করোনার এই বিপদেও গাজা উপত্যকার অবরোধ শিথিল করেনি ইহুদীবাদী ইসরাইল

প্রকাশিত: ১২:১৮ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৮, ২০২০
ছবি : আল জাজিরা

দীর্ঘ সময় ধরে মধ্যপ্রাচ্যের বিষফোঁড়াখ্যাত ইহুদীবাদী রাষ্ট্র ইসরাইলের আরোপিত অবরোধ অঞ্চল ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় দুজন করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীর খবর নিশ্চিত করা হয়েছে গত রবিবার। ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় সূত্রে জানিয়েছেন, ঘনবসতিপূর্ণ গাজা উপত্যকায় করোনাভাইরাসের প্রথম দুটি ঘটনা নিশ্চিত হয়েছে। খবর রয়টার্সের।

আক্রান্ত দুজন ফিলিস্তিনি পাকিস্তান থেকে গাজা উপত্যকায় প্রবেশ করেছিলো এবং তাদের করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। তবে তাদেরকে গাজায় কারো সাথে মিশতে দেওয়া হয়নি এবং তারা মিশরীয় সীমান্তের নিকটে অবস্থিত রাফাহ অঞ্চলে পৃথক অবস্থায় ছিলেন।

কিন্তু কোনভাবে যদি গাজা উপত্যকায় করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে তখন ভয়াবহ বিপর্যয় হবে বলেই মনে করছেন স্বাস্থ্যবীদরা।

কারন ফিলিস্তিনের গাঁজা উপত্যকায় এখনও সমানতালে অবরোধ চালিয়ে যাচ্ছে ইহুদীবাদী রাষ্ট্র ইসরাইল। তারা করোনাভাইরাসের এই বৈশ্বিক মহামারীর সময়ও গাঁজা উপত্যকার অবরোধে কোনরুপ শিথিলতা আরোপ করেনি।

ফলে ভঙ্গুর স্বাস্থ্যব্যবস্থা ও অপরিণত সতর্ক অবস্থার কারনে করোনাভাইরাস ইস্যুতে হুমকিতে আছে গাজা উপত্যকা। প্যালেস্টাইনের গাজা উপত্যকার অবরোধ আরোপ করা অঞ্চলটিতে ২০ লাখ জনসংখ্যার বসবাস। ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রীয় সূত্রমতে, অঞ্চলটির স্বাস্থ্য ব্যবস্থা অত্যন্ত দুর্বল কারন এখানে দুই মিলিয়ন বাসিন্দার জন্য মাত্র ৬০ শয্যাবিশিষ্ট একটি অস্থায়ী হাসপাতাল রয়েছে।

ইসরাইলের এই নিষেধাজ্ঞার কারনে গাজা উপত্যকার স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে আরও বিপদে ফেলতে পারে। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন যে, এই দরিদ্র অঞ্চলটি শ্বাসকষ্ট এবং করোনার মত রোগীদের চিকিৎসা দেওয়ার মত যন্ত্র ও ব্যবস্থাপনা সরবরাহের ক্ষেত্রে মারাত্মক ঘাটতিতে রয়েছে।

এ বিষয়ে তুরস্কের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম আনাদুলু এজেন্সি গাজা উপত্যকার একটি সরেজমিন প্রতিবেদন করেছেন, আনাদুলু এজেন্সির সাথে কথা বলে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ বিভাগের পরামর্শক ও পরিচালক রমি আবাদলা বলেছেন, ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় বিভিন্ন সরকারী হাসপাতাল থেকে কিছু চিকিৎসা সামগ্রি অস্থায়ী একটা হাসপাতালে স্থানান্তর করেছে, যেখানে রোগীদের জন্য নয়টি আলাদা কোয়ারেন্টাইন রুম রয়েছে।

তবে গাজার হাসপাতালগুলিতে কোনও করোনভাইরাস রোগীর চিকিতসার জন্য প্রাথমিক চিকিতসা সুবিধার অভাব রয়েছে। যদি করোনাভাইরাসের সংক্রামন শুরু হয় এখানে তাহলে এখানে চিকিতসা ব্যবস্থা ব্যর্থ হবে এবং অবরোধ আরোপিত অঞ্চলটিতে মারাত্মক ঝুকিতে পড়বে। তাছাড়া অন্যায়ভাবে আরোপিত ইসরাইলের বিধিনিষেধের কারণে হাসপাতালগুলির জীবাণুমুক্ত সরঞ্জাম এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় মেডিকেল সামগ্রির ঘাটতি রয়েছে, “তিনি বলেছিলেন।

গাজা ভিত্তিক ফিলিস্তিনি সেন্টার ফর হিউম্যান রাইটস (পিসিএইচআর) আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে “খুব দেরী হয়ে যাওয়ার আগে” স্বাস্থ্য ব্যবস্থার হস্তক্ষেপ ও সংরক্ষণে সহায়তা করার আহ্বান জানিয়েছেন।

এদিকে কাতার সরকার গাজা উপত্যকায় ১৫০ মিলিয়ন ডলার আর্থিক সহায়তা দিয়েছে, যা করোনা ভাইরাস মহামারীকে প্রতিরক্ষা করতে আগামী ছয় মাসের মধ্যে কাজে লাগানো হবে। কর্তৃপক্ষ গাজার রাফা অঞ্চলে ৫০০ জন ধারণক্ষমতা সম্পন্ন একটি কোয়ারেন্টাইন ইউনিট তৈরির পরিকল্পনা করছে।

অরদিকে ইসরাইলে করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৩,০৩৫ জনে পৌঁছেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৪২ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে এবং শুক্রবার আরও চারজন করোনা আক্রান্তের রোগী মারা গিয়ে ইসরাইলে মৃত্যুর সংখ্যা দাড়িয়েছে ১২ জনে। এছাড়াও ইসরাইলে ৪৯ জন রোগীর অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছে তারা।

প্রসঙ্গত : চীনের উহান প্রদেশ থেকে শুরু হওয়া করোনাভাইরাসের সংক্রামন এখন বিশ্বের প্রায় ১৭৬ টি দেশে ছড়িয়েছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের সংকলিত তথ্যে দেখা গেছে, বিশ্বব্যাপী নিশ্চিত হওয়া মামলার সংখ্যা ৫,৭৫,৭৬৭ ছাড়িয়ে গেছে, আর মৃত্যুর সংখ্যা ২৬,৪০৭ এরও বেশি এবং ১,২৯,৯৮৮ এরও সুস্থ হয়ে ফিরেছেন। এর মধ্যে আমেরিকা করোনা আক্রান্ত রোগী রয়েছে ৮৫,৯৯১ জন যা কোন একক দেশ হিসেবে বিশ্বের সর্বোচ্চ এরপর চীন রয়েছে ৮১,২৮২ জন এবং ইতালিতে ৮০,৫৯৯ জন।

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত সর্বমোট রোগীর সংখ্যা নতুন চারজনসহ মোট ৪৮ জন। মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৫ জন। এবং আক্রান্তদের মধ্যে ১১ জন রোগী সুস্থ হয়ে ফিরে গেছেন বলে জানিয়েছে জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)।

সূত্র : আনাদুলু, আল জাজিরা, রয়টার্স

মন্তব্য করুন