কিস্তি নয়, মানুষকে চাল-ডাল দিয়ে সহযোগিতা করুন: ব্যারিস্টার সুমন

করোনাভাইরাস

প্রকাশিত: ১১:৩৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৫, ২০২০
নিজ বাড়িতে লাইভে ব্যারিস্টার সুমন

শাহনূর শাহীন, পাবলিক ভয়স: কোনো ব্যাংকের কিস্তি না দেওয়ার জন্য দেশবাসীকে আহ্বান জানিয়েছেন, বিশিষ্ট আইনজীবি ও সামাজকর্মী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। কিস্তি না দেওয়ার কারণে সারাদেশে কারো কোনো আইনী সহযোগীতা প্রয়োজন হলে সেটা তিনি করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

আজ বুধবার হবিগঞ্জে হোমকোয়ারেন্টাইনে থেকে নিজের বাড়ির ছাদে দাঁড়িয়ে ফেসবুক লাইভে এসে এই ঘোষণা দিয়েছেন ব্যারিস্টার সুমন।

এছাড়াও ক্ষুদ্রঋণ কাযক্রম পরিচালনাকারী বিভিন্ন ব্যাংক কর্তৃপক্ষকেও কিস্তি না নিয়ে বরং মানুষকে চাল-ডাল ও প্রয়োজনীয় পণ্য, নগদ অর্থ দিয়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

ব্যারিস্টার সুমন বলেন, আপনারা জানেন করোনায় বিপর্যস্ত সারা পৃথিবী। বাংলাদেশও এর বাইরে নেই। বাংলাদেশ পুরো লকডাউনে। কিন্তু আজকে একটা সংবাদ পেয়ে খারাপ লাগলো। গ্রামীণ ব্যাংক সাধারণ মানুষের কাছে এখনো কিস্তি নিচ্ছে। আমার আশ্চার্য লাগে প্রধামন্ত্রী বলার পরও কীভাবে তারা কিস্তি নেয়।

তিনি বলেন, গ্রামীণ ব্যাংক তো সেই লোকের সাথে জড়িত; ড. মোহাম্মদ ইউনুস, যিনি নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন। হিলারি ক্লিনটনের নির্বাচনীয় ফান্ডে তিনি ২০ লক্ষ ডলার দিয়েছিলেন। টাকা থাকলে দেন আপনি, দেশি বিদেশী যাকে ইচ্ছা সাহায্য সহযোগিতা করেন। যে গ্রামীণ ব্যাংকের কারণে আপনি (ড. ইউনুস) নোবেল পুরস্কার পেলেন সেই ব্যাংক আজকে কিস্তি নেয় এটা শুনতেও খারাপ লাগে।

আজকে তো আপনারা যারা এই গ্রামীণ ব্যাংক, আশা, ব্রাক- যারা ক্ষুদ্রঋনের কথা বলেন। ক্ষুদ্রঋণের ব্যবসা করে বৃহত সংগঠন করেছেন। দেশের মানুষের এই দুর্দশাকালীন সময়ে কিস্তি তো নিবেনই না বরং চাল-ডাল, তেল দিয়ে মানুষকে সহযোগিতা করবেন। সব কিছু কেন সরকারের ঘাড়ের ওপর দিচ্ছেন। সরকার তো এই ব্যবসা করেনাই।

  • সুমন বলেন, মানুষকে সহযোগিতার নামে আপনারা ব্যবসা করেছেন, সুদ নিয়েছেন, সুদ নিবেন, আগেও নিয়েছেন পরেও নিবেন এ ব্যাপারে আমার কোনো বক্তব্য নেই অন্তত এই আপদকালীন সময়েটা মানুষকে সহযোগিতা করেন।

হাজার হাজার কোটিও আপনাদের কাছে কম। এই আপদকালীন সময়ে আপনারা চাল-ডাল দিয়ে মানুষকে সহযোগিতা করেন। আপনার আজকে যেভাবে কিস্তির কথা বলে মানুষকে জড়ো করছেন; কে বলবে আপনার করোনাভাইরাস ছড়াচ্ছেন না? আপনাদের যেখানে সহযোগিতা করার কথা, তা না করে আপনার ভাইরাস ছড়াচ্ছেন।

ব্যারিস্টার সুমন আরো বলেন, ফেসবুক খুললে দেখা যায় সাধারণ মানুষরাই একে অন্যকে সহযোগিতা করছে। বড় বড় কোম্পানি, ব্যবসায়ীরা কোথায় গেলেন? আজকে বাংলাদেশে গার্মেন্টস থেকে শুরু মধ্যে বড় বড় কোম্পানি আছে। সারা পৃথিবীতে আটটা দশটা কোম্পানির মধ্যে আমাদের দেশের কোম্পানির নাম আছে কোথায় গেলেন আপনারা? মানুষকে সাহায্য করেন, মানুষের পাশে দাঁড়ান। আপনারা কেন বসে আছেন? বসে বসে কেন সরকারকে দোষ দিবেন?

সুমন বলেন, নোবেল আপনাদেরকে বিদেশীদের দেয়া লাগবে না, মানুষ আপনাদের হৃদয়ে জায়গা দিবে। দেশবাসীকে বলবো কোনো কিস্তি দিবেন। প্রধানমন্ত্রী বলে দিয়েছেন। কাউকে কিস্তি দিবেন না। আমি ব্যারিস্টার সুমন বলছি, আপনার কিস্তি দিবেন না। সারাদেশে যদি কোনো ধরণের আইনী সহযোগীতা লাগে, যদি বেঁচে থাকি আইনী সহযোগীতা করবো। কিস্তি নিতে যেই আসুক, কোম্পানীর মালিকও যদি আসে বাসা থেকে বের হবেন না।

পরিশেষে সবাইকে যে যার জায়গা থেকে অন্যের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে বলতে চাই, আপনাকে প্রমাণ করতে হবে আপনি কি আমাদের হৃদয়ে থাকবেন  নাকি আমরা মনে রাখবো দুঃসময়ে আপনি আমাদের পাশে ছিলেন না।

/এসএস

মন্তব্য করুন