১৭ লাখ টাকায় মুশফিকের ব্যাট কিনে নিলেন শহীদ আফ্রিদি

প্রকাশিত: ৩:১৩ পূর্বাহ্ণ, মে ১৬, ২০২০

বাংলাদেশ ক্রিকেটের ভদ্র ও সবচেয়ে জনপ্রিয় ক্রিকেটারের মধ্যে অন্যতম মুশফিকুর রহিমের দেশকে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি উপহার দেওয়া ঐতিহাসিক ব্যাটটি নিলামে বিক্রি হয়েছে করোনাভাইরাস মহামারিতে অসহায়দের সাহায্য করার জন্য।

ব্যাটটি নিলামে রেকর্ড পরিমান অর্থ দিয়ে কিনে নিয়েছেন পাকিস্তানের জনপ্রিয় ও বিশ্বের প্রথম সারীর ক্রিকেটার শহীদ আফ্রিদি। বাংলাদেশ ক্রিকেটের অসাধারণ এক ইতিহাসের স্বাক্ষী এই ব্যাট এখন শোভা পাবে শহীদ আফ্রিদির ঘরে। ২০ হাজার ডলার (প্রায় ১৭ লাখ টাকায়) মুশফিকের ঐতিহাসিক ব্যাটটি কিনে নিয়েছেন শহীদ আফ্রিদি। আফ্রিদির সঙ্গে এই ব্যাটের নিলামে মধ্যস্থতা করেছেন মুশির প্রিয়বন্ধু ও বাংলাদেশের আর এক তারকা ক্রিকেটার তামিম ইকবাল।

ব্যাট ক্রয় করা সম্পর্কে শাহীদ আফ্রিদি এক ভিডিও বার্তায় বলেন, মুশফিকুর রহিম যা করছে তা একজন রিয়েল লাইফ হিরোর কাজ। করোনা মহামারীর এই সময়ে মানুষের পাশে দাঁড়ানো রিয়েল লাইফ হিরোদের কাজ। আমি শহীদ আফ্রিদি এবং শহীদ আফ্রিদি ফাউন্ডেশন এর পক্ষ থেকে মুশফিকের প্রতি অভিনন্দন জানাই। এবং বাংলাদেশ থেকে আমার প্রতি যে ভালোবাসা প্রকাশ করা হয়েছে এবং বাংলাদেশ থেকে আমি যে ভালোবাসা পেয়েছি তার সামান্য প্রতিদান স্বরূপ মুশফিকুর রহিমের এই ঐতিহাসিক ব্যাটটি আমি কিনে নিলাম। এই টাকা অবশ্যই বাংলাদেশের অসহায় মানুষের কাজে ব্যবহৃত হবে জেনে আমি আনন্দিত হচ্ছি।

করোনাভাইরাসের প্রকোপ শুরু হওয়ার পর থেকে নিজের ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে আফ্রিদি প্রচুর ত্রাণ কার্যক্রম চালিয়ে আসছেন পাকিস্তানের নানা প্রান্তে। এই ব্যাটও কিনেছেন তার ফাউন্ডেশনের মাধ্যমেই। ২০১৩ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গলে এই ব্যাট দিয়ে ২০০ রানের ইনিংস খেলেছিলেন মুশফিক।

শুক্রবার রাতে ব্যাট নিলামে বিক্রি হওয়ার পর মুশফিক বলেছেন, ”আমি অনেক আগে থেকেই আফ্রিদির অনেক বড় ফ্যান। বিপিএলে এক দলে খেলেছি, বিপক্ষে দলে তো খেলেছিই। তার সঙ্গে আমাদের ভালো স্মৃতি আছে অনেক। পিএসএলে খেলার সময়ও কথা হয়েছে। ভালো বোঝাপড়া আছে। তার ফাউন্ডেশন অনেক দিন থেকে কাজ করছে। করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতেও পাকিস্তানসহ নানা জায়গায় সহায়তা কার্যক্রম উনার মতো চালিয়ে আসছেন। এত বড় ব্যক্তিত্ব এই সহায়তা করেছেন, তাতে আমি সম্মানিত। যত টাকাই হয়েছে, বিভিন্ন সোর্সের মাধ্যমে যত দ্রুত সম্ভব পাঠিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করব যেন মানুষের জন্য কাজে লাগানো যায়। আমরা আমাদের মতো চেষ্টা করছি। আশা করি, সামর্থ্যবান সবাই মানুষের পাশে দাঁড়াবেন।’

তবে মুশফিকুর রহিমের এই ব্যাট বিক্রি নিয়ে কিছু লজ্জাজনক ঘটনাও ঘটেছে। অনেকটাই নাটকীয়তাপূর্ণ অবস্থান এর সৃষ্টি হয়েছে। বেশ কিছুদিন আগ থেকেই যখন মুশফিকুর রহিমের ব্যাট নিলাম করে অসহায় মানুষদের সাহায্য করার কথা বলা হচ্ছিল তখন থেকেই এই ব্যাট ক্রয়ের জন্য অনেকেই বিড করে যাচ্ছিলেন। তবে সেই বিড করার মধ্যে ভুয়া এবং ধোঁকাবাজি করার ঘটনাও ঘটেছে যা প্রচন্ড মর্মাহত করেছে মুশফিকুর রহিমকে এবং তিনি তা জানিয়েছেনও।

গত শনিবার শুরু হওয়া অনলাইন নিলামে ভুয়া বিডিং করে ঝামেলার সৃষ্টি করেছিল কিছু বিবেকহীন লোক। তাদের প্রতি ধিক্কার জানিয়ে ‘মি. ডিপেন্ডেবল’ মুশফিকুর রহিম বলেছেন, ‘এমন একটা মহৎ কাজে যারা ভুয়া বিড করেছেন, আমি তাদের ধিক্কার জানাতে চাই। আপনারা শুধু আমার নামকে ছোট করেননি, বাংলাদেশের ক্রিকেটকে ছোট করেছেন, দেশকে ছোট করেছেন।

জানা যায়- এতদিন ৪০ লাখ ৪১ লাখ পর্যন্ত বিড হয়েছে। বিভিন্ন ভুয়া পরিচয়েও অনেক বিড হয়েছে। শেষ পর্যন্ত নিলাম স্থগিত করে এর নিয়মে পরিবর্তন আনা হয়। শেষ পর্যন্ত যে মানুষটি মুশফিকের ব্যাট কিনে নিয়েছেন, তিনি নিজেই মহাতারকা। পাকিস্তানের সাবেক সুপারস্টার শহীদ আফ্রিদি।

#আরআর/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন