মালয়েশিয়ায় আযহারীর মাহফিল : প্রবাসীদের ব্যাপক উপস্থিতি

প্রকাশিত: ১১:৪০ অপরাহ্ণ, মার্চ ৯, ২০২০

মালয়েশিয়ার বৃহৎ তাফসির মাহফিলে বয়ান করলেন বাংলাদেশে ওয়াজ-মাহফিল বন্ধ করে চলে যাওয়া আলোচিত ইসলামী বক্তা মিজানুর রহমান আজহারী।

গতকাল রোববার স্থানীয় সময় বিকাল ৪টায় রাজধানী কুয়ালালামপুর আমপাং পার্কের উইসমা এমসিএ কনভেনশন সেন্টারে এ তাফসির মাহফিল হয়। মালয়েশিয়া প্রবাসী কমিউনিটি এ মাহফিলের আয়োজন করে বলে জানা গেছে।

এদিন আজহারীর মাহফিলে প্রবাসীদের উপস্থিতি ছিলো চোখে পড়ার মত। মাহফিলে আগত প্রবাসীদের সামাল দিতে রীতিমতো হিমশিম খেতে হয় আয়োজকদের। ভিড় সামাল দিতে পুলিশের পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবীরাও কাজে করেন।

মাগরিবের নামাজ শেষে তাফসির পেশ করেন মিজানুর রহমান আজহারী। মাহফিলে আজহারী সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কোরআন সুন্নাহর পতাকাতলে আসার আহ্বান জানান। পরে মুসলিম উম্মাহর কল্যাণ কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। আয়োজদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘জায়গা সংকুলান না থাকায় দ্বিগুণ প্রবাসী চলে গেছে। আগামীতে আমরা আরো বড় পরিসরে প্রোগ্রাম করার চেষ্টা করব।

এই মাহফিল বিষয়ে মিজানুর রহমান আজহারী তার ফেসবুক প্রোফাইলে লেখেন, আলহামদুলিল্লাহ.. মালয়েশিয়া প্রবাসী কমিউনিটির আয়োজনে গতকাল কুয়ালালামপুরের উইসমা এম. সি. এ. কনভেনশন হলে মালয়েশিয়া প্রবাসীদের নিয়ে আমরা কুরআনুল কারীম থেকে তাফসির শুনেছি। প্রবাসে শুদ্ধ জীবন গঠনের লক্ষ্যে তাফসিরুল কুরআন মাহফিল গুলো আল্লাহ তায়ালার পক্ষ থেকে এক বিশেষ নেয়ামত।

পরিবার পরিজনহীন এ প্রবাস জীবনে কুরআনকে আমরা বন্ধু বানাতে চাই, নিত্যসঙ্গী করে কাছে রাখতে চাই, কুরআনের প্রকৃত শিক্ষাকে ধারণ করতে চাই এবং কুরআনময় করে রাখতে চাই আমাদের কমিউনিটির সকল তৎপরতা। ওয়া বিল্লাহিত্তাওফিক ওয়াল ইতমাম।

দিন রাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যারা এ প্রোগ্রামটি সার্থক করেছেন তাদেরকে আল্লাহ তায়ালা কবুল করুন। ম্যানেজমেন্ট, সিকিউরিটি ও ডিসিপ্লিন টীমের সবার জন্য রইল আন্তরিক দুয়া ও ভালোবাসা। হল রুমের ধারন ক্ষমতার কয়েক গুন বেশী শ্রোতা চলে আসায়, সবাইকে একমোডেট করা সম্ভব হয়নি। ফলে অনেক ভাইদেরকে ফিরে চলে যেতে হয়েছে। আল্লাহ তায়ালা তাদেরকেও উত্তম বিনিময় দান করুক।

প্রবাসীদের মাঝে ছড়িয়ে পড়ুক কুরআনের আলো। সুখী সমৃদ্ধ ও আলোকিত জীবনের অধিকারী হোক আমাদের প্রতিটি রেমিটেন্স ফাইটারের সংগ্রামী জীবন।

প্রসঙ্গত চলতি বছরের বছরের মার্চ পর্যন্ত বাংলাদেশে সব তাফসির কর্মসূচি স্থগিত করার ঘোষণা দিয়ে গবেষণার কাজে মালয়েশিয়ায় চলে যান আজহারী।

গত ২৯ জানুয়ারি তার ফেসবুক পেজে এক পোস্টে আজহারী লেখেন, ‘পারিপার্শ্বিক কিছু কারণে এখানেই এবছরের তাফসির প্রোগামের ইতি টানতে হচ্ছে। তাই, মার্চ পর্যন্ত আমার বাকি প্রোগ্রামগুলো স্থগিত করা হল। রিসার্চের কাজে আবারও মালয়েশিয়া ফিরে যাচ্ছি। আল্লাহ রাব্বুল আলামিন সুযোগ করে দিলে আবারও দেখা হবে ও কথা হবে ইনশাআল্লাহ।’

এরপর থেকে তিনি আর কোনো ওয়াজ মাহফিলে যাননি। আজহারী মালয়েশিয়া চলে যাওয়ার ঘোষণা দেয়ার পর তাকে নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনা শুরু হয়।

আযহারী বিষয়ক অন্যান্য সংবাদ :

আযহারীর মালয়েশিয়া যেতে বাধ্য হওয়ার দায় জামায়াতকেই নিতে হবে

জনপ্রিয়তা নয় আযহারীর মাসয়ালাগত ভুল বর্ণনাই বিরোধীতার কারণ : মুফতী মিছবাহ

মুহতারাম আযহারী : একটি কেনর উত্তর খুঁজে বের করুন

‘আযহারী জামায়াতের প্রোডাক্ট, কোরআন-হাদীসের নামে আজেবাজে কথা বলে’ : ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

আমি কোনও দলের এজেন্ট বা প্রোডাক্ট নই: আজহারী

আমাকে জড়িয়ে কাউকে গালীগালাজ করবেন না : আযহারী

আজহারী ইস্যুত ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর অপসারণ চায় মালয়েশিয়া প্রবাসীরা

আমি কোনও দলের এজেন্ট বা প্রোডাক্ট নই: আজহারী

মিজানুর রহমান আজহারী ও তারেক মুনাওয়ারের মাহফিল বিষয়ে সংসদে আলোচনা

ইসলামের ভুল ব্যাখ্যার অভিযোগে সিলেটে নিষিদ্ধ আজহারী

চাঁদপুরে বন্ধ হলো আজহারীর মাহফিল

আযহারী ফিরবেন কবে?

মন্তব্য করুন