সংসদে মুনাজাতকে সাধুবাদ: সুস্থদের জন্য মসজিদ উন্মুক্তের দাবি খেলাফতের

করোনাভাইরাস পরিস্থিতি

প্রকাশিত: ৮:০০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৯, ২০২০

জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রী ও অন্যান্য সাংসদদের মহান আল্লাহর দরাবারে প্রার্থনা করে মুনাজাতের প্রশংসা করে সুস্থ মুসুল্লিদের জন্য মসুজিদ উন্মুক করে দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের আমীরে শরীয়ত হাফেজ মাওলানা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী।

সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, দেশের শীর্ষ আলেমদের সম্মিলিত দাবী মেনে মসজিদ খুলে দিন। আল্লাহর রহমত ব্যতিত করোনা মহামারী থেকে মুক্তি সম্ভব নয়।

আজ রোববার (১৯ এপ্রিল) সকালে কামরাঙ্গীরচরস্থ জামিয়া নূরিয়ায় রাজধানীর বিভিন্ন স্থান থেকে আগত আলেম ও ইমামদের সাথে ভিন্ন ভিন্নভাবে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

আতাউল্লাহ হাফেজ্জী বলেছেন, মহামারি, দূর্যোগ, বিপদ-আপদ আল্লাহর পক্ষ থেকে আসে এবং আল্লাহর হুকুমেই এসব বিপদ থেকে মানুষ মুক্তি পায়। করোনাভাইরাস মহামারী থেকে মুক্তি পেতে সকলে আল্লাহর কাছে আত্মসমর্পন, তওবা-ইস্তেগফার, ক্ষমা প্রার্থনা ও পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায়সহ অধিক পরিমাণে ইবাদত-বন্দিগীতে লিপ্ত থাকতে হবে।

এ বাস্তব সত্য উপলব্ধি করতে পেরে আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জাতীয় সংসদে সকল সদস্যদেরকে নিয়ে মহামারি থেকে মুক্তির জন্য মহান আল্লাহর দরবারে মুনাজাত করেছেন এবং দেশবাসিকে আল্লাহ মুখি হওয়া জন্য আহবান জানিয়েছেন। সংকটকালের এ মহান উদ্যোগ ও আহবান জাতি চির দিন স্মরণ রাখবে।

তিনি আরো বলেন, আল্লাহর বিশেষ রহমত অর্জন এবং আল্লাহর গজব করোনা মহামারী থেকে মুক্তি লাভের জন্য সংখ্যার শর্ত তুলে দিয়ে স্বল্প সময়ের জন্য সুস্থ মুসল্লিদেরকে মসজিদে জামাতে নামাজ পড়ার সুযোগ কর দেয়া সরকারের নৈতিক দায়িত্ব। এ মহৎ উদ্যোগ আল্লাহর রহমতকে তরান্বিত করবে এবং করোনা গজব দূর করবে এবং দেশ ও জাতির জন্য কল্যান বয়ে আনবে ইনশাআল্লাহ।

এসময় খেলাফত আন্দোলনের মহাসচিব মাওলানা হাবীবুল্লাহ মিয়াজী বলেন, যেহেতু সংখ্যা নির্ধারণ ছাড়া হাট-বাজার, ব্যাংক ইত্যাদি খোলা আছে, তাই মহামারী থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য ও আল্লাহর রহমতের আশায় শর্তহীনভাবে সুস্থ্য মানুষের জন্য মসজিদ উন্মুক্ত রাখাই যুক্তিযুক্ত ও ঈমানের দাবী।

আশাকরি, ওলামা-মাশায়েখ, মুফতিয়ানে কেরাম ও মুসলিম জনতার এ প্রাণের ও ঈমানের দাবীর প্রতি সরকার শ্রদ্ধাশীল হবেন এবং মসজিদে জুমা , পাচ ওয়াক্ত নামাজ ও তারাবি আদায়ের সুযোগ করে দিবেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- হাফেজ্জী হুজুর রহ. এর খলিফা শায়খুল হাদিস মাওলানা সোলায়মান নোমানী, শায়খুল হাদীস মাওলানা ইসমাঈল বরিশালী, শায়খুল হাদীস শেখ আজীমুদ্দীন, জামিয়ার নুরিয়ার প্রধান মুফতি, মুফতি মজিবুর রহমান, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মহাসচিব মাওলানা হাবীবুল্লাহ মিয়াজী, নায়েবে আমীর মাওলানা মুজীবুর রহমান হামিদী, সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতি সুলতান মহিউদ্দীন, জাতীয় ইমাম সমাজ বাংলাদেশের মুফতি ইলিয়াস মাদারীপুরী, জাতীয় ইমাম পরিষদ বাংলাদেশের মহাসচিব মুফতি আ ফ ম আকরাম হুসাইন, মুফতি আল আমিন, মাওলানা জাকির হুসাইন, মাওলানা ওমর ফারুক, মাওলানা নজরুল ইসলাম, মুফতি মোহাম্মদুল্লাহ নোমানী, মুফতি জাকির বিল্লাহ প্রমুখ।

মসজিদ ও জামাত নিয়ে আল্লামা মিজানুর রহমান সাঈদ এর লিখিত বক্তব্য

মসজিদে নামাজ বিষয়ে সরকারকে আলেমদের সর্বসম্মত ৪ পরামর্শ

/এসএস

মন্তব্য করুন