি মিলবে না।

একই অবস্থা বাচ্চা উৎপাদনকারী খামারগুলােতেও। সেখানে মুরগির বাচ্চার তেমন বেচাকেনা নেই। যা আছে সেগুলো ১০-১২ টাকা লস দিয়ে বিক্রি করতে হচ্ছে। ফলে নতুন করে আর বাচ্চা উৎপাদন করছেন না কেউ। ফ্রি বাচ্চা দিতে চাইলেও অনেক খামারি নিতে চায় না। তাই কোনো উপায় না পেয়ে লাখ লাখ বাচ্চাদের মেরে ফেলতে হয়েছে।

দেশে করোনার শুরুর দিন থেকেই এই শিল্পে লস দেখা দেয়। বেচাকেনা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় পথে বসে গেছে হাজারো খামারি। সরকারের পক্ষ থেকে পোল্ট্রি খাতে প্রণোদনার ঘোষণা দেয়া হলেও সে সম্পর্কে অনেকেই জানেন না। এই টাকা কিভাবে পাবেন তারা কিছুই জানেন না। প্রশাসনের পক্ষ থেকেও কোনো যোগাযোগ করা হয়নি।

এ বিষয়ে গাজীপুর, যশোর, টাঙ্গাইলসহ বেশ কয়েকটি জেলার খামারিরা জানান, ব্যবসা না থাকায় খামার খালি পড়ে আছে। করোনার শুরুতে কয়েক লাখ টাকা লোকসান দিয়ে মুরগিগুলো বিক্রি করে দিতে হয়েছে। ডিমের দাম কমে যাওয়ায় ডিম পাড়া মুরগিও বিক্রি করে দিতে হয়েছে। প্রতি কেজি মুরগিতে খরচ হয়েছে ১০০-১১০ টাকা। আর বিক্রি করতে হয়েছে ৪০-৪৫ টাকা করে।

খামারে মুরগি কমে যাওয়ায় এখন প্রতি কেজি ১৭০ থেকে ১৮০ টাকা করে কিনে খেতে হচ্ছে। এগুলো শেষ হলে ৩০০ টাকা কেজিতেও মুরগি কিনতে পাওয়া যাবে না। কারণ আশপাশে যতো ফার্ম ছিল সব বন্ধ হয়ে গেছে। পরিস্থিতি ভালো না হওয়া পর্যন্ত খামারিরা মুরগি তুলতে চাচ্ছেন না।

বিষয়টি নিয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক (প্রজনন) একেএম আরিফুল ইসলাম বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত পোল্ট্রি খামারিদের তালিকা করতে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে। তাই এখন তালিকা তৈরি করছি। কিন্তু কীভাবে প্রণোদনা দেয়া হবে সে ব্যাপারে এখনো স্পষ্ট কোনো নির্দেশনা আসেনি।

এমএম/পাবলিকভয়েস

মন্তব্য করুন