সীমিত আয়ের মানুষকে কিনতে দিন, বিত্তবানরা এগিয়ে আসুন: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ৮:০৫ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৫, ২০২০

শাহনূর শাহীন, পাবলিক ভয়েস, লাইভ থেকে: বিত্তবানদের প্রতি সীমিত আয়ের মানুষকে কেনা-কাটা করতে দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিত্তবানদের প্রতি প্রয়োজনের অতিরিক্ত কেনা-করে কোনো পন্য মজুদ না করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

সীমিত আয়ের মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিত্তবানরা এগিয়ে আসুন। সীমিত আয়ের মানুষের পাশে দাঁড়ান। সাধ্যমতো সহযোগিতা করুন। প্রয়োজনের অতিরিক্ত পণ্য ক্রয় করবেন না। সীমিত আয়ের মানুষকে কেনা-কাটা করার সুযোগ দিন।

বিশ্বব্যাপী মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে সৃষ্ট বিপর্যয়ের বাংলাদেশের সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

আজ বুধবার (২৫ মার্চ) সন্ধা সোয়া ৭টা ২০ মিনিটে গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে লাইভে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে আসেন শেখ হাসিনা।

ভাষণে করোনাভাইরাসে সৃষ্ট বিপর্যয়ে সরকারের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপ ‍তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী। এসময় তিনি ব্যাংক-এনজিওর ৬ মাসের লোনের কিস্তি স্থগিত, ব্যাংকিং লেনেদেনের সীমা বৃদ্ধি, ২৬ মার্চ থেকে ০৪ এপ্রিল পর্যন্ত ১০ দিনের সাধারণ ছুটি, চিকিৎসকদের জন্য চিকিৎসা সরঞ্জাম আমদানিসহ বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা উল্লেখ্য করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, নিম্ন আয়ের ব্যক্তিদের ‘ঘরে-ফেরা’ কর্মসূচির আওতায় নিজ নিজ গ্রামে সহায়তা প্রদান করা হবে। গৃহহীন ও ভূমিহীনদের জন্য বিনামূল্যে ঘর, ৬ মাসের খাদ্য এবং নগদ অর্থ প্রদান করা হবে। জেলা প্রশাসনকে এ ব্যাপারে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী- ব্যবসায়ীদের জন্য ৫ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেন। প্রণোদনা তহবিল থেকে ব্যবসায়ীরা শ্রমিকদের বেতন পরিশোধ করার সুুযোগ পাবেন।

২৩ মিনিটের এ ভাষণে প্রধানমন্ত্রী দেশবাসীকে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক হওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, করোনাভাইরাস যতোটা দ্রুত ছড়ায় ততোটা প্রাণঘাতী নয়। কোয়ারেন্টিনের মাধ্যমেই এর অধিকাংশ রোগী সুস্থ হয়ে ওঠেন। তবে বয়স্ক এবং পূর্ব থেকে অন্যন্য জটিল রোগে আক্রান্তরা গুরুতর অবস্থায় পৌঁছেন। এজন্য সবাইকে সচেতন হতে হবে যাতে এটা না ছড়িয়ে যায়।

এসময় মুসুল্লিদেরকে ঘরে নামাজ পড়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মুসলমান ভাইরা ঘরে নামাজ পড়ার চেষ্টা করুন। অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদেরও ঘরে বসে প্রার্থনা করার অনুরোধ করছি।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাস মোকাবেলা একটা যুদ্ধ। আমরা এ যুদ্ধে জয়ী হবো ইনশাআল্লাহ। আমি আবারো বলছি, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। সবাই যার যার ঘরে থাকুন, ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন, নিরাপদ থাকুন। মহান আল্লাহ আমাদের সহায় হোন।

/এসএস

মন্তব্য করুন