র‌্যাগিংয়ের শাস্তি দিয়ে পবিপ্রবি ভিসিসহ অর্ধশত শিক্ষক ১২ ঘণ্টা অবরুদ্ধ

প্রকাশিত: ৭:২১ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২০

পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পবিপ্রবি) র‌্যাগিংয়ের শাস্তি দেয়ায় ভিসিসহ অর্ধশত শিক্ষককে ১২ ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখে শিক্ষার্থীরা।

র‌্যাগিংয়ের দায়ে বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীদের বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে তালাবদ্ধ থাকার প্রায় ১২ ঘণ্টা পর পটুয়াখালী জেলা প্রশাসনের সহায়তায় মঙ্গলবার ভোর ৪টার দিকে অবরুদ্ধ দশা থেকে মুক্ত হয়েছেন তারা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের ১৫ জন শিক্ষার্থীর বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে সোমবার সকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে ৩য় সেমিস্টারের প্রায় তিন শতাধিক শিক্ষার্থী আন্দোলন শুরু করে। বিকাল ৫টার দিকে ওই আন্দোলনকারীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের মূল গেটে তালা লাগিয়ে দেয়ায় প্রশাসনিক ভবনে অবস্থানরত বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যসহ অর্ধশত শিক্ষক অবরুদ্ধ হয়ে পরেন। পরে মধ্যরাতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জেলা প্রশাসনের কাছে মুক্ত হতে সহায়তা চান।

রাত প্রায় ২টার দিকে পটুয়াখালী জেলার জেলা প্রশাসক মতিউল ইসলাম চৌধুরী ও পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মইনুল হাসান বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে আন্দোলনকারীসহ পবিপ্রবি প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলেন। পরবর্তীকালে রাত ৪টার দিকে উভয় পক্ষের সঙ্গে আলোচনাসাপেক্ষে সিদ্ধান্ত হয় আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা বোর্ডের সভায় ওই শিক্ষার্থীদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

এ দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক পরিষদ এক জরুরি সভায় আগামী ২৩ তারিখ পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ধরনের ক্লাস-পরীক্ষা ও ক্লাস বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর আবুল কাশেম চৌধুরী জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, র‌্যাগিংয়ের সঙ্গে জড়িত থাকায় গত ২৩ জানুয়ারি ১৫ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করে পবিপ্রবি প্রশাসন।

ওয়াইপি/পাবলিক ভয়েস

মন্তব্য করুন